🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ বুধবার, ২৯ বৈশাখ, ১৪২৮ ৷ ১২ মে, ২০২১ ৷

বগুড়ার প্রাচীন প্রত্নতাত্ত্বিক ঐতিহাসিক মহাস্থানগড়

❏ বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১৬ দেশের খবর, রাজশাহী

মহাস্থানগড় থেকে ফিরে আত্রাই থেকে নাজমুল হক নাহিদ: ঘুরে এলাম বগুড়ার প্রাচীন প্রত্নতাত্ত্বিক ঐতিহাসিক মহাস্থানগড়। মহাস্থানগড়ের অবস্থান বগুড়া জেলায়। বগুড়া শহর থেকে দূরুত্ব মাত্র ১০ কিলোমিটার। পুরাকীর্তির সম্ভারে পূর্ণ মহাস্থানগড় দেখতে উম্মে  হাবিবা নুরানী ভাবিকে সঙ্গে নিয়ে স্ব-পরিবারে প্রথমেই আমরা যায় বগুড়া শহরের সাত মাথায়। সাতটি রাস্তা এসে মিলেছে এখানে।

bogura

সেখান থেকে প্রথমেই গেলাম কালিদহ সাগরে। তারপর বেহলার বাসর ঘর। একটু আরাম করেই আবার গেলাম পীরজাদা হযরত শাহ সুলতান মাহমুদ বখলী মাহিসাওয়ার (রা.) এর মাজার শরিফে। এ মাজার সম্পর্কে কথিত আছে, হযরত মীর বোরহান নামক একজন মুসলমান এখানে বাস করতেন। পুত্র মানত করে গরু কোরবানী দেয়ার অপরাধে রাজা পরশুরাম তার বলির আদেশ দেন এবং তাকে বাঁচানোর জন্য মাছের পিঠে চড়ে বরেন্দ্র ভূমিতে আসেন পীরজাদা হযরত শাহ সুলতান মাহমুদ বখলী (রা.)। আর সে জন্যই তাঁকে বলা হয় মাহি সাওয়ার। মাজার শরিফ থেকে বের হয়ে শীলাদেবীর ঘাট ঘুরে চলে আসি মহাস্থানগড়। এরপর যায় গোবিন্দ ভিটা, সেখান থেকে আবার মহাস্থানগড় জাদুঘরে। মহাস্থানগড় খনন করে গুপ্ত, মৌর‌্য, সেন ও পাল বংশীয় যুগের যেসব প্রস্তর খন্ড ও দেবদেবীর মূর্তি পাওয়া গেছে তার সবই এই জাদুঘরে সংরক্ষিত রয়েছে। জাদুঘর ঘুরে আমরা চলে আসি জিয়ৎকুন্ড। সেখান থেকে পরশুরামের ভিটায়।

তথ্য অনুসন্ধানে জানা যায়, বগুড়ার মহাস্থানগড় প্রাচীন বাংলার অন্যতম একটি প্রত্নতাত্ত্বিক ও ঐতিহাসিক গুরুত্বপূর্ণ স্থান। মহাস্থানগড় হচ্ছে বাংলাদেশের সবচেয়ে প্রাচীন নগরী। এক সময় এই নগরীটি প্রাচীন বাংলার রাজধানী ছিল। পরে এর নাম ছিল পুন্ড্রবর্ধন ও পুন্ড্রনগড়। প্রাচীন ইতিহাস, ঐতিহ্য, দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম প্রাচীন নগররাষ্ট্র এবং তার ধ্বংসাবশেষ ও প্রত্নস্থল হিসাবে সমগ্র বিশ্বের পর্যটন কেন্দ্রটি দেখার জন্য প্রতিদিন হাজার হাজার পর্যটক ভিড় জমায় বগুড়ার মহাস্থানগড়ে।

তবে প্রাচীন এই নগরীকে ঘিরে অনেক গুলো দর্শণীয় স্থান রয়েছে যার মধ্যে বিশেষ কিছু স্থান রয়েছে যা না দেখলে মহাস্থানগড়ের ভ্রমন অপূর্ণ থেকে যাবে। মহাস্থানগড়ের ৭টি গুরুত্বপূর্ণ স্থান সম্পর্কে জানানোর চেষ্টা করলাম। আশা করি সকলে ভ্রমনে এসে এই ৭টি দর্শনীয় স্থান দেখতে ভুল করবেন না। সকলের ভ্রমন নিরাপদ ও আনন্দোময় হোক এই শুভ প্রত্যাশা রইল।