সংবাদ শিরোনাম

খালেদা জিয়ার সিটি স্ক্যানের রিপোর্ট নিয়ে যা বললেন চিকিৎসক২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিলেন কাদের মির্জাটাঙ্গাইলে ভন্ড পুরুষ কবিরাজ নারী সেজে যুবককে বিয়ে! অতঃপর…ব্যক্তিগত কাজে সরকারি গাড়ি নিয়ে স্বাস্থ্য কর্মকর্তার ঢাকা ভ্রমণ!শেরপুরের সেই শিশু রোকনের পরিবারের পাশে ইউএনও!কক্সবাজারে অস্ত্রসহ ডাকাতি মামলার আসামি গ্রেফতারকক্সবাজারে অনুপ্রবেশকারীর পক্ষ না নেয়ায়, আ’লীগ সভাপতিকে অব্যাহতি!শাহজাদপুরে ট্যাংকলরি সিএনজি’র মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ১রমজান মাসে আলেমদের হয়রানি মেনে নেয়া যায় না: নুরুল ইসলাম জিহাদীখালেদা জিয়াকে পাকিস্তান-জাপান দূতের চিঠি

  • আজ ৩রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

‘নির্বাচনের কোনো দরকার নেই, আমাকে জয়ী ঘোষণা করা হোক’

৫:১৭ অপরাহ্ন | শনিবার, অক্টোবর ২৯, ২০১৬ আন্তর্জাতিক, স্পট লাইট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন আগামী ৮ নভেম্বর। তবে রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, নির্বাচনের কোনো দরকার নেই। নির্বাচন বন্ধ করে আমাকে জয়ী ঘোষণা করা হোক।

donald-trump-220160313125753গত বৃহস্পতিবার ওহাইওতে এক নির্বাচনী সমাবেশে ট্রাম্প এই দাবি করেন। যদিও রিপাবলিকান অধ্যুষিত কিছু রাজ্যের আগাম ভোটে ডেমোক্র্যাট দলের প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন এগিয়ে আছেন। এদিকে ট্রাম্পের দলেরও অনেকে মনে করছেন, নির্বাচনে রাশিয়া হস্তক্ষেপ করছে। অন্যদিকে একটি সূত্র জানিয়েছে, হিলারি প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী হতে পারেন জো বাইডেন।

মার্কিন সংবাদ মাধ্যম সিএনএন গতকাল শুক্রবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, হোয়াইট হাউসে ট্রাম্পের যাওয়ার পথ ক্রমেই সংকীর্ণ হয়ে পড়ছে। তারপরও ট্রাম্প ওহাইওর টলেডোতে সমাবেশে বলেন, আমার কথা একবার চিন্তা করে দেখুন। আমি সঠিক পথেই আছি। আর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হিলারির নীতি তো খুবই খারাপ। তাই নির্বাচন বন্ধ করে আমাকে জয়ী ঘোষণা করা উচিত। ট্রাম্প এরই মধ্যে অভিযোগ করেছেন, নির্বাচনে কারচুপি হতে পারে। তিনি বৃহস্পতিবারও সমর্থকদের উদ্দেশে বলেন, আমাদের জয় ছিনিয়ে নেওয়া হতে পারে। তিনি এই সময় জেব বুশকে নিয়েও ঠাট্রা করেন।

আগাম ভোটে এগিয়ে হিলারি

সিএনএন জানায়, ৩৭ টি রাজ্যে চলা আগাম ভোটে ১ কোটি ২৬ লাখের বেশিভোট পড়েছে। এসব ভোটে এখন পর্যন্ত হিলারি এগিয়ে আছেন। এমনকি যেসব রাজ্যে ডেমোক্র্যাটরা সমস্যায় পড়বেন বলে ধারণা করা হয়েছিল সেগুলোতেও এগিয়ে আছেন। ফ্লোরিডা এবং নাভাদায় রিপাবলিকানরা সাধারণত সুবিধানজনক অবস্থায় থাকেন। কিন্তু এবার সেখানে ডেমোক্র্যাটরা এগিয়ে আছেন। ২০১২ সালের নির্বাচনের তুলনায় দলটির অবস্থান এখন ভাল। আগাম ভোট নিয়ে সিএনএনের এক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, কলোরাডো এবং অ্যারিজোনায়ও ২০১২ সালের তুলনায় ডেমোক্র্যাটদের অবস্থান তুলনামূলক ভাল। আইওয়া এবং নর্থ ক্যারোলিনায় রিপাবলিকানরা সুবিধাজনক অবস্থানে আছে। তবে এই অবস্থান গত নির্বাচনেও ছিল। কারণ এসব রাজ্যে শ্বেতাঙ্গ ভোটারের সংখ্যা বেশি। অ্যারিজোনায় ৬ লাখ ৮২ হাজার ভোট পড়েছে।

এর মধ্যে ১১ হাজার ৫০০ ভোটে এগিয়ে আছে রিপাবলিকান দল। এই হার গত নির্বাচনের মতোই। কলোরাডোতে ৪ লাখ ২২ হাজার ৬৭৭টি ভোট পড়েছে। এর বেশিরভাগই হিলারির পক্ষে বলে ধারনা করা হচ্ছে। গত সপ্তাহের চেয়ে এই সপ্তাহে হিলারির পক্ষে ভোট দ্বিগুনের চেয়েও বেশি বেড়েছে। অথচ গত নির্বাচনে রিপাবলিকান দল এখানে এগিয়ে ছিল। ফ্লোরিডায়ও রিপাবলিকানরা গত নির্বাচনে এগিয়ে ছিল। কিন্তু প্রতিদিনই সেই হার কমছে। ভোট চলে যাচ্ছে ডেমোক্র্যাটদের পক্ষে। রিপাবলিকান দল মাত্র ৬ হাজার ভোটে এগিয়ে আছে। ২০০৮ সালে ৭৩ হাজার ভোটে এগিয়ে ছিল। ডেমোক্র্যাটদের জন্য সুখবর হচ্ছে, হিস্পানিক ভোটারদের সংখ্যা বেড়েছে।

আগাম ভোটে ১৩ শতাংশই হিস্পানিক যেখানে ২০০৮ সালে ছিল ৮ শতাংশ। জর্জিয়ায় ৮ লাখ ২৭ হাজার ভোট পড়েছে যা গতবারের চেয়ে ৩৯ শতাংশ বেশি। তবে এই ভোটে কে বেশি লাভবান তা বিশ্লেষণ করা সম্ভব হয়নি বলে সিএনএন জানিয়েছে। এছাড়া আইওয়া, নেভাদা, নর্থ ক্যারোলিনা এবং ওহাইওতে আগাম ভোটের সংখ্যা আগের চেয়ে অনেক বেড়েছে। এসব রাজ্যে ডেমোক্র্যাট দল এগিয়ে আছে।

ডেমোক্র্যাট দলের নির্বাচনী প্রচারণা কমিটির একটি সূত্র জানিয়েছে, হিলারি প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে বর্তমানে ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী করা হতে পারে। তবে এই তালিকায় আরো কয়েকজন আছেন।