সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ৭ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

দুই সাংবাদিককে মারধরের ঘটনায় এএসআই এরশাদ সাসপেন্ড

৬:১৩ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ২৬, ২০১৭ ফিচার

রবিউল ইসলাম, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট- তেল-গ্যাস ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি ডাকা হরতালের সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এটিএন নিউজের ক্যামেরা পারসন আব্দুল আলীম ও রিপোর্টার এহসান বিন দিদারকে মারধর করার ঘটনায় শাহবাগ থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) এরশাদকে সাসপেন্ড (সাময়িক বরখাস্ত) করা হয়েছে।

এ তথ্য নিশ্চিত করে রমনা জোনের ডেপুটি কমিশনার (ডিসি) মারুফ হোসেন সরদার জানান, ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া তাৎক্ষণিকভাবে এএসআই এরশাদ মণ্ডলকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

এ ঘটনায় জড়িত বাকি পুলিশ সদস্যদেরও চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান ডিসি মারুফ হোসেন।

তিন সদস্যের কমিটিতে রয়েছেন রমনা বিভাগের এডিসি এডমিন নাবিদ কামাল শৈবাল, এডিসি রমনা আজিমুল হক ও এসি রমনা ইহসানুল হক। তাদের দুই কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকালে তেল-গ্যাস ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সুন্দরবন বাঁচানোর হরতালে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ও গরম পানি ছুড়ে মারে। এরপর দফায় দফায় তাদের সঙ্গে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

এসময় পুলিশি অ্যাকশনের ছবি সংগ্রহ করতে গেলে বেসরকারি টেলিভিশন এটিএন নিউজের ক্যামেরাপারসন আব্দুল আলিমের ওপর চড়াও হয় পুলিশ। এ ঘটনায় বাধা দিতে গেলে রিপোর্টার ইশান দিদারকেও বেধড়ক মারধর করা হয়।

এটিএন নিউজের অ্যসোসিয়েট হেড অব নিউজ প্রভাষ আমিন তার ফেসবুক টাইমলাইনে জানান, পুলিশ হরতাল সমর্থকদের পেটাচ্ছিল। তার ছবি তুলছিলেন এটিএন নিউজের ক্যামেরাপারসন আব্দুল আলিম। ‘এ অপরাধে’ পুলিশ শাহবাগ থানার ভেতরে নিয়ে তাকে পেটাতে থাকে। বাধা দিতে গেলে রিপোর্টার ইশান দিদারকেও পিটিয়েছে পুলিশ।

তিনি আরও জানান, ২০/৩০ জন পুলিশ মিলে এই দুই সাংবাদিককে বেধড়ক পিটিয়েছে।এখন তাদের ঢাকা মেডিকেলে নেয়া হয়েছে। আলিমের আঘাত গুরুতর, ইশানের আঘাতও কম নয়।