রিপ্লেতে দেখুন বাংলাদেশ বনাম ইংল্যান্ডের পঞ্চম দিনের পুরো ম্যাচ

২:১৫ অপরাহ্ন | সোমবার, অক্টোবর ২৪, ২০১৬ খেলা, স্পট লাইট

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক-

বেন স্টোকসের তিন বলেই নুয়ে পড়লো বাংলাদেশের শেষ দুই উইকেট।  সব মিলিয়ে শেষ দিন সকালে খেলা হলো ২১ বল আর মিনিট বিশেক। এক প্রান্তে অসহায় সাব্বির। চতুর্থ ইনিংসে ২৬৩ রানে অলআউট বাংলাদেশ, চট্টগ্রাম টেস্ট ইংল্যান্ড জিতল ২২ রানে।

তবে ১৫ মাস পর টেস্ট খেলতে নেমে, প্রায় শূন্য থেকে শুরু করে, টস হারার পর এবং আরও অনেক প্রতিকূল বাস্তবতার সঙ্গে লড়াই করে যেভাবে খেলেছে দল, তাতে গর্ব করতেই পারে বাংলাদেশ!

পঞ্চম দিন সাব্বিরের শুরুটা ছিল ইতিবাচক। স্নায়ুর চাপ না থাকার কারণ নেই। কিন্তু ব্যাটিং আর শরীরী ভাষায় সেটির প্রভাব শুরুতে দেখা যায়নি। তাইজুল একটি চার পেলেন ব্যাটের ওপরের কানায় লেগে কিপারের ওপর দিয়ে। বাংলাদেশ গেল একটু এগিয়ে।

চট্টগ্রাম টেস্টে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ঐতিহাসিক জয়ের জন্য স্বাগতিক বাংলাদেশের প্রয়োজন ছিল ৩৩ রান, হাতে দুই উইকেট। বাংলাদেশ আশাবাদী ছিল, কারণ উইকেটে ৫৯ রান নিয়ে ছিলেন আত্মবিশ্বাসী সাব্বির রহমান। তার সঙ্গী তাইজুলও ১১ রান নিয়ে ভালো খেলছিলেন। দু’জনের দু’টিতে এসেছিল চতুর্থ দিনের বিকাল কাটিয়ে দেয়া ১৫ রান।

সেখান থেকে সাব্বির শেষ দিনে এসে পারলেন না। দুই সতীর্থের আত্মহননে বাংলাদেশ এই টেস্ট হেরে গেছে ২২ রানে।

তবে ম্যাচ হারলেও এখানে বাংলাদেশের একটি পাওয়া দেশের হয়ে অভিষেকে সাব্বিরের একটি রেকর্ড।

চট্টগ্রামে নিজের অভিষেক টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে হাফ-সেঞ্চুরি করে এই রেকর্ডের মালিক হয়েছেন এই মারকুটে ব্যাটসম্যান। আর ৫ম দিনে থেকেছেন ৬৪ রানে অপরাজিত।

বাংলাদেশীদের মধ্যে অভিষেক টেস্টে নিজের দ্বিতীয় ইনিংসে হাফ-সেঞ্চুরি করা প্রথম ব্যাটসম্যান হলেন তিনি। এর আগে এমন কীর্তি গড়তে পারেননি কেউই।

চট্টগ্রাম টেস্টে অভিষেক হয় সাব্বিরের। প্রথম ইনিংসে ১৯ রানে বিদায় নিলেও, দ্বিতীয় ইনিংসে দুর্দান্ত ব্যাট করেছেন সাব্বির। ম্যাচের চতুর্থ দিন হাফ-সেঞ্চুরি তুলে দিন শেষে ৬৪ রানে অপরাজিত তিনি। দলের ভীষণ প্রয়োজনের সময় ১০২ বলের সময়োপযোগী সেই ইনিংসে ৪টি চার ও ২টি ছক্কার মার ছিলো।

সাব্বির এরআগে ৩৫টি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচ খেলেছেন। রয়েছে তিনটি সেঞ্চুরি ও আটটি হাফ সেঞ্চুরি। তুলির শেষ আঁচড়টা সাব্বির দিতে পারেননি ঠিকই। তবে টি ২০ এবং ওয়ানডের পর টেস্টে যে আলো ছড়ালেন, তাতে স্পষ্ট সাদা পোশাকেও তিনি স্থায়ী হতে এসেছেন।

পঞ্চম ও শেষ দিনের ম্যাচ