সংবাদ শিরোনাম

লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে সড়কে দীর্ঘ যানজট!৬ বছরের ছেলে সাহেলের প্রথম রোজা, আপ্লুত মাশরাফিকোরআন তেলাওয়াত, ইবাদতে প্রথম রোজা কেটেছে খালেদারভাঙ্গায় রাতের আঁধারে দফায় দফায় সংঘর্ষ, ভাঙচুর-লুটপাট : আহত-১৫বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে তরুণীর সর্বস্ব কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ স্কুল শিক্ষকের বিরুদ্ধেমহাসড়ক যানশূন্য, শিমুলিয়ায় ফেরি পারাপার বন্ধ‘তালা ভেঙ্গে মসজিদে তারাবি পড়ার চেষ্টা্’‌, পুলিশের বাধায় সংঘর্ষে মুসল্লিরা‘লঘু পাপে গুরু দণ্ড’; তিনটি মুরগি চুরির দায়ে দেড়লাখ টাকার জরিমানা চার তরুণের!কুড়িগ্রামের সবগুলো নদ-নদী শুকিয়ে গেছে, হুমকীতে জীব-বৈচিত্রহেফাজতের আরেক কেন্দ্রীয় নেতা গ্রেপ্তার

  • আজ ২রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ছাগলের ক্ষেত খাওয়াকে কেন্দ্র করে স্কুলছাত্রীর চুল কেটে মারধর! আটক দুই

১১:৫৫ অপরাহ্ন | রবিবার, অক্টোবর ২৩, ২০১৬ আলোচিত, স্পট লাইট

গাইবান্ধা : ছাগলে ক্ষেতের ফসল খাওয়ার মত তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গতকাল শনিবার এক স্কুলছাত্রীকে অমানবিক কায়দায় মারধর ও তার চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে । গাইবান্ধা সদর উপজেলার বোয়ালি ইউনিয়নের রাধাকৃষ্ণপুর গ্রামে এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ২জনকে ইতমধ্যেই  গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আজ রোববার তাদের গাইবান্ধা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

গাইবান্ধা সদর থানার পুলিশ ও স্কুলছাত্রীটির পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার রাধাকৃষ্ণপুর গ্রামের বাটুল মিয়ার একটি ছাগল স্কুলছাত্রীর ভাই প্রতিবেশী আজাদ হোসেনের জমিতে গিয়ে ফসল খেয়ে ফেলে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে ছাগলটিকে মারধর করে আজাদ হোসেন। পরে ছাগলটি অসুস্থ হলে জবাই করা হয়। এনিয়ে স্থানীয়ভাবে এক শালিস বৈঠকে ছাগলের মূল্য পরিশোধের সিদ্ধান্ত হয়। শনিবার সকালের মধ্যে ওই টাকা পরিশোধের কথা ছিল। কিন্তু আজাদ হোসেন সময়মত টাকা পরিশোধ না করায় উভয় পক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়।

এর জের ধরে শনিবার সকালে স্কুলে যাবার পথে বাটুল মিয়ার ছেলে আরিফ মিয়া (২০), একই গ্রামের আলম মিয়ার ছেলে রাকিব মিয়া (১৮) এবং আব্দুস সালামের ছেলে আশিক মিয়া (১৮) আজাদ হোসেনের বোন ওই স্কুলছাত্রীকে মারধর করে। এক পর্যায়ে তারা স্কুলছাত্রীটির মাথার চুল কেটে দেয়। এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে গত শনিবার বিকেলে সদর থানা পুলিশ বাটুল মিয়া এবং তার ছোটভাই আব্দুস সালামকে গ্রেপ্তার করে। রোববার তাদের জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

cagol77
এই ঘটনায় স্কুলছাত্রীর বাবা নুরু মিয়া বাদি হয়ে আরিফ মিয়া, রাকিব মিয়া, আশিক মিয়া, বাটুল মিয়া ও আব্দুস সালামসহ ছয়জনকে আসামি করে ওইদিন রাতে সদর থানায় মামলা করেন।

গাইবান্ধা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মেহেদী হাসান সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, মারধরের ঘটনা ঘটেছে ঠিক। কিন্তু চুল কেটে দেওয়ার বিষয়টি রহস্যজনক মনে হচ্ছে। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। অবশিষ্টদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।