নবীগঞ্জের ইনাতগঞ্জ বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড, কোটি টাকার ক্ষতি

৫:২৫ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ২, ২০১৭ দেশের খবর, সিলেট

মতিউর রহমান মুন্না, নবীগঞ্জ প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘঠেছে। গতকাল বুধবার রাত ১০ টার দিকে ইনাতগঞ্জ মধ্য বাজারে এ ভয়াবহ অগ্নিকান্ড সংঘটিত হয়। এতে প্রায় কোটি টাকার ক্ষতি সাধিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

dokan

ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে রড, সিমেন্ট, গার্মেস, চালের দোকানসহ কমপক্ষে ৬টি দোকান সম্পূর্ণ ভস্মিভুত হয়েছে। খবর পেয়ে নবীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের একদল কর্মী প্রাণপন চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হন। পরে হবিগঞ্জ থেকেও দমকল বাহিনীর একদল সদস্য ঘটনাস্থলে গিয়ে সহযোগিতা করে।

অগ্নিকান্ডের ঘটনাটি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি, প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ, রাজনৈতিক, সামাজিক ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দরা পরির্দশন করে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের শান্তনা দেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ৯টার সময় ব্যবসায়ী তাদের দোকান পাঠ বন্ধ করে বাড়ী চলে যান। রাত ১০ টার সময় ইনাতগঞ্জ মধ্য বাজারের ব্যবসায়ী জয়নাল মিয়ার মেলা মাইনের দোকানে আগুনের লেলিহান শিখা দেখা যায়। মুহুর্তের মধ্যেই দাউ দাউ করে আগুন পাশের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে। অগ্নিকান্ডের খবরে ইনাতগঞ্জ বাজারসহ পাশ্ববর্তী গ্রামগুলোর মসজিদে খবর প্রচার করা হলে শত শত মানুষ ঘটনা স্থলে ছুটে আসেন। কিন্তু এত মানুষ থাকা সত্বেও সবাই ছিলেন আগুনের কাছে অসহায়। শত শত মানুষ আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে ব্যর্থ হন। আগুনের ভয়াবহতা চলে যায় অনেক উপরে।

এ সময় ইনাতগঞ্জ বাজারের বাসা বাড়িতে থাকা লোকজন ছোট শিশুদের নিয়ে দিকবেদিক ছুটাছুটি করে বাহিরে আসেন। এ সময় অনেকই হুড়াহুড়িতে আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তাৎক্ষণিকভাবে আহতদের নাম জানা যায়নি। খবর পেয়ে নবীগঞ্জ থেকে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন দুটি গাড়ী নিয়ে ইনাতগঞ্জ বাজার অগ্নিকান্ড স্থলে উপস্থিত হয়ে প্রাণপণ চেষ্টা চালান পরে হবিগঞ্জ থেকে ফায়ার সার্ভিসের আরেক দল ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন। এ সময় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ইনাতগঞ্জ পুলিশ ফাড়িঁর ইনচার্জ এস আই ধর্মজিত সিনহার নেতৃত্বে একদল পুলিশ সহযোগীতা করেন।

কিন্তু এর আগেই অগ্নিকান্ডে ৬ টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো পুড়ে ছাই হয়ে যায়। অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত দোকানগুলো হলো – জয়নাল মিয়ার মেলাইমাইন, খেলনা ও প্লাষ্টিকের দোকান, আশরাফুলের কাপড়ের দোকান, ইজাজুর ইসলামের রড সিমেন্টের দোকান, আমিনুরের চাউলের দোকান ও সঞ্জয়ের সেলুন ও শান্তা হার্ডওয়ার। ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ী জানান, যে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ছিল রোজি রোজগার করার এক মাত্র অবলম্বন। কিন্তু ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে তাদের সব কিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেল। এ অগ্নিকান্ডে অনেকেই নিঃস্ব হয়ে পড়েছেন। অগ্নিকান্ডের সুত্রপাত জানা না গেলেও ধারনা করা হচ্ছে ইলেক্টিক সর্ট সার্কিট বা কয়েলের আগুন থেকে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত ঘটতে পারে।

এ ঘটনার খবর পেয়ে আজ বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট আলমগীর চৌধুরী, হবিগঞ্জের সার্কেল এ এস পি রাসেলুর রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী, নবীগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র এটিএম সালাম, ইনাতগঞ্জ হাই স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মাসুদ আহমেদ জিহাদী, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি আব্দুল মালিক, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হেলিম উদ্দিন, তোফাজ্জল হোসেন, আবুল কালাম আজাদ, নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারন সম্পাদক রাকিল হোসেন, প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক মতিউর রহমানসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এছাড়াও ঘটনার সাথে সাথে উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা জীতেন্দ্র কুমার নাথ, থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল বাতেন খাঁন ও শ্রীমঙ্গল র‌্যাব ক্যাম্প-৯ এর একদল সদস্য ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।