‘বাবার রেখে যাওয়া অসমাপ্ত কাজগুলো আমি শেষ করবো’

১১:৪৮ পূর্বাহ্ন | রবিবার, ফেব্রুয়ারী ৫, ২০১৭ Breaking News, জাতীয়, স্পট লাইট

সময়ের কণ্ঠস্বর – বাবার আদর্শেই নিজেকে গড়ে তুলবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন সদ্যপ্রয়াত আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও সাংসদ সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের বড় ছেলে সৌমেন সেনগুপ্ত।

রোববার (৫ ফেব্রুয়ারি) ল্যাবএইড হাসপাতাল থেকে সুরঞ্জিত সেনের মরদেহ তার জিগাতলা বাসভবনে পৌঁছানোর পর গণমাধ্যমের সাথে আলাপকালে বড় ছেলে সৌমেন সেনগুপ্ত এই আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, ‘আমার বাবা মারা গেছেন। এখন আমাদের অভিভাবক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাবার আদর্শেই নিজেকে গড়ে তুলবো এবং আমার বাবার রেখে যাওয়া অসমাপ্ত কাজগুলো আমি শেষ করবো।’

তিনি আরও জানান, আগামীকাল সোমবার সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে তার বাবার শেষকৃত্য অনুষ্ঠিত হবে।

জিগাতলায় আওয়ামী লীগের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মী সুরঞ্জিত সেনগুপ্তকে শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন।

soumen

আজ ভোর ৪টা ২৪ মিনিটে আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রণালয়-সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত মারা যান। রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭১ বছর।

সুনামগঞ্জের এ সংসদ সদস্যকে গতকাল রাত থেকে হাসপাতালেই লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছিলো। তার মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গভীর শোক প্রকাশ করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার ফুসফুসের সমস্যার জন্য রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল সুরঞ্জিত সেনগুপ্তকে। শনিবার রাতে শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটায় তাঁকে প্রথমে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) নেওয়া হয়। পরে রাতেই তাঁকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছিল।

সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের মরদেহ শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য দুপুর ১২টায় ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির ও বিকেল ৩টায় সংসদ ভবনে নেওয়া হবে।

এ ছাড়া আগামীকাল সোমবার সকাল ৯টায় মরদেহ যাবে সিলেটে। সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত সেখানে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে। বেলা ১১টায় মরদেহ যাবে সুনামগঞ্জ। এরপর সেখান থেকে মরদেহ তাঁর নির্বাচিত এলাকা দিরাই ও শাল্লায় নেওয়া হবে। সেখানে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তাঁর শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী দিরাইয়ে সমাহিত করা হবে।