• আজ ২৮শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

প্রেসিডেন্ট-শাসিত দেশ হওয়ার পথে তুরস্ক!

৬:১৩ অপরাহ্ন | শুক্রবার, ডিসেম্বর ৩০, ২০১৬ Breaking News, আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক – তুরস্কে প্রেসিডেন্সিয়াল পদ্ধতি প্রবর্তনসহ একাধিক সাংবিধানিক পরিবর্তন সম্পর্কিত বিল অনুমোদন করেছে দেশটির সংসদীয় কমিটি।

শুক্রবার সকালে সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এর অনুমোদন দেয়া হয়।

রয়টার্সের খবরে বলা হয়, পার্লামেন্টে একটি ভোটাভুটির পর সাংবিধানিক পরিবর্তন নিয়ে গণভোট আয়োজন করতে পারে তুরস্ক। এ গণভোটে ইতিবাচক ফল আসলে প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান নির্বাহী ক্ষমতাও পাবেন। অবশ্য বিদ্যমান সংবিধান অনুযায়ী প্রেসিডেন্টের পদ তুরস্কে আলঙ্কারিক হলেও, কার্যত দেশ পরিচালনা করছেন এরদোগানই। এ সংশোধন পাশ হলে কাগজে কলমেও ক্ষমতা পাবেন তিনি।

erdogan

দীর্ঘ ১৭ ঘন্টা শুনানি শেষে সাংবিধানিক কমিশন এ খসড়া আইন অনুমোদন দেয়। ১০ই ডিসেম্বর ২১টি ধারা সহকারে খসড়া আইনটি কমিশনের কাছে উপস্থাপন করা হয়। তবে অনুমোদিত খসড়ায় ১৮টি ধারা রয়েছে। এ বিল নিয়ে জানুয়ারিতে পার্লামেন্টের প্রধান পরিষদে বিতর্ক শুরু হবে।

মূলত, নিজের বিপুল জনপ্রিয়তার ওপর ভর করে আলঙ্কারিক প্রেসিডেন্টের পদকে ক্ষমতাধর পদে রূপান্তর করেছেন এরদোগান। তার সমালোচকদের যুক্তি, নতুন সাংবিধানিক সংস্কারের প্রস্তাব পাশ হলে, তুরস্কে কর্তৃত্বপরায়ণ শাসন প্রতিষ্ঠিত হতে পারে।

এক দশক আগে এরদোগানের প্রতিষ্ঠিত শাসক দল একে পার্টি এ সংস্কারের জন্য জাতীয়তাবাদী বিরোধী দল এমএইচপি’র সমর্থন চায়। যেকোন সাংবিধানিক সংস্কারের ক্ষেত্রে তুরস্কের ৫৫০ আসন-বিশিষ্ট পার্লামেন্টে কমপক্ষে ৩৩০ জন সদস্যের সমর্থন প্রয়োজন হয়। এরপর আয়োজিত হয় গণভোট।