সংবাদ শিরোনাম

খালেদা জিয়ার সিটি স্ক্যানের রিপোর্ট নিয়ে যা বললেন চিকিৎসক২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিলেন কাদের মির্জাটাঙ্গাইলে ভন্ড পুরুষ কবিরাজ নারী সেজে যুবককে বিয়ে! অতঃপর…ব্যক্তিগত কাজে সরকারি গাড়ি নিয়ে স্বাস্থ্য কর্মকর্তার ঢাকা ভ্রমণ!শেরপুরের সেই শিশু রোকনের পরিবারের পাশে ইউএনও!কক্সবাজারে অস্ত্রসহ ডাকাতি মামলার আসামি গ্রেফতারকক্সবাজারে অনুপ্রবেশকারীর পক্ষ না নেয়ায়, আ’লীগ সভাপতিকে অব্যাহতি!শাহজাদপুরে ট্যাংকলরি সিএনজি’র মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ১রমজান মাসে আলেমদের হয়রানি মেনে নেয়া যায় না: নুরুল ইসলাম জিহাদীখালেদা জিয়াকে পাকিস্তান-জাপান দূতের চিঠি

  • আজ ৩রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

আমতলীতে নির্মাণাধীন পরীক্ষা কেন্দ্র ধ্বসে আহত-১

৩:০৬ অপরাহ্ন | শনিবার, অক্টোবর ২৯, ২০১৬ দেশের খবর, বরিশাল

এম এ সাইদ খোকন, বরগুনা প্রতিনিধি: বরগুনার আমতলী উপজেলার গাজীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের জেএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রের নির্মাণাধীন সম্প্রসারিত ভবনের একটি অংশ শুক্রবার বিকালে ধ্বসে পড়ে। এতে নির্মাণ শ্রমিক নুরু উদ্দিন (৪৫) আহত হন। আহতকে স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

jace

জানা গেছে, উপজেলার গাজীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে আসন্ন জেএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র। এ বছর এ কেন্দ্রে ৫৪৫ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করবেন। ওই বিদ্যালয় ভবনে স্থান সংকুলন না হওয়ায় নিজস্ব অর্থায়নে ক্যাম্পাসে সাইড ওয়াল কাম টিনসেট ভবনের নির্মাণ কাজ চলছে। শুক্রবার বিকালে শ্রমিকরা কাজ করার সময়ে ভবনের সামনের সাইড ওয়ালের একটি অংশ ধ্বসে পরে। এতে নির্মাণ শ্রমক নুরু উদ্দিন আহত হন। আহতকে স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়। স্থানীয়দের অভিযোগ তড়িগড়ি ও নিম্নমানের কাজ করায় ভবনটি ধ্বসে পড়েছে।

তারা আরো জানান, পরীক্ষাকালীন সময়ে এ ঘটনা ঘটলে অনেক ক্ষতি হতো। নির্মাণ শ্রমিক আবুল হোসেন জানান, ১৫ হাত প্রস্থ ও ৪০ হাত দৈর্ঘ্যের ভবনের উপরে কাঠের কাজ করার সময় সামনের সাইড ওয়াল ধ্বসে পড়ে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহজাহান শিকদার বলেন, নিম্নমানের কাজ হয়নি। এটি একটি দুর্ঘটনা। আল্লাহ রক্ষা করছে পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে ঘটেনি। কেন্দ্রে পরীক্ষার্থীদের স্থান সংকুলনে কোনো সমস্যা হবে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন কোনো সমস্যা হবে না। আমতলী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার গোলাম মোস্তফা বলেন খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন।

আমতলীতে এনটিআরসির চেয়ারম্যানের আদেশ উপেক্ষিত

বরগুনার আমতলী উপজেলার বেসরকারী শিক্ষা প্রতিতষ্ঠানে এনটিআরসি’র নির্বাচিত শিক্ষকরা এখনো নিয়োগ পত্র পায়নি। প্রতিষ্ঠান প্রধানরা ব্যবস্থাপনা কমিটির দোহাই দিয়ে নিয়োগ দিতে গরিমসি করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের নীতিমালা অনুসারে বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে নির্বাচিত করেছে এনটিআরসি। স্ব স্ব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা কমিটি নিয়োগপত্র প্রদান করবেন। ওই নীতিমালা অনুসারে এ বছর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চাহিদা অনুসারে শূন্যপদে গত ৯ অক্টোবর এনটিআরসি’র চেয়ারম্যান স্বাক্ষরিত নিবন্ধিত উর্ত্তীন প্রার্থীদের ফল প্রকাশ করেন। অন-লাইনে উর্ত্তীন প্রার্থীদের একটি নির্দেশনা পত্র পাঠিয়েছেন।

ওই নির্দেশনায় উল্লেখ আছে “ফলাফল প্রকাশের দিন থেকে এক মাসের মধ্যে তালিকাভুক্ত স্ব স্ব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নির্বাচিতদের নিয়োগ পত্র প্রদান ও যোগদান পত্র গ্রহন করবেন”। চেয়াম্যানের আদেশের ১৯ দিন পেরিয়ে গেলেও এখনো আমতলীতে প্রার্থীরা নিয়োগ পত্র পায়নি। আমতলী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার গোলাম মোস্তফা জানান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানরা নিয়োগ পত্র দিতে বাধ্য। এ নিয়ে অভিযোগ হলে ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মুশফিকুর রহমান জানান খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।