• আজ রবিবার। গ্রীষ্মকাল, ৫ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ১৮ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। বিকাল ৩:২৮মিঃ

মসুলে ভেতরে সন্ত্রাসী-অবস্থানে গোলা বর্ষণ শুরু; আত্মসমর্পণ করছে দায়েশ

১২:৫৯ পূর্বাহ্ন | বুধবার, অক্টোবর ২৬, ২০১৬ আন্তর্জাতিক

4bkabbc8640bd5gcqv_800c450


আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ

ইরাকের উত্তরাঞ্চলীয় মসুল শহরের ভেতরে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএসআইএল বা দায়েশের অবস্থানে গোলা বর্ষণ শুরু করেছে ইরাকি বাহিনী। ইরাকের সন্ত্রাস-বিরোধী সেনা কন্টিনজেন্টের কমান্ডার আবদুল গণি আসাদি সোমবার এ ঘোষণা দিয়েছেন।

দায়েশ অধ্যুষিত মসুলের দক্ষিণে শতকরা ৭০ ভাগের বেশি এলাকা সন্ত্রাসী মুক্ত করা হয়েছে। এখন শহরে ঢোকার জন্য সন্ত্রাসীদের পেতে রাখা মাইন অপসারণের কাজ চলছে। আজ মসুলের দক্ষিণে নতুন করে আরো তিনটি গ্রাম মুক্ত করেছে ইরাকের সেনা ও স্বেচ্ছাসেবী বাহিনী। এছাড়া, কুর্দি পেশমার্গা বাহিনীও আজ তিনটি গ্রাম পুনরুদ্ধার করেছে। ইরাকের নিরাপত্তা বাহিনী মসুলের তাল-কাইফ এলাকার একটি গ্যাস প্লান্টের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে।

এদিকে, মসুলের কোথাও কোথাও দায়েশ সন্ত্রাসীরা ইরাকের বিমান বাহিনীর হামলা থেকে বাঁচার জন্য বহু সংখ্যক বাংকারে জ্বালানি তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে। এর ফলে ধোঁয়ার কুণ্ডলিতে দৃষ্টিসীমা কমে আসবে এবং বিমান থেকে সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুতে হামলা চালানো কষ্টকর হয়ে উঠতে পারে।

ইরাকি বাহিনীর হামলায় আহত অন্তত ৪০ সন্ত্রাসীকে চিকিৎসার জন্য মসুল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের বেশিরভাগই বয়সে বৃদ্ধ।

বলা হচ্ছে- সন্ত্রাসী গোষ্ঠী ইরাকি বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াই করার ক্ষমতা হারিয়েছে এবং বহুসংখ্যক দায়েশ সন্ত্রাসী মসুল থেকে পালিয়ে গেছে। এছাড়া, নাওয়ারান এলাকায় পেশমার্গা বাহিনীর ওপর গাড়ি হামলা চালাতে যাওয়ার সময় দায়েশের একটি গাড়ি ধ্বংস করেছে ইরাকের যুদ্ধবিমান।

অন্যদিকে, জাতিসংঘ মানবাধিকার সংস্থা জেনেভায় এক ব্রিফিংয়ে বলেছে, ইরাকের সেনাবাহিনী বহু বেসামরিক লোকজনের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে এবং এসব মানুষ দায়েশের গুলিতে মারা গেছে। এছাড়া, দায়েশের হাতে যে ৫০ জন পুলিশ আটক রয়েছে তাদেরকেও হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।