সংবাদ শিরোনাম

লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে সড়কে দীর্ঘ যানজট!৬ বছরের ছেলে সাহেলের প্রথম রোজা, আপ্লুত মাশরাফিকোরআন তেলাওয়াত, ইবাদতে প্রথম রোজা কেটেছে খালেদারভাঙ্গায় রাতের আঁধারে দফায় দফায় সংঘর্ষ, ভাঙচুর-লুটপাট : আহত-১৫বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে তরুণীর সর্বস্ব কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ স্কুল শিক্ষকের বিরুদ্ধেমহাসড়ক যানশূন্য, শিমুলিয়ায় ফেরি পারাপার বন্ধ‘তালা ভেঙ্গে মসজিদে তারাবি পড়ার চেষ্টা্’‌, পুলিশের বাধায় সংঘর্ষে মুসল্লিরা‘লঘু পাপে গুরু দণ্ড’; তিনটি মুরগি চুরির দায়ে দেড়লাখ টাকার জরিমানা চার তরুণের!কুড়িগ্রামের সবগুলো নদ-নদী শুকিয়ে গেছে, হুমকীতে জীব-বৈচিত্রহেফাজতের আরেক কেন্দ্রীয় নেতা গ্রেপ্তার

  • আজ ২রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ইংলিশ চ্যানেলে রুশ যুদ্ধবিমান, অস্বস্তিতে ব্রিটেন

৭:৫৬ অপরাহ্ন | শুক্রবার, অক্টোবর ২১, ২০১৬ Breaking News, আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক – রাশিয়ার একটি যুদ্ধজাহাজের বহর ইংলিশ চ্যানেল অতিক্রম করছে। বিমানবাহী রুশ রণতরী এডমিরাল কুজনেটস এবং অন্যান্য জাহাজের এই বহরটি যাচ্ছে সিরিয়ার ভূমধ্যসাগরীয় উপকুলে। খবর বিবিসির।

যুদ্ধজাহাজের বহরটি আন্তর্জাতিক জলসীমা দিয়ে ইংলিশ চ্যানেল অতিক্রম করছে। তবে এ নিয়ে অস্বস্তি তৈরি হয়েছে ব্রিটেনে। দুটি ব্রিটিশ যুদ্ধজাহাজ দূর থেকে রুশ রণতরীকে অনুসরণ করছে।

সিরিয়ার যুদ্ধে রাশিয়া যে ভূমিকা নিয়েছে তা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র এবং পশ্চিম ইউরোপের দেশগুলোর সঙ্গে দ্বন্দ্ব চলছে। ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মাইকেল ফ্যালন বলেছেন, ব্রিটেনকে নিরাপদ রাখার জন্য তারা এই রুশ যুদ্ধজাহাজের বহরের ওপর সতর্ক নজর রাখবেন।

এডমিরাল কুজনেটসভকে অনুসরণের জন্য ব্রিটিশ যুদ্ধজাহাজ এইচএমএস ডানকান এবং এইচএমএস রিচমন্ডকে গত মঙ্গলবারই ইংলিশ চ্যানেলে পাঠানো হয়েছে।

zuddho-biman-rusian

এডমিরাল কুজনেটসভ রুশ নৌবাহিনীর একমাত্র যুদ্ধবিমানবাহী রণতরী। ব্রিটেনের এরকম কোন বিমানবাহী রণতরী নেই। তবে রাশিয়া সিরিয়ার লড়াইয়ে এরকম বিশাল যুদ্ধজাহাজ কেন পাঠাচ্ছে তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

রুশ পত্রিকা কমসোমলস্কায়া প্রাভদার খবরে বলা হয়েছে, এই জাহাজের বহর ভূমধ্যসাগরে কোন প্রমোদ ভ্রমণে যাচ্ছে না। সিরিয়ায় প্রেসিডেন্ট বাসার আল আসাদের বিরোধী বিদ্রোহী এবং জঙ্গী গোষ্ঠীগুলোর অবস্থানে হামলা চালানোর জন্য এই যুদ্ধজাহাজের বহর ব্যবহার করা হবে।

তবে সামরিক বিশ্লেষকরা বলছেন, শুধু সিরিয়ার যুদ্ধে নিজেদের সমর শক্তি বাড়ানোই রাশিয়ার লক্ষ্য নয়। একই সঙ্গে রাশিয়া পশ্চিমা দেশগুলোর কাছে এরকম একটা বার্তা দিতে চাইছে যে, তারা যেখানে খুশি তাদের এই যুদ্ধজাহাজ পাঠাতে পারে। সেই ক্ষমতা তাদের আছে।