• আজ শুক্রবার। গ্রীষ্মকাল, ১০ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ২৩শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। দুপুর ১:৩৮মিঃ

রাতের আধারে পাকিস্তানে পুলিশ প্রশিক্ষণ কলেজে যেভাবে হামলা চালায়

⏱ | মঙ্গলবার, অক্টোবর ২৫, ২০১৬ 📁 আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশের রাজধানী কুয়েটায় একটি পুলিশ প্রশিক্ষণ কলেজে হামলা চালিয়েছে জঙ্গিরা। এতে প্রশিক্ষণার্থী (ক্যাডেট) ও নিরাপরক্ষীসহ কমপক্ষে ৫৮ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন শতাধিক। হতাহতের মধ্যে অধিকাংশই সদ্য নিয়োগ পাওয়া পুলিশ সদস্য।

pakistan_28628_1477347948ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী এক পুলিশ সদস্য সাংবাদিকদের জানান, তখন রাত সাড়ে ১০টা। অধিকাংশ শিক্ষানবিশ পুলিশ সদস্য ততক্ষণে ঘুমিয়ে পড়ছিলেন। এ সময় ভারি অস্ত্রে সজ্জিত তিনজন কলেজের ডরমেটরিতে ঢুকে পড়ে। তাদের কাছে কালাশনিকোভ রাইফেল ছিল।

তিনি জানান, প্রথমেই তারা গেটে থাকা প্রহরীকে গুলি করে। এরপর নির্বিচারে গুলি ছুঁড়তে থাকে। এতে অনেকে গুলিবিদ্ধ হয়। এরই মধ্যে দুইজন আত্মঘাতী বোমার বিস্ফোরণ ঘটায়। এসময় একটি দেওয়ালের ওপাশে ঝাঁপিয়ে পড়ে তিনি রক্ষা পেয়েছেন বলে জানান ওই প্রত্যক্ষদর্শী।

পাকিস্তানের কর্মকর্তারা জানান, হামলাকারীরা বোমাযুক্ত পোশাক পরে কলেজ ভবনে ঢুকে প্রকাশ্যে গুলি চালায়। এর পর কয়েক ঘণ্টা ধরে তাদের বিরুদ্ধে অভিযান চালায় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। এতে তিন জঙ্গিই নিহত হয়।

হামলার বিষয়ে এক ক্যাডেট বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, তিন হামলাকারী ছদ্মবেশে কলেজে প্রবেশ করে। তারা গুলি করতে করতে ছাত্রাবাসের দিকে আসতে থাকে। কিন্তু তাদের আসার আগেই দেয়াল টপকে পালিয়ে যান তিনি।

ওই ক্যাডেট আরো বলেন, জঙ্গিদের মধ্যে দুজন বোমা বিস্ফোরিত হয়ে নিহত হয়। অন্যজন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গুলিতে নিহত হয়।

এখন পর্যন্ত কোনো গোষ্ঠী হামলার দায় স্বীকার করেনি। এই হামলা চলতি বছর পাকিস্তানে চালানো সবচেয়ে প্রাণঘাতী হামলাগুলোর মধ্যেন অন্যয়তম বলে জানিয়েছেন দেশটির উদ্ধারকারী কর্মকর্তারা।

নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন লস্কর-ই-জাংভি এই হামলা চালিয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা বেলুচিস্তান সেনাবাহিনীর।