সংবাদ শিরোনাম

খালেদা জিয়ার সিটি স্ক্যানের রিপোর্ট নিয়ে যা বললেন চিকিৎসক২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিলেন কাদের মির্জাটাঙ্গাইলে ভন্ড পুরুষ কবিরাজ নারী সেজে যুবককে বিয়ে! অতঃপর…ব্যক্তিগত কাজে সরকারি গাড়ি নিয়ে স্বাস্থ্য কর্মকর্তার ঢাকা ভ্রমণ!শেরপুরের সেই শিশু রোকনের পরিবারের পাশে ইউএনও!কক্সবাজারে অস্ত্রসহ ডাকাতি মামলার আসামি গ্রেফতারকক্সবাজারে অনুপ্রবেশকারীর পক্ষ না নেয়ায়, আ’লীগ সভাপতিকে অব্যাহতি!শাহজাদপুরে ট্যাংকলরি সিএনজি’র মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ১রমজান মাসে আলেমদের হয়রানি মেনে নেয়া যায় না: নুরুল ইসলাম জিহাদীখালেদা জিয়াকে পাকিস্তান-জাপান দূতের চিঠি

  • আজ ৩রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিক্ষার্থী সুবীর হত্যা: ২ সহপাঠীর মৃত্যুদণ্ড, অপর ২ সহপাঠীর যাবজ্জীবন

২:১১ অপরাহ্ন | সোমবার, অক্টোবর ২৪, ২০১৬ Breaking News, আলোচিত বাংলাদেশ, ফিচার

সময়ের কণ্ঠস্বর – বেসরকারি আহসানউল্লাহর ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনলোজির ছাত্র সুবীর চন্দ্র হত্যা মামলায় তার দুই সহপাঠীর মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। অপর দুই সহপাঠীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

সোমবার ঢাকার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক এসএম কুদ্দুস জামান এ রায় ঘোষণা করেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, ফরহাদ হোসেন ওরফে সিজু ও মো. হাসান। যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, সফিক আহমেদ রবিন এবং শাওন ওরফে কামরুল হাসান। রায়ে যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্তদের অতিরিক্ত ৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড এবং অনাদায়ে তাদের আরো ১ মাসের কারাদণ্ডের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা পলাতক রয়েছেন।

মামলায় লুৎফা আক্তার ওরফে সনির বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় বিচারক তাকে খালাস দিয়েছেন।

mrittu-dondo

প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালের ২১ জানুয়ারি সন্ধ্যায় আসামিরা পরস্পর যোগসাজসে তাদের সহপাঠী সুবীরকে হত্যা করে মরদেহ বুড়িগঙ্গা নদীতে ফেলে দেয়। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। ওই দিন সাভারের কোটালিয়াগ্রামের হাজী মোহাম্মাদ আলীর ইটভাটার পূর্বপাশের বুড়িগঙ্গা নদীর পাড় থেকে সুবীরের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

ওই ঘটনায় সুবীরের বাবা গৌরাঙ্গ চন্দ্র দাস সাভার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় আসামি সিজু ও রবিন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

মামলাটিতে ২০১৩ সালের ২৮ অক্টোবর আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ। চলতি বছর ১১ এপ্রিল আদালত আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। মামলার বিচারকালে আদালত ২৭ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৭ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন।