সংবাদ শিরোনাম

ছাত্রলীগ নেতার প্যান্ট চুরির ভিডিও ভাইরাল!পাটগ্রামে ইউএনও’র উপর হামলা, আটক ৬আগের সব রেকর্ড ভেঙ্গে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু ৮৩ জনেরশফী হত্যা মামলা: মামুনুল-বাবুনগরীসহ ৪৩ জনকে অভিযুক্ত করে প্রতিবেদনখালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় সারাদেশে দোয়া কর্মসূচিরোহিঙ্গা শিবিরে ফের অগ্নিকান্ডসালথায় তান্ডব: এসিল্যান্ডের বিরুদ্ধে উঠা অভিযোগের সত্যতা মিলেনিশাহজাদপুরে কৃষকদের মাঝে হারভেস্টার মেশিন বিতরণচাঁদপুরে গণমাধ্যম সপ্তাহের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি পেতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপিশ্রমিকদের যাতায়াতের ব্যবস্থা না করলে আইনি পদক্ষেপ : শ্রম প্রতিমন্ত্রী

  • আজ ৩০শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

দুই ছেলেকে খুনের দায় স্বীকার করেছে তাদের বাবা: সিলেট পুলিশ

৯:২৯ পূর্বাহ্ন | বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২৭, ২০১৬ অপরাধ, আলোচিত, চিত্র বিচিত্র, দেশের খবর, সিলেট, স্পট লাইট

সিলেট প্রতিনিধি,সময়ের কণ্ঠস্বরঃ  সিলেটের ওসমানীনগরের চিন্তামণি গ্রামে ডোবা থেকে দুই ছেলের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় বাবা ছাতির আলীকে আটক করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে ওই গ্রাম থেকে তাঁকে আটক করে পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি দুই ছেলেকে হত্যার দায় স্বীকার করেছেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

চিন্তামণি গ্রামের বাসিন্দা নুরবি বেগমের দুই ছেলে আবদুল মোমিন (১১) ও রুজেল আহমদের (৭)মুমিন চিন্তামণি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় ও রুজেল দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র।তাদের লাশ গত সোমবার রাতে গ্রামের একটি ডোবা থেকে উদ্ধার করা হয়। ঘটনার পর থেকে দুই ছেলের বাবা ছাতির আলীর খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না।

khun

গতকাল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সিলেট পুলিশ সুপার কার্যালয়ে একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলন শেষে ওসমানীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল আউয়াল চৌধুরী বলেন, ছাতির আলী মানসিকভাবে কিছুটা অসংলগ্ন বলে তাঁর পরিবারের সদস্য ও প্রতিবেশীরা দাবি করেছেন। আটক ছাতির আলী পুলিশকে বলেছেন, তিনি রাগের মাথায় এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছেন। তবে কী কারণে রাগ, এ ব্যাপারে তিনি বিস্তারিত কিছু বলেননি। এসব জানতে তাঁকে রিমান্ডে নেওয়া হবে বলে ওসি জানান।

সুরতহাল প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, দুই শিশুর শরীরে জখমের চিহ্ন পাওয়া গেছে। শরীরের বিভিন্ন স্থান রক্তাক্ত ছিল। এতে ধারণা করা হয়, পরিকল্পিতভাবে দুই শিশুকে হত্যা করে লাশ ডোবায় ফেলে রাখা হয়। পুলিশকে দুই শিশুর বাবা বলেছেন যে তিনি তাদের সুপারি গাছের খোল দিয়ে পিটিয়ে ও মাছ ধরার ধারালো সরঞ্জাম সুলপি দিয়ে খুঁচিয়ে হত্যা করেছেন।

নিহত দুই শিশুর পরিবার ও এলাকাবাসীর ভাষ্য, সোমবার দুপুরের দিকে দুই ছেলে মোমিন ও রুজেলকে নিয়ে মাছ ধরতে যান ছাতির আলী। দুপুরের পর বাড়িতে এক দফা মাছ দিয়ে যায় মোমিন। সে তখন মাকে জানায়, তারা বাবার সঙ্গেই আছে। সন্ধ্যার পরও তারা বাড়ি না ফেরায় খোঁজাখুঁজি করতে গিয়ে রাত সাড়ে আটটার দিকে গ্রামের ডোবায় মেলে মোমিন-রুজেলের লাশ।