রাজাকার মুক্তিযোদ্ধা হতে না পেরে সাংবাদিককে প্রাননাশের হুমকী

৪:৩২ অপরাহ্ন | শনিবার, ফেব্রুয়ারী ৪, ২০১৭ দেশের খবর, রংপুর

ফয়সাল শামীম, নিজস্ব প্রতিবেদক: কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে মুঠোফোনে দৈনিক ইনকিলাব প্রতিনিধিকে প্রাননাশের হুমকী। জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় জিডি করেন। জিডি নং-১১৭।

humki

জানা গেছে, নেওয়াশী মহাবিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের শিক্ষক ও দৈনিক ইনকিলাব নাগেশ্বরী প্রতিনিধি মুহাম্মদ রফিকুল ইসলাম গত ২ ফেব্রুয়ারী মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাই চলাকালীন সময়ে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তালিকাভূক্ত হতে কাগজপত্র নিয়ে স্বাক্ষাতকার দিতে আসা জনৈক রাজাকারকে দেখে তার ফেসবুক আইডিতে একটি মন্তব্য পোষ্ট করেন। সেখানে তিনি লেখেন ‘আজ নাগেশ্বরীতে দেখতে পেলাম মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় নাম অন্তর্ভূক্ত করার জন্য এক রাজাকার স্বাক্ষাতকার দিতে দাঁড়িয়ে আছেন। হয়তো টাকার বিনিময়ে ওই রাজাকার হয়ে যাবে মুক্তিযোদ্ধা। তখন আমাদের স্বাধীনতা নির্ভতে কাঁদবে। এর জন্য দায়ী কে বলুনতো?’।

রফিকুল ইসলাম জানান, এর পরদিন রাত ৮.৫৫ মিনিটে অজ্ঞাতনামা এক ব্যাক্তি +৬০১১৩১৩৫০৫৩৪ হতে তার মুঠোফোনের ০১৭৪৯৬৯১৭৯৯ নম্বরে ফোন করে কেন আমি এ লেখাটি পোষ্ট করেছি তা জানতে চেয়েই অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে প্রানে মেরে ফেলার হুমকি দেন। বিষয়টি তিনি তাৎক্ষনিক উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাই কমিটির সদস্য সচিব আবু হায়াত মোঃ রহমতুল্লাহকে জানিয়ে প্রানের নিরাপত্তা চেয়ে রাতেই নাগেশ্বরী থানায় একটি জিডি করেন। যার নম্বর ১১৭।

নাগেশ্বরী থানার এস আই সারোয়ার পারভেজ সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, গুগল সার্চ দিয়ে জানা যায় এ ফোন কলটি মালয়শিয়া থেকে এসেছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাই কমিটির সদস্য সচিব আবু হায়াত মোঃ রহমতুল্লাহ বলেন, তিনি বিষয়টি আমাকে জানিয়েছে। আমি তাকে থানায় অবহিত করতে বলেছি।