কুড়িগ্রামে একটি বাশেঁর সাঁকোয় ৫ ইউনিয়নের মানুষের চলাচলে চরম দূর্ভোগ

১২:৩৭ অপরাহ্ন | বুধবার, ডিসেম্বর ২৮, ২০১৬ দেশের খবর, রংপুর

ফয়সাল শামীম, নিজস্ব প্রতিবেদক: কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার মন্নেয়ারকুড়ার বাশেঁর সাঁকোটি দিয়ে ৫টি ইউনিয়নের প্রায় লক্ষাধিক মানুষের চলাচলের একমাত্র অবলম্বন হয়ে পরেছে।

basar-sako

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায় ভিতরবন্দ, কালীগঞ্জ, কেদার, কচাকাটা ও বল্লভেরখাস ইউনিয়ন ৫টির প্রায় লক্ষাধিক মানুষ উপজেলা ও জেলা সদরের সঙ্গে যাতায়াতের জন্য ওই একটি বাশেঁর সাকোই একমাত্র পথ।

নাগেশ্বরী উপজেলা প্রকৌশলী বাদশা আলমগীর জানান, মাননীয় এম সাহেবের হুকুমে মন্নেয়ারকুড়ার উপর একটি গার্ডার ব্রীজ করার জন্য মাটি ও সয়েল ট্রেষ্ট করে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। চলতি অর্থবছরে টেন্ডার হওয়ার কথা রয়েছে। টেন্ডার হলেই কাজ শুরু করা হবে।

কালীগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান ও কেদার ইউপি চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান জানান, মন্নেয়ারকুড়ায় ব্রীজ না থাকায় লোকজনের মালামাল এমনকি ইউনিয়ন পরিষদের মাল আনতে বাড়তি অনেক টাকা খরচ করতে হয়।

কালীগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী আজিজার রহমান জানান, সম্প্রতি বন্যায় ফুটব্রীজটি ভেঙ্গে পরায় এলাকাবাসী নিজেদের উদ্যোগে একটি বাশেঁর সাঁকো দিয়ে চলাচল করলেও উপজেলা বা জেলা সদর থেকে কোন মালামাল ওই সাঁকো দিয়ে আনা নেয়া করা যাচ্ছে না।

ভিতরবন্দ ইউনিয়নের রিকসা চালক সিরাজুল ইসলাম বলেন, মন্নেয়ারকুড়ার পানি কমলেও দুই পাড় উচুহেতু এখন বাশেঁর সাঁকো দিয়ে কষ্ট করে চলাচল করতে হচ্ছে।

সাঁকোর পাশের বাসিন্ধা ইয়াকুর আলী জানান, সরু সাঁকোটি দিয়ে রিকসা ও মোটর সাইকেল চলাচলের সময় প্রায় দিন দুঃঘটনার শিকার হচ্ছে। তাই অবিলম্বে এলাকাবাসী একটি বড় ব্রীজ করার দাবী জানান।

কুড়িগ্রাম জেলা পরিষদ নির্বাচন শান্তিপূর্ন ভাবে চলছে : ১টি কেন্দ্রে ভোট স্থগিত

কুড়িগ্রাম জেলা পরিষদের ভোট সকাল ৮টায় শুরু হয়েছে এবং তা শান্তিপূর্ন ভাবে চলছে। তবে হাইকোটে রীট করার কারনে ৬নং ওর্য়াড ফুলবাড়ী উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের জনপ্রতিনিধিরা ভোট দিতে পারছেন না।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা দেলওয়ার হোসেন জানান, ফুলবাড়ী উপজেলার ভাঙ্গামোড় ইউনিয়নের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের শপথ গ্রহনের আগে কমিশন থেকে জেলা পরিষদ ভোটার তালিকা প্রস্তুত করা হয়। সে কারনে তারা জেলা পরিষদের ভোটার তালিকায় বাদ পরেন এবং আগের জনপ্রতিনিধিরা তালিকাভুক্ত হন। এতে ভাঙ্গামোড় ইউনিয়ন পরিষদের ১নং ওয়ার্ডের সদস্য আব্দুল বাতেন ভোটাধিকার চেয়ে হাইকোটে রীট করলে ৬নং ওয়ার্ডের ভোট মহামান্য হাইকোট স্থগিত করেন।

আজকে জেলার ১৪টি ওয়ার্ডে ভোট হচ্ছে। ভোটে ৯টি উপজেলার ৭৩টি ইউনিয়ন ও তিনটি পৌরসভার মোট ভোটার সংখ্যা ১ হাজার ১২ জন। এর মধ্যে নারী ভোটারের সংখ্যা ২শ ৩৬ জন ও পুরুষ ভোটারের সংখ্যা ৭শ ৭৬ জন। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ২ জন, সাধারণ সদস্য পদে ৬৭ জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ২৭ জন প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।

৯টি উপজেলায় মোট ১৫টি ভোট কেন্দ্রে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে ১ জন চেয়ারম্যান, ১৫ জন সাধারণ সদস্য ও ৫ জন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে নির্বাচিত হবেন। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর লোকজন ভোটারদের কেন্দ্রে ক্যামেরা ও মোবাইল ফোন নিয়ে যেতে দিচ্ছে না। প্রতিটি কেন্দ্রে পুলিশ, র‌্যার ও বিজিবিসহ নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া ভ্রাম্যমান আদালত বসানো হয়েছে।