• আজ ৪ঠা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

মিয়ানমার নৌবাহিনীর গুলিতে ৬ বাংলাদেশি গুলিবিদ্ধ

৯:৫২ পূর্বাহ্ন | বুধবার, ডিসেম্বর ২৮, ২০১৬ Breaking News, চট্টগ্রাম, দেশের খবর, স্পট লাইট

কক্সবাজার প্রতিনিধি- বঙ্গোপসাগরে মাছ শিকার রত বাংলাদেশী একটি মাছ ধরার ট্রলারে মিয়ানমারের নৌবাহিনী গুলিবর্ষণ করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এতে ৬ জন জেলে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৭ ডিসেম্বর) দুপুরে সেন্টমার্টিনের ছেড়া দ্বীপের পূর্বে সাগরে মাছ ধরার সময় এ ঘটনা ঘটে। তাঁদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে।

cox-bazar20161227192636গুলিবিদ্ধ জেলেরা হলেন, কক্সবাজারের নুনিয়ার ছড়ার বাসিন্দা উসমান গণি (৪৫), মো. ইলিয়াছ (৪৩) একই গ্রামের মো. রফিকুল ইসলাম (৩৪), নুর আহমদ (৪০) ও মহেশখালীর সাইফুল ইসলাম (৪৪), নুর কায়েছ (৪২)।

কোস্টগার্ড ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, গত ৪ দিন আগে কক্সবাজারের বাসিন্দা মো. রহিম সওদাগরের মালিকাধীন মাছ ধরার ট্রলার নিয়ে ১৪ জন মাঝিমাল্লা বঙ্গোপসাগরে মাছ শিকারে বের হন। তারা মঙ্গলবার সেন্টমার্টিনের ছেড়া দ্বীপের পূর্বে মাছ ধরতে সাগরে জাল ফেলেন। এসময় হঠাৎ করেই মিয়ানমারের নৌবাহিনীর একটি জাহাজ মাছ ধরার ট্রলারকে ধাওয়া করে গুলি চালায়। আতংকিত জেলেরা মাছ ধরার জাল ফেলে পালিয়ে আসার সময় ৬ জন জেলে গুলিবিদ্ধ হন।

বিকাল ৫টার দিকে ট্রলারটি সেন্টমার্টিন ঘাটে পৌঁছলে স্থানীয় লোকজন ও কোস্ট গার্ডের সদস্যরা গুলিবিদ্ধদের প্রথমে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে টেকনাফ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পাঠান। তাদের পা, হাত ও চোখের নিচে গুলির চিহ্ন রয়েছে। কোস্ট গার্ড সেন্টমার্টিনদ্বীপে দায়িত্বরত কর্মকর্তা মো. সাইফুল আবছার জানান বিকালে ৬ জন জেলে গুলিবিদ্ধ হয়ে একটি মাছ ধরার ট্রলারে সেন্টমার্টিন ঘাটে পৌছেন। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসার দিয়ে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পাঠানো হয়েছে। জেলেদের বরাত দিয়ে তিনি আরও জানান বাংলাদেশের জলসীমানায় মাছ ধরার সময় মিয়ানমারের নৌবাহিনী তাদের ধাওয়া করে গুলি বর্ষন করলে তারা গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হওয়ার ঘটনা ঘটে।

কোস্টগার্ড সেন্ট মার্টিনের স্টেশন পেটি কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুল আবছার বলেন, বিকেলে গুলিবিদ্ধ ছয় জেলেসহ বাকি জেলেরা ওই ট্রলারে করে সেন্ট মার্টিন জেটিঘাটে পৌঁছান। তাঁদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে টেকনাফ পাঠানো হয়েছে।

টেকনাফ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক শোভন দাস বলেন, জেলেরা গুলিবিদ্ধ হওয়ায় তাঁদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। শরীরে গুলি থাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁদের কক্সবাজারের সদর হাঁসপাতালে পাঠানো হযেছে।

জেলেদের বরাত দিয়ে মোহাম্মদ সাইফুল আবছার আরও বলেন, বাংলাদেশের জলসীমানায় মাছ ধরার সময় মিয়ানমারের নৌবাহিনী তাঁদের ধাওয়া করে গুলিবর্ষণের ঘটনায় জেলেরা আহত হন।