সংবাদ শিরোনাম

‘তালা ভেঙ্গে মসজিদে তারাবি পড়ার চেষ্টা্’‌, পুলিশের বাধায় সংঘর্ষে মুসল্লিরা‘লঘু পাপে গুরু দণ্ড’; তিনটি মুরগি চুরির দায়ে দেড়লাখ টাকার জরিমানা চার তরুণের!কুড়িগ্রামের সবগুলো নদ-নদী শুকিয়ে গেছে, হুমকীতে জীব-বৈচিত্রহেফাজতের আরেক কেন্দ্রীয় নেতা গ্রেপ্তারমধুখালীতে বান্ধবীর সহায়তায় অচেতন করে দফায় দফায় ধর্ষণের শিকার নারী!বাসস্ট্যান্ডে প্রকাশ্যে চায়ের স্টলে ইতালি প্রবাসীকে কুপিয়ে হত্যাগোবিন্দগঞ্জে মর্মান্তিক সড়ক দূঘর্টনায় স্কুল শিক্ষকসহ একই পরিবারের ৪ জন নিহতময়মনসিংহে ব্রহ্মপুত্র নদের পানিতে ডুবে মারা গেলো ৩ শিশুমুহুর্তেই ভয়াবহ আগুন! স্কুলেই পুড়ে মরলো ২০ শিশু শিক্ষার্থী!সাবেক আইনমন্ত্রী আব্দুল মতিন খসরু আর নেই

  • আজ ২রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

কর্মীদের বোনাস ৪০০ ফ্ল্যাট, ১২৬০ গাড়ি!

৫:৪৭ অপরাহ্ন | শুক্রবার, অক্টোবর ২৮, ২০১৬ আন্তর্জাতিক

news_picture_38245_car1


সময়ের কণ্ঠস্বরঃ

শ্রমের মর্ম ইনিই বোঝেন। এই ব্যবসায়ী তাঁর কর্মচারীদের কাছে ভগবান। কারন দেওয়ালির উপহার হিসাবে তিনি কর্মচারীদের দিয়েছেন ৪০০টি ফ্ল্যাট এবং ১২৬০টি গাড়ি। তা কর্মচারীরা এনাকে ভগবানের আসনে বসাবেন না তো কাকে বসাবেন ? পাশাপাশি বাবার এই বিপুল রোজগারের টাকায় মৌজ করবার সুযোগ পায়নি তাঁর পুত্র। উল্টে টাকার মর্যাদা বোঝাতে ছেলেকে খুঁজতে হয়েছে চাকরি। এখন প্রশ্ন হল এই ভগবানজাত মানুষটি কে? ইনি হলেন সুরাতের হীরের ব্যবসায়ী সাবজি ঢোলাকিয়া।

চলতি বছরে ঢোলাকিয়ার কোম্পানি হরেকৃষ্ণ এক্সপোর্ট কর্মীদের বোনাসের জন্য ব্যয় করেছে ৫১কোটি টাকা। কোম্পানির সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে কোম্পানির কর্মীদের দেওয়া হয়েছে ওই বোনাসের টাকা। গত মঙ্গলবার কর্মীদের নিয়ে একটি ঘরোয়া সভা আয়োজন কর্মীদের এই বিশাল অঙ্কের বোনাসের কথা ঘোষণা করেন ঢোলাকিয়া। কর্মীদের দেওয়া হয় ৪০০’টি ফ্ল্যাট ও ১,২৬০ টি গাড়ি। পাশাপাশি ১,৭১৬ জন কর্মীকে বেস্ট পারফর্মার হিসেবে বেছে দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত হরেকৃষ্ণ এক্সপোর্ট ২০১১ থেকেই এই বিশাল বোনাস দেওয়ার রীতি চালু করেছে। গতবছর কর্মীদের দেওয়া হয়েছিল ৪৯১ টি গাড়ি ও ২০০টি ফ্ল্যাট। তার আগের বছর কর্মীদের দক্ষতার উত্সাহ ভাতা দিতে কোম্পানির ব্যয় হয়েছিল ৫০ কোটি টাকা। আমরেলি জেলার দুধালা গ্রামের ঢোলাকিয়া তাঁর কাকার কাছ থেকে ধার করে এই হীরের ব্যবসা শুরু করেছিলেন। তারপর নিজের চেষ্টাতেই সেই ব্যবসার উন্নতি করেন তিনি। মাথার ঘাম পায়ে ফেলে রোজগারের মর্ম যাতে ছেলেও বুঝতে পারে সেজন্যই ছেলেকে কেরলের কোচিতে পাঠিয়েছিলেন ঢোলাকিয়া।