সংবাদ শিরোনাম

পণ্যবাহী ট্রাক-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১খালেদার জিয়ার শারীরিক অবস্থার উন্নতি নেই, হয়নি বিদেশ যাওয়ার সিদ্ধান্তওপ্রধানমন্ত্রী কোরআন-সুন্নাহর বাইরে কিছু করেন না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীমির্জাপুরে গণহত্যা দিবস উপলক্ষে মোমবাতি প্রজ্জ্বলনশনিবার থেকে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনাস্পুটনিক-৫ টিকা একে-৪৭’র মতো নির্ভরযোগ্য: পুতিনডোপটেস্টো রিপোর্ট: স্পিডবোটের চালক শাহ আলম মাদকাসক্তচাঁদপুরে ঐতিহাসিক বড় মসজিদে লক্ষাধিক মুসল্লির সালাতে ‘জুমাতুল বিদা’ রাঙামাটিতে ডিবির অভিযানে ইয়াবাসহ দুই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী আটক! আনসার ব্যাটালিয়ান সদস্যদের সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষ : নারীসহ ৯জন আহত

  • আজ ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

মাদারীপুরের বনিক সমিতি নির্বাচন জমে উঠেছে : ভোট কিনে নেয়ার অভিযোগ

২:৪০ অপরাহ্ন | বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১৬ ঢাকা, দেশের খবর

মেহেদী হাসান সোহাগ, মাদারীপুর প্রতিনিধি: মাদারীপুর সদর উপজেলার পুরান বাজার বনিক সমিতির কার্যকরী পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষনার আগেই জমে উঠেছে। আগামী ২৮ অক্টোবর এ নির্বাচনকে ঘিরে প্রার্থীদের পোষ্টার, ব্যানার, ফেস্টুন, লিফলেটে ছেয়ে গেছে পুরো পুরান বাজার সহ আশে পাশের এলাকা।

r

প্রার্থীরা দিনরাত ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট প্রার্থনা ও দোয়া কামনা করছেন ভোর থেকে রাত পর্যন্ত। কিন্তু কিছু অসাধু প্রার্থী টাকার বিনিময় ট্রেড লাইসেন্স ও ভোটার করে দিয়ে মাথা কিনে নিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

সদর উপজেলার পুরান বাজার বাজার বণিক সমিতি নির্বাচন বিগত ২০১২ সালে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। বিভিন্ন জঠিলতা ও সভাপতির মৃত্যুর কারণ সহ নানা ইস্যু নিয়ে প্রায় ৪ বছরের বেশী সময় ধরে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি। স্থানীয় ব্যবসায়ী আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মাদারীপুর সদর উপজেলা বনিক সমিতির নির্বাচন সম্পন্ন করার লক্ষ্যে একটি নির্বাচন পরিচালনা ৬ সদস্যের একটি কমিটি গঠন কর হয়েছে।

উক্ত কমিটির প্রধান নির্বাচন কর্মকর্তা করা হয় লিগাল এইড এস্যসিয়েশন সভাপতি খান মোঃ শহিদকে। তবে নির্বাচনের সম্ভব্য তারিখ ঘোষনা হলেও নির্বাচনের তপসিল এখনো ঘোষনা হয় নাই। সরেজমিন বাজার ঘুরে দেখা গেছে আগামী নির্বাচন নিয়ে প্রার্থীরা ইতিমধ্যে পোষ্টার, ব্যানার, ফেস্টুন, লিফলেটে চেয়ে গেছে পুরো বাজার সহ আশে পাশের এলাকা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বলেন অনেক ব্যবসায়ী, কিছু অসাধু প্রার্থী টাকার বিনিময় ট্রেড লাইসেন্স ও ভোটার করে দিয়ে মাথা কিনে নিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বিশেষ করে ছোট ছোট ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের টাকা দিয়ে কিনে নিচ্ছে। মাদারীপুরের বনিক সমিতির ব্যবসায়ীদের দীর্ঘদিনের আসা সুন্দর, সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে জয়ী প্রার্থী ব্যবসায়ীদের সুখে-দুঃখে পাশে থাকবে এমনটাই প্রত্যাশা সকলের।

মাদারীপুর বনিক সমিতির সাধারন সম্পাদক প্রার্থী, মনিরুল ইসলাম (তুষার) ভূঁইয়া বলেন, আমার বাবা একজন সফল সভাপতি ছিলেন, আমি তার যোগ্য সন্তান, ব্যবসায়ীদের ভোট কিনে নেয়াকে ধিক্কার জানায়। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া উচিত তানা হলে এই বনিক সমিতিতে অসৎ ব্যবসায়ী প্রবেশ করবে।

মাদারীপুর বনিক সমিতির সহ-সভাপতি প্রার্থী, মনিরুজ্জামান লস্কর বলেন দুই বছর পরপর নির্বাচন হওয়ার কথা কিন্তু সারে চার বছর হয়ে গেলেও এখনো নির্বাচন হয়নি। কোন প্রতিনিধি নিজ টাকা দিয়ে ভোট করে থাকে তাহলে এটা আমাদের সবার জন্য ক্ষতি।

মাদারীপুর বনিক সমিতির সভাপতি প্রার্থী, সাব্বির ভূঁইয়া (ছোট ভুইয়া) বলেন, আমরা তিনজন প্রতিনিধি আছি, ব্যবসায়ীরা একজনে বেচে নিবে, যে প্রতিনিধি ব্যবসায়ীদের পাশে থাকতে পারবে। যারা বলেছে প্রতিনিধিরা টাকা দিয়ে ভোট করে দিয়েছে, এটা সম্পূর্ন মিথ্যা কথা। এটা ব্যবসায়ীদের হেয় করার জন্য বলেছে।

মাদারীপুর বনিক সমিতির বর্তমান সহ-সভাপতি মোঃ সোরাফ হোসেন হাওলাদার সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, কিছু প্রভাবশালী প্রার্থী আছে তারা টাকার বিনিময় ভোটার করে দিচ্ছে। সেক্ষেত্রে ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান একটি পবিত্র জিনিস, এখানে হালাল অর্থ বিনিময় করে জিবিকা নির্বাহ করে থাকে। যারা এই কাজ করছে তাদের উচিত ব্যবসায়ীদের কাছে ক্ষমা চাওয়া। আমরা নির্বাচন কমিশনকে ব্যাপারটা জানিয়েছি। সে আমাদের আশ্বাস দিয়েছে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ার।

মাদারীপুর বনিক সমিতির বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফরিদুল ইসলাম শাহিন খান সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, আমরা অভিযোগটি শুনেছি। তাই নির্বাচন কমিশনকে মৌখিক ভাবে অভিযোগ জানানো হয়েছে। আমার কথা হলো কেউ যদি দুনীর্তি আশ্রয় নিয়ে নির্বাচন করতে চায় তাহলে এই ব্যাপারটা নির্বাচন কমিশনের দেখা উচিত এবং সাধারন ভোটাদের দেখা উচিত।

মাদারীপুর বনিক সমিতির প্রধান নির্বাচন কর্মকর্তা খান মোঃ শহিদ অভিযোগের কথা অস্বীকার করে সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, আমাদের কাছে নির্বাচন সংক্রান্ত কোন ব্যাপারে লিখিত কোন অভিযোগ আসেনি।