• আজ ২৯শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

জবি শিক্ষার্থীকে মারধরের প্রতিবাদে বাস ভাংচুর

৪:২৪ অপরাহ্ন | বুধবার, অক্টোবর ২৬, ২০১৬ Breaking News, শিক্ষাঙ্গন

মো: আশিক, জবি প্রতিনিধি:

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) নবম ব্যাচের মেহেদী নামের এক শিক্ষার্থীকে মারধর ও সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী হাফ ভাড়া না নেওয়ায় বিহঙ্গ পরিবহনের ৭-৮টি বাস ভাংচুর করেছে শিক্ষার্থীরা। বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় একাধিকবার ভাংচুর চালায় শিক্ষার্থীরা।

বাহাদুর শাহ পার্কের সামনে সদরঘাট থেকে ছেড়ে যাওয়া বিভিন্ন রুটের বাসগুলো সারিবদ্ধভাবে দাঁড়ানো ছিল। মাঝে মাঝে কিছু শিক্ষার্থী এসে শুধু বিহঙ্গ পরিবহনের বাসগুলো ভাংচুর করে ও দুটি বাস ক্যাম্পাসে নিয়ে আটকে রাখে। পরবর্তীতে অবশ্য বাসগুলো ছেড়ে দেওয়া হয়। এ সময় সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

জানা যায়, গতকাল ৮টার দিকে মেহেদি নামের এক শিক্ষার্থী মিরপুর থেকে সদরঘাটে ফেরার পথে বিহঙ্গ পরিবহনের সুপার-ভাইজারের সাথে অর্ধেক ভাড়া দেওয়া নিয়ে বাগবিতার সৃষ্টি হয়। এতে এক পর্যায়ে গাড়ির হেলপার গাড়ির দরজা থেকে ‘জগন্নাথ কলেজের তোরা কি হয়েছিস’ বলে ছুটে আসে এবং মেহেদিকে বেধরক মারতে থাকে। এ সময় মেহেদি মাটিতে পরে গেলে বংশাল চৌরাস্তার মোড়ে গাড়ি রেখে পালিয়ে যায় চালক, হেলপার এবং সুপারভাইজার।

bihongo-jobi

এক পর্যায়ে খবর পেয়ে বংশলা থানা পুলিশ ঘটনা স্থলে যায় এবং সেখান থেকে গাড়িটি রেকারের সহায়তায় বংশাল থানায় নিয়ে আসে। জব্দকৃত গাড়ীর নম্বর-ঢাকা মেট্রো-জ: ১১-৩১৮৭।

আহত শিক্ষার্থী হলো জবি সমাজকর্ম বিভাগের ৯ম ব্যাচের মেহেদি হাসান।

এদিকে, আহত মেহেদিকে মিডফোর্ট হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে ঢাকা মেডিকেলে স্থানান্তের করার নির্দেশ দেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ঢাকা মেডিকেলে মেহেদির চিকৎসা চলছে।তবে মেহেদী মাথায় বেশ আঘাত পাওয়ায় জঠিলতা বেশি দেখা দিয়েছে।

এ বিষয়ে বংশাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নুরে আলম সিদ্দিকি সাংবাদিকদের বলেন, ‘পুরো বিষয়টা আমি এখনো জানি না। তবে শুনেছি জগন্নাথের শিক্ষার্থীদের সাথে হেলাপার ড্রাইভরের হাতাহাতি হয়েছে। গাড়ি এবং ড্রাইভার থানায় আটক আছে।