সংবাদ শিরোনাম

‘তালা ভেঙ্গে মসজিদে তারাবি পড়ার চেষ্টা্’‌, পুলিশের বাধায় সংঘর্ষে মুসল্লিরা‘লঘু পাপে গুরু দণ্ড’; তিনটি মুরগি চুরির দায়ে দেড়লাখ টাকার জরিমানা চার তরুণের!কুড়িগ্রামের সবগুলো নদ-নদী শুকিয়ে গেছে, হুমকীতে জীব-বৈচিত্রহেফাজতের আরেক কেন্দ্রীয় নেতা গ্রেপ্তারমধুখালীতে বান্ধবীর সহায়তায় অচেতন করে দফায় দফায় ধর্ষণের শিকার নারী!বাসস্ট্যান্ডে প্রকাশ্যে চায়ের স্টলে ইতালি প্রবাসীকে কুপিয়ে হত্যাগোবিন্দগঞ্জে মর্মান্তিক সড়ক দূঘর্টনায় স্কুল শিক্ষকসহ একই পরিবারের ৪ জন নিহতময়মনসিংহে ব্রহ্মপুত্র নদের পানিতে ডুবে মারা গেলো ৩ শিশুমুহুর্তেই ভয়াবহ আগুন! স্কুলেই পুড়ে মরলো ২০ শিশু শিক্ষার্থী!সাবেক আইনমন্ত্রী আব্দুল মতিন খসরু আর নেই

  • আজ ২রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

পাকিস্তানের হামলাকারীরা আফগানিস্তান থেকে এসেছিল- পাক প্রধানমন্ত্রী

১:০৪ অপরাহ্ন | বুধবার, অক্টোবর ২৬, ২০১৬ আন্তর্জাতিক

%e0%a6%9fঅান্তর্জাতিক ডেস্কঃ- সোমবার স্থানীয় সময় রাত সাড়ে নয়টার দিকে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছিল পাকিস্তানে বালুচিস্তানের রাজধানী কোয়েটার পুলিশ প্রশিক্ষণ কলেজ।এতে অন্তত ৬১ জন নিহত ও ১২০ জনেরও বেশি আহত হয়েছেন। নিহতদের বেশিরভাগই ক্যাডেট শিক্ষার্থী। হামলার সময় সেখানে অন্তত ৭০০ ক্যাডেট উপস্থিত ছিলেন। এই হামলাকারীরা আফগানস্থান থেকে এসেছিল এমন দাবি করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ।

ন্যাশনাল অ্যাকশন প্ল্যান (এনএপি)-এর সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

কোয়েটায় একটি পুলিশ প্রশিক্ষণ কলেজে আত্মঘাতী হামলা চালানো হয়।

 মঙ্গলবার সামরিক-বেসামরিক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে ন্যাশনাল অ্যাকশন প্ল্যান (এনএপি)-এর এক সভায় বলেন, ‘হামলাকারীরা প্রতিবেশী দেশ আফগানিস্তান থেকে এসেছিল।’ তিনি আফগান কর্তৃপক্ষের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা বলবেন বলেও জানিয়েছেন।

এদিকে, এই আত্মঘাতী হামলার দায় স্বীকার করেছে আইএস। অনলাইনে জঙ্গিবাদ পর্যবেক্ষক প্রতিষ্ঠান সাইট ইন্টেলিজেন্স জানিয়েছে, আইএস-এর কথিত বার্তাসংস্থা আমাক এজেন্সিতে তিন হামলাকারীর ছবি দিয়ে এই হামলার দায় স্বীকার করেছে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক এই জঙ্গিগোষ্ঠী।

তবে এর আগে কোয়েটার পুলিশ কর্মকর্তা মেজর জেনারেল শের আফগান জানান, ‘হামলাকারীরা আফগানিস্তানে তাদের নির্দেশদাতাদের সঙ্গে কথা বলছিল। তিনজনের গায়েই আত্মঘাতী বিস্ফোরক ছিল।’ তার ধারণা, হামলাকারীরা জঙ্গি সংগঠন লস্কর-ই-জাংভি-র  আল আলমি অংশের সঙ্গে সম্পৃক্ত।

 এনএপি-র বৈঠকে নওয়াজ কোয়েটাকে নিরাপদ করতে না পারার জন্য স্থানীয় কর্তৃপক্ষেরও ব্যাপক সমালোচনা করেন বলে সূত্রের বরাত দিয়ে পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম ডন জানিয়েছে। নওয়াজ নিরাপত্তা কর্তৃপক্ষকে কারণ দর্শাতে বলেছেন, একটা বড় সময় পার হওয়ার পরও কেন কোয়েটাকে এখনও নিরাপদ করা যায়নি।

গোয়েন্দা কর্তৃপক্ষ বৈঠকে জানিয়েছেন, পুলিশ প্রশিক্ষণ কলেজ নিরাপত্তার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে নিরাপত্তা কর্মীদের ওপর যে কোনও সময় হামলা চালানো হতে পারে বলেও সতর্ক করা হয়।

নিরাপত্তা জোরদার করার জন্য ফেডারেল সরকার প্রাদেশিক কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় আর্থিক বরাদ্দও দিয়েছে বলে জানানো হয় ওই বৈঠকে।

বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন – বালুচিস্তানের মুখ্যমন্ত্রী সানাউল্লাহ জেহরি, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) নাসের জানজুয়া, দক্ষিণাঞ্চলীয় কমান্ডের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল আমির রিয়াজ, প্রাদেশিক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সরফরাজ আহমেদ বুগতি প্রমুখ।