কালীগঞ্জে সরকারি প্রাঃ বিদ্যালয়ের স্লিপ বরাদ্দের টাকা হরিলুটের অভিযোগ

৪:১৪ অপরাহ্ন | শনিবার, ফেব্রুয়ারী ৪, ২০১৭ দেশের খবর, রংপুর

Lalmonirhat-2


মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ

জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার তালুক মদাতী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্লিপ বরাদ্দের প্রায় ৫০ হাজার টাকা উত্তোলন পুর্বক আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষক শেফালী রানী রায়ের বিরুদ্ধে। সাত মাস পেরিয়ে গেলেও উত্তোলিত স্লিপ বরাদ্ধের অর্থ দিয়ে কোন কাজই করেননি ঐ প্রধান শিক্ষক।

জানা যায়, প্রাথমিক শিক্ষার গুণগতমান বৃদ্ধি ও বিদ্যালয়কে দৃশ্যমান করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে সরকার ৫০ টাকা অর্থ বরাদ্দ দেয়। বরাদ্দকৃত স্লিপ প্রকল্প ২০১৫-১৬ অর্থবছরের বাজেট পরিকল্পনায় অন্তর্ভুক্ত আইটেমগুলো হচ্ছে, সাইন্ড বক্স ২ হাজার টাকা, সিমসহ মোবাইল ২ হাজার টাকা, বাংলাদেশের গণহত্যা বই ১ হাজার ২৫০ টাকা, সরকারি বই (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) ৫শ’ টাকা, পাঠ সংশ্লিষ্ট উপকরণ ৫ হাজার টাকা, একটি শ্রেণিকক্ষ সজ্জিতকরণ (মানসম্মত) ৫ হাজার টাকা, শহীদ মিনার, পতাকা স্ট্যান্ড ও মঞ্চ তৈরি ১৯ হাজার ২৫০ টাকা, ব্রেঞ্চ মেরামত (দরকার হলে) ৫ হাজার টাকা। এ ছাড়া প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণির বিভিন্ন শিক্ষা উপকরণ ক্রয়ের জন্য ৫ হাজার টাকা। প্রতিটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্লিপ প্রকল্পের ৪০ হাজার টাকাসহ মোট ৫০ হাজার টাকা সরকার বরাদ্দ দেয়।

ঐ স্কুলের সভাপতি ধনপতি রায় জানান, প্রধান শিক্ষক শেফালী রানী রায় বরাদ্দকৃত অর্থ যথাসময়ে উত্তোলন করেছেন। কিন্তু অর্থবছর শেষ হওয়ার ৭ মাস পেরিয়ে গেলে ও উল্লেখিত কাজগুলো করেননি। স্লিপ বরাদ্ধের টাকা উত্তোলন করে প্রধান শিক্ষক কি করেছেন তা আমার জানা নেই। এবিষয়ে ঐ স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা শেফালী রাণী রায়ের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার স্বপন কুমার দাসের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, স্কুল ভিজিটের সময় শহীদ মিনারসহ কাজগুলো দ্রুত বাস্তবায়ন করার জন্য প্রধান শিক্ষককে নির্দেশ দিয়েছিলাম। প্রধান শিক্ষক এক সপ্তাহের মধ্যে শহীদ মিনার তৈরী করতে চেয়েছেন। কিন্তু তেমন কোন অগ্রগতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে না।