• আজ ১৬ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নাটোরের সিংড়ায় জনগনের দাবীর মুখে সিডিউল অনুযায়ী কাজ শুরু করল ঠিকাদার

৪:৪৪ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ২, ২০১৭ দেশের খবর, রাজশাহী

তাপস কুমার, নাটোর প্রতিনিধি: নাটোরের সিংড়ার তাজপুরে জনগনের দাবীর মুখে সিডিউল অনুযায়ী কাজ শুরু করেছে ঠিকাদার। ফলে স্বস্তি ফিরে এসেছে এলাকাবাসী ও সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারীদের।

natorr

এলাকাবাসী ও উপজেলা এলজিইডি অফিস সূত্র জানায়, নাটোরের সিংড়ার নিলামপুর থেকে তাজপুর পর্যন্ত প্রায় এক কিলোমিটার রাস্তা পাকা করনের কাজ করছিল নাটোরের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স সরকার কনস্ট্রাকশন। যার বরাদ্দ ধরা হয়েছে ৫৩ লাখ ৯৯ হাজার ৯৯৫ টাকা। কাজ শুরুর পর থেকেই কাজে নিম্নমানের সামগ্রি দিয়ে কাজ করার অভিযোগ করে স্থানীয়রা।

এ ব্যাপারে এলজিইডি ওই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে সিডিউল অনুযায়ী কাজ করার নির্দেশ দেয়। পরে জনগনের দাবীর মুখে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সিডিউল অনুযায়ী কাজ শুরু করলে স্বস্তি ফিরে এলাকায়। এলজিইডি কর্মকর্তারাও কাজে সস্তোষ প্রকাশ করেছেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল কুদ্দুস বলেন, প্রথমে নিম্ন মানের সামগ্রি দিয়ে কাজ শুরু হলেও এখন ভালো কাজ হওয়ায় আমরা খুশি। আমরা চাই এইভাবেই কাজটি সম্পন্ন করা হোক।

এলজিইডির সিংড়ার উপজেলা প্রকৌশলী হৃদয় কুমার দাস বলেন, প্রথমে কাজের মান নিয়ে প্রশ্ন ওঠায় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশ দেয়ায় এখন সিডিউল মেনে কাজ হচ্ছে ভবিষ্যতেও হবে। কোন ছাড় দেয়া হবে না নিম্ন মানের কাজ হলে শুধু কাজই বন্ধ হবে না।

এ ব্যাপারে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী সুজিত সরকার সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, নিম্ন মানের সামগ্রি নয় রাস্তায় কিছু ময়লা আবর্জনা থাকায় ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল। এখন তা সমাধান হয়েছে ঠিকমত কাজ করতে সাইডে থাকা কর্মচারীদের নির্দেশ দিয়েছি।

নাটোরে শান্তিপূর্ণভাবে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা

সারাদেশের মতো নাটোরেও শান্তিপূর্ণভাবে শুরু হয়েছে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। আজ বৃহস্পতিবার নির্ধারিত সময় সকাল ১০টায় জেলার মোট ৪১টি কেন্দ্রে ২১ হাজার ৬৪১ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করছে।

তবে গত বছরের তুলনায় এই বছর পরীক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে। যা গতবছর ছিল ১৯ হাজার ৬৬৫ জন। এ বছর এসএসসি সাধারনে ১৫ হাজার ৭২৪ জন, ভোকেশনাল শাখায় ৩ হাজার ৮শ ৬৭ এবং দাখিল ২ হাজার ৪৮ জন।

তবে এ বছরেও এমসিকিউ পরীক্ষা আগে আনুষ্ঠিত হচ্ছে। এরপর দশ মিনিটি বিরতি দিয়ে সৃজনশীল লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তবে নতুন পদ্ধতিতে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ায় সন্তোষ জানিয়েছেন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।