সংবাদ শিরোনাম

গাজীপুরে সকল ট্রেনের যাত্রাবিরতির দাবিতে অবস্থান ধর্মঘটচমেকে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ, ব্যাপক ভাঙচুর‘আত্মত্যাগের মধ্যেই হলো একজন মানুষের জীবনের স্বার্থকতা’: উপাচার্য ড. হারুন-অর-রশিদদণ্ডিত আসামি দিয়ে সুবর্ণ জয়ন্তী উদ্বোধন করে মুক্তিযুদ্ধের প্রতি অসম্মান করেছে বিএনপিবাংলাদেশ এখন চীন-ভারত-মালয়েশিয়ার কাতারে : অর্থমন্ত্রীপেট্রাপোল বন্দরে বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় ৫ হাজার ট্রাক !ইসিকে হেয় করতে যা দরকার সবই করছেন মাহবুব তালুকদার: সিইসিআশুলিয়ায় ঝুট ব্যবসাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষ, আহত-১০ভাসমান হাসপাতাল ‘জীবন তরী’এখন ঝালকাঠির সুগন্ধা নদী তীরেস্থানীয় নির্বাচনে অনিয়মের একটা মডেল তৈরি হয়েছে: মাহবুব তালুকদার

  • আজ ১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ফরিদপুরে অতিরিক্ত দোকান ভাড়ার ভাড়ে দিশেহারা ব্যবসায়ীরা

১:২৯ অপরাহ্ন | সোমবার, জানুয়ারী ৩০, ২০১৭ ঢাকা, দেশের খবর

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধি: ফরিদপুরের চরভদ্রাসনে দোকান ঘড় মালিকদের অতিরিক্ত ঘড় ভাড়ার ভারে দিশেহারা হয়ে পড়ছেন সদর বাজারের ছোট বড়সহ সকল দোকানদার ব্যাবসায়ীরা। ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, প্রতিমাসে তাদের বেচাঁ-কেনা একিই থাকলেও প্রতিমাসে তাদের ঘর মালিকরা দোকান ঘরের ভাড়া বৃদ্ধি করেই চলেছে।

dokan-vara

এদিকে রবিবার সদর বাজার ঘুড়ে উক্ত বাজারের কয়েকজন ছোট বড় ব্যবসায়ীদের কাছে অতিরিক্ত দোকান ঘর ভাড়ার ব্যাপারে জানতে চাইলে তারা জানান, আমরা পদ্মা নদী ভাঙ্গন কবলিত ছোট্র উপজেলা সদর বাজারে প্রতিদিন একই মানুষের সমাগম হওয়ায় বাড়তি বেচাঁ-কেনা করতে পারিনা। এছাড়া কোন কোন মাসে বেচাঁ-কেনা না হওয়ায় আমাদের দোকানের ভাড়া পকেট থেকেই দিতে হয়। কিন্তুু আমাদের ঘর মালিকরা আমাদের বেচাঁ-কেনার কথা না ভেবেই প্রতিমাসে আমাদের দোকানের ভাড়া বৃদ্ধি করেই চলেছে।

এতে করে আমাদের ব্যবসা করে কোন মতে “পোলাপাইন নিয়া” খেয়ে পড়ে বেচেঁ থাকা কষ্টকরের পাশাপাশি আমাদের প্রতিমাসে গুনতে হচ্ছে অতিরিক্ত দোকান ভাড়া ও মাথায় নিতে হচ্ছে প্রতিমাসে বাড়তি দোকান ভাড়ার চাপ। তারা আরও বলেন, চরভদ্রাসন বাজারে একটি দোকান ঘড় ভাড়া নির্ধারন কমিটি গঠন করে তা একটি নিদ্দিষ্ট্য নিয়ম নীতির মাধ্যমে পরিচালিত করার পাশাপাশি তা অতি শীঘ্রই বাস্তবায়ন করার উপরও এ সময় জোড় দেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।

এ ব্যাপারে সদর বাজারের ব্যবসায়ী ও দোকান ঘড় মালিক মোঃ আব্দুল হকের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “ভাড়াটিয়াদের দোকানের ভাড়া দিয়ে ব্যবসা করে না পোশালে, “তাগাদা কইরা তাগোরে কাচিঁ নিয়া ক্ষেতে যাইতে কন, কেননা এরা সবাই ক্ষেতের লোক”। ক্ষেত থেকে উইঠা আইশা এখন ব্যবসা করতে বইছে। তিনি এ সময় আরও বলেন, নতুন নতুন ভাড়াটিয়ারা আমাকে আগের ভাড়াটিয়াদের চাইতে আরও বেশি টাকা অগ্রিম ও আরও বেশি টাকা দোকান ভাড়া দিতে চায় দেখেই আমরা দোকান ভাড়া বাড়াইতেছি। এতে দোকান ভাড়াটিয়াদের পোশালে থাকবে, না পোশালে না থাকবে।