• আজ ২৮শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

রহস্য ঘেরা এক যাদুর পাহাড়, আইয়ারস রক!

৮:৪২ অপরাহ্ন | সোমবার, অক্টোবর ২৪, ২০১৬ চিত্র বিচিত্র, লাইফস্টাইল

ম্যাজিক পাহাড়

মিরাজ উল কবির, লাইফস্টাইল কন্ট্রিবিউটর, সময়ের কণ্ঠস্বর।

রহস্যময় এই পৃথিবীতে আছে অবাক হবার মত কতশত নিদর্শন। এর সামন্যই আমরা জানি। এমন যদি বলা হয় আস্ত এক পাহাড় জুড়ে চলে রঙ বদলের খেলা? বিস্ময়ের সীমারেখা কোথায় যেতে পারে? অথচ এমন অদ্ভুত অনেক ঘটনা যেগুলো আমরা কখনো কল্পনাও করতে পারি না সেগুলো আমাদের আশেপাশেই ঘটে যাচ্ছে। আজ আপনাদের পৃথিবীর সেই রহস্যময় পাহাড়ের গল্প শোনাবো যেটা ম্যাজিক পাহাড় নামে পরিচিত।

কি, নাম শুনেই কৌতূহল বোধ করছেন। হয়ত ভাবছেন ম্যাজিক পাহাড় আবার কেমন জায়গা? এই পাহাড় কি যাদু দেখায় নাকি? হ্যা, আসলেই তাই। ম্যাজিক পাহাড় রঙ বদলানোর যাদু দেখায়।

‘আইয়ারস রক’ নামের এই পাহাড়টির রয়েছে অদ্ভুত রং বদলানো বৈশিষ্ট্য। গিরগিটি, স্কুইড যেমন যখন খুশি তখন রং বদলাতে পারে তেমনি আইয়ারস রক নামের এই পাহাড় জুড়েও চলে রঙ বদলের খেলা। অদ্ভুত এই বিশিষ্টের জন্য একে ম্যাজিক পাহাড় বলা হয়। ডিমের মতো দেখতে এই পাহাড়টি অস্ট্রেলিয়ায় অবস্থিত। এ পাহাড়টির উচ্চতা প্রায় ৩৪৮ মিটার, দৈর্ঘ্য ৭ কিলোমিটার এবং প্রস্হ ২.৪ কিলোমিটার। অদ্ভুত এ পাহাড়টি সম্পূর্নই একটি প্রস্তর খন্ড। এর গঠনটাই বেশ অদ্ভুত!

পাহাড়টির স্বাভাবিক রং লাল। তবে সুর্যোদয় ও সুর্যাস্তের সময় ঘটে অদ্ভুত সব ঘটনা। সকালে সুর্যের আলোর বিচ্ছুরন পাহাড়ের উপর পড়লেই মনে হয় যেন আগুন ধরেছে এর গায়ে। আর তখনি বেগুনী ও গাঢ় লাল রংয়ের শিখা বের হয়ে আসে পাহাড় থেকে।

শুধুমাত্র সুর্যোদয় কিংবা সুর্যাস্ত নয় সারাদিন জুড়ে চলে এই রঙ বদলের খেলা। প্রথমে হলুদ থেকে কমলা, পরে লাল ও মাঝে মাঝে বেগুনী কখনও বা গুমোট কালো। সুর্যরশ্মির আপতন কোণের পরিবর্তনের সাথে পাল্লা দিয়ে এর রঙ পরিবর্তন হয়। সুর্যোদয় কিংবা সুর্যাস্তের সময় সুর্যরশ্মিতে লাল ও কমলা রঙের আধিক্য থাকে। ফলে এ সময় পাহাড়টিকে লাল কিংবা কমলা মনে হয়।

ঠিক দুপুরের দিকে সুর্যরশ্মিতে অন্যান্য রঙের প্রাধান্য থাকে তাই ক্ষনে ক্ষনে পাহাড় রঙ বদলায়। রং রহস্যের আনাগোনা এই পাহাড়টির মাধুর্য মুগ্ধ করে পারে যেকোন মানুষকেই। অস্ট্রেলিয়ান সরকার ‘মাজিক পাহাড়’ নামে পরিচিত এই পাহাড়টি পর্যটকদের অবলোকনের সুবিধার্থে এর কাছাকাছি ৪৮৭ বর্গমাইল এলাকা জুড়ে গড়ে তুলেছে মাউন্ট ওগলা ন্যাশনাল পার্ক।

রহস্যময় এই পাহাড়টিকে ঘিরে রয়েছে অনেক ভ্রান্ত ধারণা। স্থানীয় আদিবাসীদের বিশ্বাস পাহাড়টিতে কোন দেবতা আছেন বলেই ঘন ঘন এর রং পরিবর্তিত হয়। তাই তারা সেই দেবতার উদ্দেশ্যে পাহাড়টিকে পূজা করে