• আজ ২৯শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

‘চিহ্নিত ১৯৫ জন পাকিস্তানী যুদ্ধাপরাধীরও বিচার করা হবে’

৬:২৩ অপরাহ্ন | সোমবার, ডিসেম্বর ২৬, ২০১৬ জাতীয়

স্টাফ রিপোর্টার, সময়ের কণ্ঠস্বর: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, চিহ্নিত ১৯৫ জন পাকিস্তানী যুদ্ধাপরাধীর বিচার করা হবে। এজন্য প্রয়োজনে আর্ন্তজাতিক আদালতে যাওয়া হবে।

এ সময়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশী মানবতাবিরোধীদের বিচার হলেও পাকিস্তানী যুদ্ধাপরাধীদের বিচার এখনও সম্ভব হয়নি। তবে তাদের বিচারও করা হবে। তিনি আরও বলেন, দীর্ঘদিন স্বাধীনতা বিরোধীরা ক্ষমতায় থাকায় জঙ্গিবাদ পৃষ্ঠপোষকতা পেয়েছে। তবে বর্তমান সরকার জঙ্গিবাদ নির্মূল করে সকল ধর্মের মানুষের সমঅধিকার নিশ্চিত করে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গঠনে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।

সোমবার (২৬ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় রাজধানীর মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে বাংলাদেশ গণ আজাদী লীগ আয়োজিত মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মঞ্চ উদ্বোধন কালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

গণ আজাদী লীগ, ওয়ান্ডাস মিডিয়া, গণ আজাদী শিল্প গোষ্ঠী যৌথভাবে এ বিজয় উৎসবের আয়োজন করেছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন গণ আজাদী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট এস কে সিকদার।

mojammel-hoqueউদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মহান ভাষা আন্দোলনের জীবন্ত কিংবদন্তী ভাষা সৈনিক মুজিবুর রহমানের হাতে আজীবন সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গণ আজাদী লীগের সভাপতি এডভোকেট এস. কে শিকদার।

তিনি বলেন, দীর্ঘ রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে এদেশের বীর যোদ্ধারা স্বাধীনতা এনেছেন। বাংলাদেশ একটি অসাম্প্রদায়িক দেশ। একটি চক্র না বুঝে সাম্প্রদায়িকতার নামে নানা অপচেস্টা চালাচ্ছে। তাদের রুখে দিতে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারসহ মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের সব শক্তিকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশ কোনো অপশক্তির কাছে মাথানত করেনি, করবেও না।

এসময় ভাষা সৈনিক মুজিবুর রহমান বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা এক দিনে আসেনি, এজন্য দীর্ঘ লড়াই করতে হয়েছে। মায়ের ভাষা রক্ষাও আমাদের লড়াই করতে। দীঘ লড়াই সংগ্রামের মাধ্যমে অর্জিত বাংলাদেশ কোন ষড়যন্ত্রের কাছে হারতে পারেনি। সব ষড়যন্ত্রের রুখে বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় সবাইকে কাজ করতে হবে।