• আজ সোমবার। গ্রীষ্মকাল, ৬ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ১৯শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। সকাল ৯:১৩মিঃ

আসন্ন ২৮ ডিসেম্বর রাজশাহী জেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রস্তুত দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী

৯:২৬ পূর্বাহ্ন | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ২৭, ২০১৬ Uncategorized

ওবায়দুল ইসলাম রবি, রাজশাহী প্রতিনিধি. আগামী ২৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে জেলা পরিষদ নির্বাচন। রাজশাহী জেলা পরিষদের নির্বাচন প্রচারণা শেষ হয়েছে প্রার্থীদের। বিশেষ করে চেয়ারম্যান পদে দুই প্রভাবশালী প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা মাঠে নেমেছেন আঁটসাট বেধেই। কেউ প্রকাশ্যে আবার কেউ গোপনে প্রচার চালাচ্ছেন দুই প্রার্থীদের পক্ষেই। এতে টেনশনে রয়েছেন রাজশাহী আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা।

জেলা পরিষদের প্রথম এই নির্বাচনে রাজশাহীতে চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন দুই প্রার্থী। এদের একজন বর্তমান প্রশাসক মাহবুব জামান ভুলু। অপরজন বিশিষ্ঠ ব্যবসায়ী ও চেম্বারের সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ আলী সরকার। দুইজনই আওয়ামী লীগের প্রবীন নেতা। তবে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন মাহবুব জামান ভুলু। কিন্তু দলের সিদ্ধান্তের বাহিরে গিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন মোহাম্মদ আলী সরকার। ভুলু লড়ছেন ‘তালগাছ’ আর মোহাম্মদ আলী সরকার ‘আনারস’ প্রতীক নিয়ে। দলের একাধিক সূত্রমতে, আওয়ামী লীগের জাতীয় কমিটির সদস্য মাহবুব জামান ভুলু দলীয় মনোনয়ন পাওয়ায় তার পক্ষে প্রচার চালাচ্ছেন রাজশাহী আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা। সূত্রমতে, নির্বাচনী প্রচারণা চালাতে গিয়ে কাঁদা ছোড়া ছোড়িতেও পিছিয়ে নেয় আওয়ামী লীগের প্রবীন এই দুই নেতা ও তাদের সমর্থকরা। একে অপরের বিরুদ্ধে অভিযোগের পাহাড় গড়ে তুলেছেন ভোটারদের কাছে। নানান কৌশলে ভোটারদের আকৃষ্ট করার চেষ্টা করেছেন তারা। ফলে দুই প্রার্থীর মধ্যে শক্ত লড়াইয়ের আভাস দেখছেন অনেকেই।

এদিকে, রোববার নির্বাচনের প্রচার হিসেবে চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহাবুব জামান ভুলু তানোর ও চারঘাটের বিভিন্ন ইউনিয়ন ও পৌরসভায় ভোটারদের সঙ্গে মতবিনিময় করেছেন। এসময় তার সঙ্গে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির অন্যতম সদস্য ও মহানগরের সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। বিকেলে চারঘাট পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের হলরুমে উপজেলার ৬টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে মতবিনিময় করেন খায়রুজ্জামান লিটন। এসময় তিনি বলেন, বর্তমান সরকার সমবণ্টনের মাধ্যমে শহর থেকে গ্রামাঞ্চলে উন্নয়ন ছড়িয়ে দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর অতি আস্থাভাজন বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহবুব জামান ভুলুকে দলীয় মনোনয়ন দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর সম্মান রাখতে মাহবুব জামান ভুলুর তালগাছ প্রতীকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করার আহবান জানান লিটন। তিনি বলেন, উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে ভুলুর বিকল্প নেই। রাজশাহী জেলাকে আধুনিক, ডিজিটাল ও জনবান্ধব হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে ভুলুকে বিজয়ী করতে হবে। মনে রাখতে হবে আপনাদের একটি ভোটও যেন বিফলে না যায়।

district-electionচারঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ফখরুল ইসলামের সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, চারঘাট পৌরসভার মেয়র জাকিরুল ইসলাম বিকুল, কাঁকনহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল মজিদ, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট লায়েব উদ্দিন লাভলু প্রমূখ। এর পর বিকেলে এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন মতবিনিময় করেন তানোরে। এসময় তিনি আওয়ামী লীগের সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থীর বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহবুব জ্জামান ভুলুর তালগাছ প্রতীকের পক্ষে প্রচার চালান। তানোর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মুমালা পৌর মেয়র গোলাম রাব্বানীর সভাপতিত্বে মতবিনিময়কালে উপস্থিত ছিলেন, চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহবুব জামান ভুলু, মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি নিঘাত পারভীন, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লায়েব উদ্দিন লাভলু।

এদিকে, চেয়ারম্যান প্রার্থী মোহাম্মদ আলী সরকার রোববার রাজশাহী সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর ও পবা উপজেলার কাটাখালি পৌরসভার জনপ্রতিনিধিদের কাছে নিজের আনারস প্রতীকে ভোট চেয়েছেন।এসময় তিনি বলেন, আমি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান-মেম্বারদের সঙ্গে কথা বলেছি। অধিকাংশ জনপ্রতিনিধিই জেলা পরিষদ চেনেন না। যে দু’একজন জনপ্রতিনিধি জেলা পরিষদে দু’একবার এসেছেন, তাদের অভিজ্ঞতা ভালো নয়। আপনারা শহরের ভেতরে থাকায় হয়তো জেলা পরিষদ চেনেন। দু’একবার গেছেনও হয়তো। সেখানে আপনাদের অভিজ্ঞতা কেমন, তা বিশ্লেষণ করবেন। মোহাম্মদ আলী সরকার রোববার সকালেই কাটাখালি পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলীসহ সকল কাউন্সিলরদের সঙ্গে বৈঠক করেন। এরপর তিনি রাসিকের কাউন্সিলরদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তাদের সঙ্গে সাক্ষাত করেন।