সংবাদ শিরোনাম

নাসিরের স্ত্রী তামিমার সাবেক স্বামীর হাইকোর্টে রিটজনগণের জন্য কৃত্রিম দরদ দেখাচ্ছে বিএনপি: কাদেরযেকোনো পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের পাশে থাকবে ভারত: জয়শঙ্করক্ষমতায় টিকে থাকতেই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন: ফখরুলঅবৈধভাবে যারা ক্ষমতায় বসে তারাই দেশকে অস্থিতিশীল করে: প্রধানমন্ত্রীকারখানার বর্জ্যের ট্যাংকিতে পড়ে মা-ছেলেসহ তিনজনের মৃত্যুশরীয়তপুরে বিচারপ্রার্থী‌কে লাঞ্চিত করার অ‌ভি‌যো‌গে ডি‌বি কর্মকর্তা বরখাস্তভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শঙ্কর ঢাকায়মিয়ানমারে বৃষ্টির মতো গুলি, ঝরে গেল ৩৮ প্রাণকক্সবাজারে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক ব্যবসায়ী নিহত, অস্ত্র ও ইয়াবা উদ্ধার

  • আজ ১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

রাতের আঁধারে সিধ কেটে ঘরে ঢুকে মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীকে ধর্ষণ, অতঃপর নির্মমভাবে হত্যা

১১:২৭ পূর্বাহ্ন | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী ৭, ২০১৭ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- সিধ কেটে ঘরে ঢুকে মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীকে ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের সোনারপুরের লস্করপুর লেনিন নগরে। সোমবার সকালে পড়ার ঘর থেকে তার রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায় আটক করা হয়েছে এক নাবালককে।

image_248940.rape_2_1-655x360প্রীতি বসাক নামে ওই কিশোরী সোনারপুরের লস্করপুরে তার দিদার বাড়িতে থাকত। রবীন্দ্র বিদ্যাপীঠে পাঠরত এই ছাত্রী এবারের মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী। প্রীতি যে ঘরে থাকত তার পাশের ঘরে থাকতেন তাঁর দিদিমা। সোমবার সকালে তিনি ঘুম থেকে উঠে দেখেন প্রীতির ঘরের দরজা ভাঙা। ঘরের ভেতরে বিছানায় প্রীতির রক্তাক্ত দেহ দেখতে পেয়ে তিনি পুলিশ খবর দেন।

জানা গেছে, প্রীতির যখন দু’বছর বয়স তখন তার মা মঞ্জু বসাক মারা যান। দিদিমা পারুল সর্দারের কাছেই থাকত প্রীতি। তার বাবা শিবমবাবুর একটি মিষ্টির দোকান রয়েছে লস্করপুরে। সম্প্রতি স্থানীয় তাপস দাস নামে এক যুবকের সঙ্গে পরিচয় হয় প্রীতির। শিবমবাবুর দোকানের পাশেই থাকেন তাপস।

পুলিশের অনুমান তাপস এই খুনের ঘটনার সঙ্গে জড়িয়ে থাকতে পারে। এ ঘটনায় তাঁকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। পুলিশ জানিয়েছে তাপস কিছুদিন আগে প্রীতির বাড়ি গিয়েছিল। যেহেতু দরমার দেওয়াল এবং মাটির সংযোগস্থলে সিধ কেটে ওই দরমার ঘরে দুষ্কৃতিরা ঢুকেছিল তাই সন্দেহ করা হচ্ছে চেনা কোনো লোকের কাজই হবে।

প্রীতির দিদিমা পারুলদেবী জানিয়েছেন, যে তাঁর ঘরের লাগোয়া একটি দরমার ঘরে প্রীতি রোজ রাতে পড়াশোনা করত। সামনেই মাধ্যমিক পরীক্ষা ছিল তার। রোববার রাত ১২টা নাগাদ তিনি যখন উঠেছিলেন তখনও দেখেছেন নাতনি পড়াশোনা করছে। এর পরেই সকালবেলা আশপাশের লোকজন দেখেন দরমার দেওয়ালের নিচের দিকে অনেকটা গর্ত করা রয়েছে।

ভেতরে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে প্রীতি। ভারি কিছু দিয়ে তার মাথা থেঁতলে দেয়া হয়েছে। তার সাইকেলটা চাপা রয়েছে তার দেহের ওপর। সাইকেলটির সিট পাওয়া যায়নি। পুলিশ জানিয়েছে প্রীতির মোবাইল ফোনটিও পাওয়া যাচ্ছে না।

এই ব্যাপারে তাপসকে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানার চেষ্টা চলছে। সেই প্রীতিকে ধর্ষণ করে খুন করেছে কি না তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।