• আজ ২৮শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

অভিষেকেই ম্যাচ হিরো মিরাজ, এমন সাফল্যের পেছনে মুশফিক ও কোচ সোহেল!

৭:২২ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২০, ২০১৬ খেলা, স্পট লাইট

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক – অনেক দিন ধরেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছেন সাকিব আল হাসান। স্পেশালিষ্ট স্পিনার হিসেবে আছেন তাইজুল ইসলাম। কিন্তু তাদের ছাপিয়ে ম্যাচে হিরো মেহেদী হাসান মিরাজ। তার বলেই ছত্রখান ইংলিশ ব্যাটসম্যানরা।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট অভিষেকে পাঁচ উইকেট শিকার করে রেকর্ড গড়েছেন অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে আলো ছড়ানো মিরাজ। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডের স্কোয়াডে জায়গা না হওয়ায় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পথচলাটা একটু বিলম্ব হয় মিরাজের।

তবে টেস্ট ক্রিকেট দিয়ে এই ইংলিশদের বিপক্ষেই তার অভিষেক হলো। আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ম্যাচেই (টেস্টে) পাঁচ উইকেট উইকেট নিজের দখলে নিলেন মিরাজ।

আসলে কি এটার রহস্য? বৃহস্পতিবার প্রথম তিনদিনের খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে হাজির হন এ তরুণ অলরাউন্ডার। আর এখানেই তার সাফল্যের রহস্য জানিয়েছেন তিনি।

মিরাজ বলেন,‘ আসলে আমি নিজেও ভাবিনি যে, ৫ উইকেট পেয়ে যাব। ভাগ্য ভালো ছিল। আল্লাহর সহায়তা ছিল। তারপরে যেটা হয়েছে যে, আমি উইকেট টু উইকেট বল করেছি। বলগুলো ঠিক জায়গা ফেলেছি। প্রথম ওভার আমি বাইরে বল ফেলেছিলাম। মুশফিক ভাই আমাকে ডেকে বললো, উইকেট টু উইকেট বল কর। জায়গায় বল কর। দেখবি উইকেট পাবি। আমি সেটাই করেছি।’

miraj-test

খেলা হয়েছে ৯২ ওভার। তিনি একাই করছেন ৩৩ ওভার। অভিষেক ম্যাচে টানা বোলিং করাটা সহজ নয়। জাতীয় লিগের অভিজ্ঞতা এক্ষেত্রে কাজে দিয়েছে বলে জানালেন তিনি। মিরাজ বলেন,‘ রাজ (রাজ্জাক) ভাইয়ের সঙ্গে আমি অনেক ম্যাচেই ৩০/৩২ ওভার বল করেছি। এই অভিজ্ঞতা এখানে কাজে লেগেছে। তবে হ্যাঁ, এটা আন্তর্জাতিক ম্যাচ। দলটা ইংল্যান্ড। সামান্য সুযোগ দিলেই তারা সেটা লুফে নিবে। তাই কাজটা সহজ ছিল না। কিন্তু আমি এ নিয়ে চিন্তা করেনি। কোচ সোহেল স্যার আমাকে সব সময়ই উইকেট টু উইকেট বল করতে বলেন। অনূর্ধ্ব-১৫ দল থেকে তিনি আমাকে নিয়ে কাজ করছেন। তার কাছে আমি কৃতজ্ঞ। আমি ভালো করেছি। তিনি নিশ্চয়ই খুশি হয়েছেন।’

তিনি মনে করেন, এই উইকেটে বাংলাদেশের ব্যাটিংও ভালো হবে। মিরাজ বলেন,‘ আমরা টার্নিং উইকেটে ব্যাট করতেই অভ্যস্ত। সারা বছর আমরা এমন কন্ডিশনে খেলে আসি। তাই আমার মনে হয় ব্যাটিংও আমাদের বেশ ভালো হবে।’

প্রসঙ্গত, সপ্তম বাংলাদেশি বোলার হিসেবে টেস্ট অভিষেকেই পাঁচ উইকেট নেয়ার অনন্য কীর্তি গড়লেন তিনি। এর আগে বাংলাদেশের পক্ষে অভিষেক টেস্টেই পাঁচ উইকেট নিয়েছিলেন নাইমুর রহমান দুর্জয়, মঞ্জুরুল ইসলাম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, ইলিয়াস সানি, সোহাগ গাজী ও তাইজুল ইসলাম।

আর তৃতীয় অফস্পিনার হিসেবে এই কীর্তি গড়লেন মিরাজ। আগের দুজন অফস্পিনার হলেন নাইমুর রহমান দুর্জয় ও সোহাগ গাজী। এই সাতজন বোলারের মধ্যে একমাত্র পেসার হিসেবে অভিষেক টেস্টে পাঁচ উইকেট পেয়েছিলেন মঞ্জুরুল ইসলাম।