সাংবাদিক নিহতের প্রতিবাদে ডাকা হরতালে অচল শাহজাদপুর

১০:১৫ পূর্বাহ্ন | শনিবার, ফেব্রুয়ারী ৪, ২০১৭ Breaking News, ফিচার

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি- আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের সময় পুলিশের উপস্থিতিতে সাংবাদিক নিহতের ঘটনায় সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে আধাবেলা হরতাল চলছে।

সাংবাদিক হত্যার প্রতিবাদে শাহজাদপুর উপজেলায় আজ শনিবার সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত অর্ধদিবস হরতাল ডাকে উপজেলা ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগ।

হরতালের সমর্থনে শনিবার ভোর থেকে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে। তবে কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

shimul-id6179988সকালে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী উপজেলা শহরের বিভিন্ন মোড়ে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেন। মনিরামপুর বাজারে খণ্ড খণ্ড বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে। হরতালের সমর্থনে উপজেলায় সব ধরনের দোকান, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ। রিকশা ও সিএনজি চালিত অটোরিকশা চলাচল বন্ধ রয়েছে।

শুক্রবার গুলিবিদ্ধ সাংবাদিক শিমুলের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে এ ঘটনা এবং শাহজাদপুর উপজেলা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি বিজয় আহমেদ আহতের প্রতিবাদে উপজেলায় আধা-বেলা হরতালের ডাক দেয় এলাকাবাসী সাংবাদিক সমাজ ও ছাত্রলীগ। এই হরতালে সমর্থন দিয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও স্থানীয় সাংবাদিকেরা।

শাহজাদপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি বিমল কুণ্ড জানান, শাহজাদপুরবাসী শান্তিপূর্ণভাবে হরতাল পালন করছে। তিনি জানান, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে হাইস্কুল মাঠে শিমুলের জানাজা হবে। জানাজা শেষ তার গ্রাম মাদলাতে দাফন করা হবে।

উল্লেখ্য, শাহজাদপুর পৌর মেয়র হালিমুল হক মিরুর ব্যক্তিগত শটগানের গুলিতে দৈনিক সমকালের শাহজাদপুর উপজেলা প্রতিনিধি আব্দুল হাকিম শিমুল চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। শুক্রবার দুপুরে বগুড়া জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ঢাকা নেয়ার পথে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম গোলচত্বর এলাকায় তার মৃতু হয়।

এ ঘটনায় নিহত সাংবাদিকের স্ত্রী নুরুন নাহার বেগম গতকাল শাহজাদপুর থানায় হত্যা মামলা করেন। এতে মেয়র হালিমুল হক, তাঁর দুই ভাইসহ ১২ জনের নাম উল্লেখ করে মোট ১৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। এর আগে বৃহস্পতিবার সংঘর্ষের পর পুলিশ পৌর মেয়রের লাইসেন্স করা শটগান জব্দ করে ও তাঁর ভাইকে আটক করে। পৌর মেয়র পলাতক রয়েছেন।