ট্রাম্পের পর এবার ৫টি মুসলিম দেশের ভিসা বাতিলের সিদ্ধান্ত কুয়েতের!

৮:৫১ পূর্বাহ্ন | শুক্রবার, ফেব্রুয়ারী ৩, ২০১৭ Breaking News, আন্তর্জাতিক, স্পট লাইট

আন্তর্জাতিক আপডেট ডেস্ক-

নিরাপত্তা শংকার অজুহাতে এবার মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ পাঁচটি দেশের নাগরিকদের ভিসা না দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কুয়েত।

যুক্তরাষ্ট্রে সাতটি দেশের মুসলিম নাগরিকদের প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারির এক সপ্তাহের মাথায় এবার পাচটি দেশের মুসলিম নাগরিকদের তাদের দেশে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারী করলো মুসলিম প্রধান দেশ কুয়েত।

এর আগে ২০১১ সিরিয়ার নাগরিক প্রবেশের ওপর এর আগে একবার নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল কুয়েত। আর এই দফায় নিষেধাজ্ঞা জারী করা হলো পাঁচটি মুসলিম প্রধান দেশের বিরুদ্ধে ।

কুয়েত প্রশাসনের বরাতে দ্য ইকোনমিক টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, ওই পাঁচটি দেশ থেকে চরমপন্থীরা কুয়েতে প্রবেশ করতে পারে আশংকা করে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছে  মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি।

কুয়েত যে পাঁচটি দেশের নাগরিকদের ভিসা দেয়া বন্ধ করেছে সেগুলো হল : পাকিস্তান, সিরিয়া, ইরাক, আফগানিস্তান ও ইরান।

গালফ কো অপারেশন কাউন্সিলের (জিসিসি) সদস্য দেশ হওয়ায় ইতমধ্যে কুয়েতের এ সিদ্ধান্ত জিসিসিভুক্ত অন্যান্য দেশসহ ইরানের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি করেছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে ।

এর আগে ২০১৫ সালে কুয়েতের একটি শিয়া মসজিদে জঙ্গি হামলায় ২৭ জন কুয়েতের নাগরিক নিহত হন। ২০১৬ সালে এক্সপ্যাট ইনসাইডারের করা এক জরিপে দেখা যায়, কঠোর সাংস্কৃতিক আইনের কারণে প্রবাসীদের জন্য বিশ্বের সবচেয়ে বাজে গন্তব্য হলো কুয়েত।

প্রসঙ্গত, গত সপ্তাহে সাতটি মুসলিম দেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশ অনুযায়ী ১২০ দিন পর্যন্ত সব শরণার্থী ও ৯০ দিন পর্যন্ত মুসলিম প্রধান সাত দেশের নাগরিকেরা যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করতে পারবেন না। দেশগুলো হলো: ইরাক, সিরিয়া, ইরান, সুদান, লিবিয়া, সোমালিয়া ও ইয়েমেন। ট্রাম্পের পর এবার কুয়েতের পক্ষ থেকে এমন ঘোষণা এল।