• আজ সোমবার। গ্রীষ্মকাল, ৬ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ১৯শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। সন্ধ্যা ৬:৩৮মিঃ

ভোলায় ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগে মামলা

১১:৪৬ পূর্বাহ্ন | বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২৭, ২০১৬ দেশের খবর, বরিশাল

এস আই মুকুল, ভোলা প্রতিনিধি: ভোলার সদর উপজেলার ভেলুমিয়া ইউনিয়নের এক ডেকোরেটের ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে প্রায় অর্ধলক্ষ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আজ বৃহস্পতিবার ভিকটিমের পরিবার ভোলা সদর থানায় একটি ছিনতাই মামলা করেন।

mamla

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, রবিবার দুপুর ১২টার সময় ডেকোরেটর ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলী (রানা) মোটর সাইকেল যোগে বাড়ীতে যাওয়ার সময় চর চন্দ্রপ্রসাদের ৪ নং ওয়ার্ডের আবু ডাক্তার বাড়ির সামনে আগে থেকে ত্তৎ পেতে থাকা সন্ত্রাসী ফোরকান, জলিল, রাশেদ, রিয়াজ ও ফয়সাল রানার মোটর সাইকেল গতিরোধ করে লাটিসোটা দিয়ে আর্তকিত হামলা করে। এক পর্যায়ে ব্যবসায়ী রানা মাটিতে লুটিয়ে পড়লে সন্ত্রাসীরা তার পকেটে থাকা ৫০ হাজার টাকা ছিনতাই করে নিয়ে যায়। পড়ে স্থানীয়রা রক্তাক্ত রানাকে আশংকাজনক অবস্থায় ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

অভিযুক্ত ফোরকান ঘটনা সাজানো ও মিথ্যা বলে তিনি দাবি করেন। তিনি আরো বলেন, ঘটনার দিন আমি ক্রিকেট খেলা দেখছিলাম, কে বা কাহারা রানাকে পিটিয়েছে আমি জানিনা। আমাকে ফাঁসানোর জন্য আমার বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে হয়রানি করছে।

আহত রানার পিতা মোঃ আব্দুর রহিমের সাথে আলাপ করলে তিনি কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, কিছু দিন আগেও এই সন্ত্রাসীরা আমার ছেলেকে ভোলায় একা পেয়ে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। সেদিনও পথচারীরা আশংকাজনক অবস্থায় আমার ছেলেকে হাসপাতালে ভর্তি করেন। ১৫ দিন চিকিৎসা নিয়ে সে বাড়ী আসে। আবারও একই সন্ত্রাসীরাই আমার ছেলেকে মাথায় সাইকেলের চেইন দিয়া পিটিয়ে আহত করে। পরে ওর পকেটে থাকা দোকানের ৫০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। আমি প্রশাসনের কাছে এই সন্ত্রীদের উপযুক্ত বিচার কামনা করছি।

ভেলুমিয়া ইউনিয়নের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম মাস্টার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনার দিন আমি এবং ভিকটিমের বাবা রহিম ঢাকাতে ছিলাম। বিচ্ছিন্ন কিছু সন্ত্রাসীরা এই ঘটনা ঘটিয়েছে। যেহেতু ঘটনাটি নিয়ে মামলা হয়েছে তাই আমি চেয়ারম্যান হিসেবে প্রশাসনের কাছে বলবো, সন্ত্রাসীরা যেই হোউক না কেনো এই ঘটনার যেন উপযুক্ত বিচার করেন। যাতে আর কোন সন্ত্রাসী এই ধরনের ঘটনা ঘটাতে সাহস না পায়।

ভোলা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মীর খায়রুল কবীর মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, ঘটনাটি নিয়ে ডেকোরেটর ব্যবসায়ীর পিতা মোঃ আব্দুর রহিম এজাহার করেন। আমরা তার এজাহারটি নতিভুক্ত করে সন্ত্রাসীদের আটক করার চেষ্টা করছি। যার মামলা নং ৩০/৩৯৮।