• আজ ৩রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

‘স্যার আপনি যাবেন না’

৭:০৪ অপরাহ্ন | বুধবার, জানুয়ারী ৪, ২০১৭ দেশের খবর, রংপুর

কামরুল হাসান, ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধিঃ স্যার আপনি যাবেন না। আপনি যাবেন না স্যার। আপনাকে আমরা যেতে দেবোনা। আপনি এখানেই থাকবেন আমাদের সাথে থাকবেন। এটি প্রলাপ মনে হতে পারে। না তা নয়, আসলে এটি বুক ফাটা আর্তনাদ, আকুতি।

ggggএকটি ছোট্ট শিশু তার সাথে সহপাঠী আরো ৩ জন। সন্ধ্যা নামার পর সবাই স্কুল ছেড়ে চলে গেলেও ওরা ৪ জন স্কুলের এক কোণে ঘাপটি মেরে বসে আছে। এই ভেবে যে, দেখি ওরা আমাদের প্রিয় স্যারকে রাখে কী না। যখন স্যার স্কুল ছাড়ার মূহুর্তে এমপির গাড়িতে ওঠতে যায় তখনি ওদের গগন বিদারি আহাজারি। অনেকে ঐ শিশুদের বুকে জড়িয়ে হাউমাউ করে কাঁদতে শুরু করে।

বিদায়ের শেষ ক্ষণে উপস্থিত এমন কেউ ছিলেন না যে তিনি কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন নাই। এটি একটি বিদায় বেলায় ঘটনা বলছিলাম। ঠাকুরগাঁও জেলার শ্রেষ্ঠ একজন শিক্ষকের স্কুল থেকে অবসরের জন্য বিদায়।

গত সোমবার ছিল বছরের ২য় দিন। বছর শুরু সময়ে চাকুরি থেকে অবসরে গেলেন দু’বার দেশের শ্রেষ্ঠ শিক্ষক হিসেবে জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত রাণীশংকৈল মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিজয় কুমার। যাঁর ছোঁয়ায় শুধু বিদ্যালয়ের শিক্ষার পরিবর্তন এসেছে এমনটি নয়, রাণীশংকৈল যেন শিক্ষা নগরীতে পরিণত হয়েছে। দেশপ্রেমিক এই শিক্ষককে বিদায় দিতে কেউ রাজি নন। কিন্তু নিয়ম তাতে বাধসাধে। কয়েকদিন ধরেই নানাভাবে প্রস্ততি চলছে কীভাবে বিদায় দেওয়া হবে। শেষ মূহুর্তে ঘনিয়ে এলো দিন।

gdgসোমবার বিকেল ৪ টায় স্কুল মাঠেই শুরু হলো বিদায় অনুষ্ঠান। বিদায়ী অতিথি বিজয় কুমারের সাথে ছিলেন সহধর্মিনী ছায়া রাণী পাল ও মেয়ে মুন পাল। সভাপতিত্ব করলেন বিদ্যালয়ের সভাপতি অধ্যাপক ইয়াছিন আলী এমপি। প্রধান অতিথি ছিলেন সেলিনা জাহান লিটা এমপি।

অনেকের মধ্যে লিলেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সইদুল হক ও ঠাকুরগাঁও প্রেসক্লাব সভাপতি আবু তোরাব মানিক। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপন করেন অধ্যাপক প্রশান্ত বসাক।

শিক্ষা বিভাগের কর্মকর্তা, স্থানীয় গণ্যমান্য প্রাক্তন ছাত্রছাত্রী অভিভাবক শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রীরা উপস্থিত ছিলেন। বিদায় অনুষ্ঠানে গন্ডায় গন্ডায় উপহার পড়লো। পড়লো ফুলের তোরা কিন্তু সবার দৃষ্টি কড়ালো ভিন্ন স্বাদের উপহার। সেটি হলো অনেক শিশু শিক্ষার্থী বিদায়ী স্যারকে উপহার দিল নিজের হাতে ছেড়া ফুল। তার সাথে বুকফাটা কান্না। যেন বাবাকে হারাচ্ছে তারা।