সংবাদ শিরোনাম

খালেদা জিয়ার সিটি স্ক্যানের রিপোর্ট নিয়ে যা বললেন চিকিৎসক২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিলেন কাদের মির্জাটাঙ্গাইলে ভন্ড পুরুষ কবিরাজ নারী সেজে যুবককে বিয়ে! অতঃপর…ব্যক্তিগত কাজে সরকারি গাড়ি নিয়ে স্বাস্থ্য কর্মকর্তার ঢাকা ভ্রমণ!শেরপুরের সেই শিশু রোকনের পরিবারের পাশে ইউএনও!কক্সবাজারে অস্ত্রসহ ডাকাতি মামলার আসামি গ্রেফতারকক্সবাজারে অনুপ্রবেশকারীর পক্ষ না নেয়ায়, আ’লীগ সভাপতিকে অব্যাহতি!শাহজাদপুরে ট্যাংকলরি সিএনজি’র মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ১রমজান মাসে আলেমদের হয়রানি মেনে নেয়া যায় না: নুরুল ইসলাম জিহাদীখালেদা জিয়াকে পাকিস্তান-জাপান দূতের চিঠি

  • আজ ৩রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা না মেনেই এখন অবধি ‘নিরাপত্তাহীনতায়’ ২৮ শতাংশ এটিএম বুথ !

১:১৬ পূর্বাহ্ন | বুধবার, জানুয়ারী ৪, ২০১৭ অর্থনীতি, স্পট লাইট

সময়ের কণ্ঠস্বর,  ঢাকা

গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে এটিএম বুথগুলোতে এক মাসের মধ্যে এন্টি স্কিমিং ও পিন শিল্ড ডিভাইস স্থাপন করার নির্দেশনা দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক। কিন্তু সে নির্দেশনা দেওয়ার পরে প্রায় এগারোমাস  অতিবাহিত হলেও এখনও ২৮ শতাংশ বুথের প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হয়েছে ব্যাংকগুলো।

মঙ্গলবার ব্যাংকগুলোর প্রধান নির্বাহীদের সাথে এক বৈঠকে  জানানো হয়, বাংলাদেশ ব্যাংকের বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে প্রায় ২৮ শতাংশ এটিএম বুথের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হয়েছে ব্যাংকগুলো।

ব্যাংকগুলোর এই অপারগতায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের  গভর্নর ফজলে কবির।

atm_18104

এই বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক শুভঙ্কর সাহা বলেন, বর্তমানে দেশে অন-লাইন ভিত্তিক লেনদেন ক্রমশ বাড়ছে এবং কার্ডের ব্যবহারও উত্তোরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে। কিন্তু আমাদের কাছে প্রাপ্ত হিসাব মতে ৭২ শতাংশ বুথের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পেরেছে। বাকীগুলোতে সম্ভাব্য স্বল্প সময়ের মধ্যে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

সভার বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস.কে সুর চৌধুরী বলেন, ব্যাংক কোম্পানি (সংশোধন) আইন , ২০১৩ কার্যকর হওয়ার তিন বছরের মধ্যে পালনীয় স্বতন্ত্র পরিচালক এবং পুজিঁবাজার এক্সপোজারের পরিমাণ সংক্রান্ত দুটি ধারা[ ১৫(৯) এবং ধারা ২৬ ক] কয়েকটি ব্যাংক পালন করেনি। এর আগের সভায় তাদেরকে সেগুলো পালন করতে বলা হয়েছিলো। বর্তমানে মিডল্যান্ড ছাড়া বাকী সবগুলো ব্যাংক তা পরিপালন করছে।

তিনি বলেন, ভালো ঋণ গ্রহীতাদের সুবিধা প্রদানের ফলে ব্যাংকগুলোর ব্যালেন্স সিটে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে বলে এবিবির পক্ষ থেকে যে অভিযোগ করা হয়েছে তা যৌক্তিক নয়।