• আজ ১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বিমানবাহিনীর যে পোস্টে চাকরি পেলেন সেই ভ্যানচালক ইমাম

৬:০৭ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ২, ২০১৭ আলোচিত বাংলাদেশ

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি– গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী ভ্যানচালক ইমাম শেখের অস্থায়ীভিত্তিতে চাকরি হয়েছে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর একটি বেকারিতে। তিনি বৃহস্পতিবার বিমান বাহিনীর যশোর ঘাঁটির ফ্যালকন বেকারিতে ‘সরবরাহকারী’ হিসেবে যোগ দিয়েছেন। মাসিক বেতন ৭ হাজার ৯শ’ ৮৪ টাকা।

তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় ইমাম শেখ মোবাইল ফোনে জানান, মঙ্গলবার অস্থায়ী নিয়োগ পাওয়ার পর বৃহস্পতিবার সকালে তিনি বিমান বাহিনীর বেকারিতে যোগদান করেন। বোকারিতে তৈরি সামগ্রী বিমান বাহিনীর নিজস্ব দোকানগুলোতে সরবরাহ করবেন এবং টাকা বুঝে নেবেন। আপাতত অস্থায়ী ভিত্তিতে চাকরি হলেও পরে স্থায়ী হবে।

1427128267ইমাম শেখ আরও বলেন, ‘পরম করুণাময় আল্লাহর কাছে লাখো কোটি শোকরিয়া। কোনোদিন ভাবিনি আল্লাহ আমাকে এভাবে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দিবেন’। এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বাংলাদেশ বিমান বাহিনী ও দেশের সংবাদমাধ্যমের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ইমাম।

বিমান বাহিনীর যশোর ঘাঁটির ফ্যালকন বেকারির ইনচার্জ ওয়ারেন্ট অফিসার আব্দুল হাই বলেন, ‘বেকারিতে অস্থায়ী ভিত্তিতে সরবরাহকারী হিসেবে চাকরি হয়েছে ইমামের। বেকারিতে উৎপাদিত পণ্য আমাদের ঘাঁটি ও শাহিন কলেজের ২৫-৩০টি দোকানে সে সরবরাহ করবে। সার্কুলার ছাড়া বিমান বাহিনীতে স্থায়ী চাকরি হয় না। সার্কুলার হলে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ তার চাকরি স্থায়ী করবে বলে শুনেছি।’

এর আগে গত রোববার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে বিমান বাহিনীর যশোর ক্যান্টনমেন্টের বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান ঘাঁটির স্কোয়ার্ডন লিডার হারুন-উর- রশিদ টুঙ্গিপাড়া সরদারপাড়া গ্রামে ইমাম শেখের বাড়িতে গিয়ে ইমাম শেখের হাতে চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দেন। এরপর তিনি ইমাম শেখের অসুস্থ পিতার চিকিৎসা ও ঘরবাড়ি মেরামতের জন্য বিমান বাহিনীর পক্ষ থেকে ৪০ হাজার টাকা তুলে দেন ইমামের মা শাহানূর বেগমের হাতে। এ সময় বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান ঘাঁটির স্কোয়ার্ডন এ্যাসিট্যান্ট লিডার দেলোয়ার হোসাইন সহ বিমান বাহিনীর কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

টুঙ্গিপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী গোলাম মোস্তফা, টুঙ্গিপাড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি বিএম গোলাম কাদের স্বাক্ষী হিসেবে ইমাম শেখের নিয়োগ পত্রে স্বাক্ষর করেন। এ সব প্রক্রিয়া শেষে দুপুর ১২ টার দিকে ইমাম শেখ ব্যাগ ব্যাগেজ ও ভ্যান নিয়ে বিমান বাহিনীর গাড়িতে করে যশোরের উদ্দেশ্যে রওনা দেন।

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভ্যানে চেপে গত ২৭ জানুয়ারি সকালে গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়ায় নিজ এলাকা ঘুরে দেখেন। হাস্যোজ্জ্বল শেখ হাসিনা কোলে নাতিকে নিয়ে বসেন ভ‌্যানের সামনের দিকে; অন‌্য পাশে ভাগ্নে ছোট বোন শেখ রেহানার ছেলে রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক। পেছন দিকে বসেন রাদওয়ানের মেয়ে ও স্ত্রী পেপি সিদ্দিক।

প্রধানমন্ত্রী যে ভ্যানে চেপে পৈত্রিক এলাকা ঘুরে দেখেন তার চালক ইমাম শেখ। তার বাড়ি গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়া উপজেলার পাটগাতী সরদার পাড়া গ্রামে। ১৭ বছর বয়সী ইমাম ভ্যান চালান দুই বছর ধরে।

পঞ্চম শ্রেণিতে আটকে যায় ইমামের পড়াশোনা। জীবনযুদ্ধ চলছিল ভ্যান চালিয়ে; যা আয় হয় তা দিয়েই চলে সংসার। তার বাবা আব্দুল লতিফ শেখ মানসিক রোগী, মা গৃহিণী। ইমাম শেখরা দুই ভাই, তিন বোন।

ইমামের মা শাহানূর বেগম বলেন, প্রধানমন্ত্রী ছেলের চাকরি দেয়ার পাশাপাশি আমাদের জন্য সব কিছু করবেন এমন প্রত্যাশা করিনি। প্রধানমন্ত্রী আমাদের জন্য যা করেছেন, তার জন্য আমারা সারা জীবন কৃতজ্ঞ থাকবো। তিনি আমাদের মতো গরীব মানুষের মুখে হাঁসি ফুঁটানোর জন্যই নিরলস কাজ করছেন। আল্লাহ তাকে দীর্ঘ দিন দেশ পরিচালনার এ মহৎ কাজে নিয়োজিত রাখুন এ দোয়া করি।

এ সম্পর্কিত এর আগের সংবাদ

তীব্র আকাঙ্ক্ষা থাকা সত্তেও যে কথাটি প্রধানমন্ত্রীকে বলা হয়নি ভ্যানচালক ইমাম শেখের!

নিজেকে ‘পৃথিবীর সবচেয়ে সুখি ও ভাগ্যবান ব্যক্তি’ দাবী সেই ভ্যানচালক ইমামের

সেই ভ্যান চালক ইমামের এবার ঘুরলো ভাগ্যের চাকা!