ইরানের ক্ষেপণাস্ত্রের ভয়ে কাঁপছে যুক্তরাষ্ট্র, সম্পর্কে নতুন টানাপোড়েন!

৩:০১ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ২, ২০১৭ Breaking News, আন্তর্জাতিক, স্পট লাইট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক – সদ্য বিদায়ী প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা প্রশাসন থাকাকালীন পারমানবিক পরীক্ষা নিরীক্ষা নিয়ে ইরানের সাথে যে চুক্তিটি হয়েছিলো তখন ধরে নেয়া হয়েছিলো ইরানের সাথে মার্কিন সম্পর্কে বোধহয় নতুন যুগের সূচনা হলো। কিন্তু ইরানের সাম্প্রতিক ব্যালিস্টিক মিসাইল পরীক্ষাকে ঘিরে সম্পর্কে নতুন করে টানাপোড়েন দেখা দিয়েছে। এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র আনুষ্ঠানিক ভাবে বিষয়টিতে ইরানকে সতর্ক করেছে।

বলা যায় ইরানের ক্ষেপণাস্ত্রের ভয়ে কাঁপছে যুক্তরাষ্ট্র!  আর এ কারণেই দেশটিকে নজরদারির আওতায় নেওয়ার কথা জানালেন সদ্য হোয়াইট হাউসের দায়িত্ব নেওয়া ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসনের একজন প্রভাবশালী উপদেষ্টা । নিরাপত্তা উপদেষ্টা মাইকেল ফ্লিন দাবি করেছেন, তেহরানের ব্যালাস্টিক মিসাইল পরীক্ষার প্রেক্ষিতে এই নজরদারি শুরু করা হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য ইন্ডিপেনডেন্ট এই খবর জানিয়েছে।

এদিকে ট্রাম্পের জাতীয় উপদেষ্টা ফ্লিন ইন্ডিপেনডেন্টকে বলেছেন, ‘ইচ্ছাকৃত’ভাবেই উসকানি তৈরী করছে তেহরান।

ট্রাম্প প্রশাসনের পররাষ্ট্রনীতে ইরান হলো বৈরী দেশ। শুক্রবারের নির্বাহী আদেশে তিন মাসের জন্য যে ৭ মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র প্রবেশে স্থগিতাদেশ দেওয়া হয়েছিল, ইরান তারমধ্যে অন্যতম দেশ। পাশাপাশি শরণার্থী কর্মসূচি চার মাসের জন্য স্থগিত করেন তিনি। এই আদেশে যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয়ের ক্ষেত্রে মুসলিম প্রধান দেশগুলোর মুসলিমদের বদলে খ্রিস্টান ও সংখ্যালঘুদের প্রাধান্য দেওয়ার কথা বলা হয়। এই নির্বাহী আদেশের বিপরীতে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানায় তেহরান। মার্কিন নাগরিকদের জন্য পাল্টা ভিসা বন্ধের হুমকি দেন তারা। পাশাপাশি মার্কিন কর্মকর্তারা সোমবার ফক্স নিউজকে জানান, রবিবার মাঝারি পাল্লার এক ব্যালাস্টিক ক্ষেপনাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে তেহরান। তবে ক্ষেপণাস্ত্রটি ১ হাজার ১০ কিলোমিটার যাওয়ার পরই বিস্ফোরিত হয়। ফলে এ পরীক্ষা ব্যর্থ হয়।

ওই ক্ষেপনাস্ত্র পরীক্ষাকে ’উসকানিমূলক’ আখ্যা দিয়েছেন ট্রাম্পের জাতীয় উপদেষ্টা ফ্লিন। মার্কিন জোটের ওপর হামলা চালানো হুথি বিদ্রোহীদের মদদ দেওয়ার অভিযোগও করেন ফ্লিন। তবে পাল্টা প্রতিক্রিয়া হিসেবে তারা কী পদক্ষেপ নেবেন, তা এখনও নির্ধারণ করেননি তারা।

trump-iran-misile

তিন ঊর্ধ্বতন প্রশাসনিক কর্মকর্তাও একইভাবে বলেছেন, ইরানকে পাল্টা কী জবাব দেওয়া হবে, তা নিয়ে এখনও পর্যন্ত ভাবনার প্রাথমিক স্তরে রয়েছেন তারা। এদের একজন জানান, ‘আমরা খুবই ভাবনা-চিন্তার মধ্যে আছি। সম্ভাব্য সবরকম পথের কথাই ভাবছি।

মঙ্গলবার ওই মাঝারি পাল্লার ওই ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষার কথা নিশ্চিত করে ইরান। দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী হোসেইন দেহঘানের বরাত দিয়ে সংবাদ সংস্থা তাসনিম গতকাল এ কথা জানায়।

বার্তা সংস্থা তাসনিম সূত্রে আলজাজিরার খবরে বলা হয়, এ পরীক্ষার ক্ষেত্রে দেশটি তার পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচি সম্পর্কিত পশ্চিমাদের সঙ্গে স্বাক্ষরিত চুক্তি বা জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের সংশ্লিষ্ট প্রস্তাব লঙ্ঘন করেনি বলে দাবি করেছেন ইরানি প্রতিরক্ষামন্ত্রী হোসেইন দেহঘান।

তিনি বলেন, ‘আমাদের পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী এ পরীক্ষা চালানো হয় এবং প্রতিরক্ষাসংক্রান্ত বিষয়ে বিদেশিদের হস্তক্ষেপ করতে দেব না আমরা। ’

সম্প্রতি এক মার্কিন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ইরান গত রবিবার একটি ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালায়।

বিশ্বস্ত বন্ধু অস্ট্রেলিয়ান প্রধানমন্ত্রীর ফোন উত্তপ্ত স্বরে কেটে দিলেন ট্রাম্প, নেপথ্যে যে কারণ!