সংবাদ শিরোনাম

বাংলাদেশকে তিস্তার পানি না দেয়ার সাফ ঘোষণা মমতারশ্বশুরবাড়ি যাওয়ার আগে কাঁদতে কাঁদতেই মারাই গেলেন কনে!এবার ‘টোকাই’ হয়ে আসছেন হিরো আলমহাসপাতালের ওষুধ পাচারের ছবি তোলায় ১০ সংবাদকর্মী তালাবদ্ধবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ স্বাধীনতার প্রকৃত ঘোষণা: প্রধানমন্ত্রীনির্মাণকাজ শেষের আগেই ‘মডেল মসজিদের’ বিভিন্ন স্থানে ফাটলআহসানউল্লাহ মাস্টারসহ ১০ ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠান পাচ্ছেন স্বাধীনতা পুরস্কারঐতিহাসিক ৭ মার্চের সুবর্ণ জয়ন্তী: টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে মানুষের ঢলচট্টগ্রাম কারাগারে হাজতি নিখোঁজ, জেলার-ডেপুটি জেলার প্রত্যাহারদেবীগঞ্জে ট্রাক্টরের চাপায় মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু

  • আজ ২২শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

টাইগারদের পারফরম্যান্স নিয়ে ব্যঙ্গ করে যা লিখলো ভারতীয় গণমাধ্যম

১০:৫৯ পূর্বাহ্ন | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী ৭, ২০১৭ খেলা, স্পট লাইট

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক- ভারতীয় ‘এ’ দলের বিপক্ষে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে মুশফিক বাহিনীর স্ট্রাইকিং বোলারদের অসহায়ত্ব সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। প্রশ্ন উঠেছে বাংলাদেশ বোলারদের সামর্থ নিয়ে। বিরাট কোহলিদের কীভাবে বাধবেন শুভাশিস-তাসকিনরা সেই প্রশ্নই এখন মাথার ব্যাথা হয়ে উঠেছে।

‘এ’ দলের বিপক্ষে টাইগারদের পারফরম্যান্স নিয়ে ব্যঙ্গ করতে ছাড়েনি ভারতীয় গণমাধ্যম।

bd-up3প্রস্তুতি ম্যাচ নিয়ে এবেলা ডট ইন তাদের শিরোনামে বলেছে ‘কোহলিদের বিরুদ্ধে টেস্টের আগেই ফ্যাকাশে বাংলাদেশ। নাকানি-চোবানি খেলেন মুশফিকুররা’।

এই প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘কোথায় হারিয়ে গেল সেই তর্জন-গর্জন? প্রথম টেস্টের বল গড়ানোর আগে থেকেই হুঙ্কার, ঢক্কানিনাদ ভেসে আসছিল বাংলাদেশের সাজঘর থেকে। কথায় বলে, ফোঁপরা ঢেকির গুমর বেশি। দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা বাংলার এই প্রবাদ সত্যি প্রমাণ করল বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

হায়দরাবাদে প্রথম টেস্টের আগে বাংলাদেশের চিন্তা বাড়ল বই তো কমল না। টেস্টের আগে বড় সড় ধাক্কা খেলেন মুশফিকুর রহিমরা। বোলিং নিয়ে রীতিমতো চিন্তায় থাকল বাংলাদেশ শিবির। ভারতীয় ‘এ’ দলই যদি বাংলাদেশের বোলারদের শিক্ষানবিশের পর্যায়ে নামিয়ে আনতে পারে, তাহলে বিরাট কোহলিদের হাতে যে নাস্তানুবাদ হতে হবে, এ কথা বলার আর অপেক্ষা থাকে না। দেওয়াললিখন কি এতক্ষণে পড়ে ফেলেছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা?’

প্রতিবেদনে আরও উল্লেখ করা হয়, ‘ম্যাচ না-হয় নিষ্ফলা ড্র হয়েছে। কিন্তু বাংলাদেশ যে নির্বিষ তা কিন্তু টেস্ট শুরুর আগেই প্রমাণিত। অবশ্য খেলাটার নাম যে আবার ক্রিকেট। যে কোনও মুহূর্তে ম্যাচের রং বদলে যেতে পারে।’