সংবাদ শিরোনাম

গাজীপুরে সকল ট্রেনের যাত্রাবিরতির দাবিতে অবস্থান ধর্মঘটচমেকে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ, ব্যাপক ভাঙচুর‘আত্মত্যাগের মধ্যেই হলো একজন মানুষের জীবনের স্বার্থকতা’: উপাচার্য ড. হারুন-অর-রশিদদণ্ডিত আসামি দিয়ে সুবর্ণ জয়ন্তী উদ্বোধন করে মুক্তিযুদ্ধের প্রতি অসম্মান করেছে বিএনপিবাংলাদেশ এখন চীন-ভারত-মালয়েশিয়ার কাতারে : অর্থমন্ত্রীপেট্রাপোল বন্দরে বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় ৫ হাজার ট্রাক !ইসিকে হেয় করতে যা দরকার সবই করছেন মাহবুব তালুকদার: সিইসিআশুলিয়ায় ঝুট ব্যবসাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষ, আহত-১০ভাসমান হাসপাতাল ‘জীবন তরী’এখন ঝালকাঠির সুগন্ধা নদী তীরেস্থানীয় নির্বাচনে অনিয়মের একটা মডেল তৈরি হয়েছে: মাহবুব তালুকদার

  • আজ ১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

‘এখন পর্যন্ত ৫ হাজার ৩১৬ জন মিয়ানমার নাগরিককে অনুপ্রবেশ প্রতিহত করে স্বদেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে’

৭:৩০ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, জানুয়ারী ৩১, ২০১৭ জাতীয়

স্টাফ রিপোর্টার, সময়ের কণ্ঠস্বর. সম্প্রতি মিয়ানমারে অভ্যন্তরে সৃষ্ট ঘটনার পর থেকে (৮ অক্টোবর-২২ জানুয়ারি) এখন পর্যন্ত ৫ হাজার ৩১৬ জন মিয়ানমার নাগরিককে অনুপ্রবেশ প্রতিহত করে স্বদেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে বলে জাতীয় সংসদকে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। মঙ্গলবার সংসদ সদস্য মো. মামুনুর রশীদ কিরণের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা জানান।

তিনি জানান রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ রোধে সীমান্তে নিয়মিত টহল পরিচালনাসহ অপরিচিত ব্যক্তিদের আগমন তদারকি করা হচ্ছে।

সংসদে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘রাখাইন প্রদেশে বিদ্যমান সাম্প্রদায়িক অস্থিতিশীলতা, মিয়ানমার সরকারের মুসলিমবিরোধী অভ্যন্তরীণ নীতিমালা এবং প্রতিকূল আর্থ-সামাজিক সমস্যার কারণে কয়েক দফায় মিয়ানমারের মুসলিম রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী সীমান্ত পেরিয়ে কক্সবাজারে আশ্রয় নিয়েছে। জাতিসংঘের উদ্বাস্তু বিষয়ক হাইকমিশন পরিচালিত দুটি রেজিস্ট্রার্ড ক্যাম্পে ৩০ হাজারের বেশি নিবন্ধিত এবং ৩ লাখের বেশি অনিবন্ধিত মিয়ানমার নাগরিক বিভিন্ন অস্থায়ী শেল্টারে অবস্থান করছে। সম্প্রতি আরও ৬৭ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশে করেছে।’

PORORATROMONTRIপিনু খানের প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, ‘মিয়ানমার সরকারের অনীহার কারণে ২০০৫ সালের পর থেকে বাংলাদেশে অবস্থানরত মিয়ানমার শরণার্থীদের প্রর্ত্যাবসন করা সম্ভবপর হয়নি। তবে আমাদের সরকার পূর্ববর্তী মেয়াদ থেকেই এ সমস্যাটির স্থায়ী ও গ্রহণযোগ্য সমাধানের লক্ষ্যে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।’ জাতিসংঘ ও ওআইসিসহ অন্যান্য আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক সংস্থাসমূহের সহযোগিতায় মিয়ানমারের সঙ্গে কূটনৈতিক আদান-প্রদান ও পারস্পারিক যোগাযোগের মাধ্যমে দীর্ঘমেয়াদী এ সমস্যা সমাধান হবে বলেও পররাষ্ট্রমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন।