সংবাদ শিরোনাম

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে পরিবর্তনের ইঙ্গিত আইনমন্ত্রীরপঞ্চম দফায় স্বেচ্ছায় ভাসানচর যাচ্ছেন আরও ৩ হাজার রোহিঙ্গাআল-জাজিরার বিরুদ্ধে ৫০০ মিলিয়ন ডলার ক্ষতিপূরণের মামলারাজশাহীতে বিএনপির সমাবেশ আজ, সব রুটের বাস বন্ধনিষেধাজ্ঞা পৌঁছানোর ৫২ মিনিট আগে বেনাপোল দিয়ে ভারতে পালান পি কে হালদার৮ম শ্রেণি পাস করে ‘ডাক্তার’, চেম্বার খুলে দেখছেন রোগী!বাংলাদেশের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পুনর্বিবেচনার আহ্বান জাতিসংঘেরফুলবাড়ীতে টিভি দেখার প্রলোভনে প্রতিবন্ধী শিশুকে বলাৎকারআল-জাজিরা একটা নাটক লিখেছে, যা বেমানান: পররাষ্ট্রমন্ত্রীসিএমপিতে ৮ পুলিশ কর্মকর্তার দফতর বদল

  • আজ ১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

রাণীনগরে জনপ্রিয় একটি স্কুলের নাম কৃষক মাঠ স্কুল,শিক্ষার্থী এলাকার কৃষক-কৃষাণী

৭:৩১ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ৯, ২০১৭ দেশের খবর, রাজশাহী

dsf


নাজমুল হক নাহিদ, নওগাঁ প্রতিনিধি:

নওগাঁর রাণীনগরে ইন্টিগ্রেটেড ফার্ম ম্যানেজমেন্ট কম্পোনেন্ট (আইএফএমসি) প্রকল্পের আওতায় উপজেলার ৬টি ইউপি’র আইএফএমসি কৃষক মাঠ স্কুলের প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠছেন উপজেলার শত শত কৃষক-কৃষাণীরা। তারা এই স্কুল থেকে আধুনিক কৃষি প্রযুক্তির উপড় প্রশিক্ষণ নিয়ে প্রয়োগ করছেন বাস্তব জীবনে। তাই এই স্কুলটি কৃষি প্রযুক্তির আলো ছড়িয়ে যাচ্ছে প্রত্যন্ত এলাকার কৃষকদের মাঝে।

গ্রামের কৃষক সমাজে এখন এই কৃষক মাঠ স্কুলটি খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। তারা এই স্কুল থেকে হাতে-কলমে বাস্তব শিক্ষা গ্রহণ করছে আর কৃষি অফিসের সার্বিক সহযোগিতায় প্রয়োগ করছেন তাদের বাস্তব জীবনে। উন্নত হচ্ছে গ্রাম অঞ্চলের কৃষি সমাজ ব্যবস্থা। বদলে যাচ্ছে বাপ-দাদার আমলের কৃষি ব্যবস্থার পদ্ধতি। বেকার যুব সমাজ আধুনিক কৃষি প্রযুক্তি প্রয়োগ করে খুঁজে পাচ্ছে তাদের কর্মসংস্থানের নতুন নতুন পথ।

কৃষি অফিস সূত্রে জানা, উপজেলায় ইন্টিগ্রেটেড ফার্ম ম্যানেজমেন্ট কম্পোনেন্ট (আইএফএমসি) প্রকল্পের আওতায় ৬টি ইউনিয়নে চলতি রবি মৌসুমে এই আইএফএমসি কৃষক মাঠ স্কুল চলছে। উপজেলার খট্টেশ্বর রাণীনগর ইউপি’র খাগড়া গ্রামে, কাশিমপুর ইউপি’র কুজাইল দক্ষিণ পাড়া গ্রামে, গোনা ইউপি’র কৃষ্ণপুর গ্রামে, বড়গাছা ইউপি’র মালশন গ্রামে, একডালা ইউপি’র পাকুরিয়া গ্রামে ও মিরাট ইউপি’র হরিশপুর গ্রামে এই স্কুল চলমান। প্রতিটি স্কুলে সপ্তাহে ২ দিন করে ২৫টি কৃষক পরিবারের ২৫ জন কৃষক ও ২৫জন কৃষাণীসহ মোট ৫০ জন কৃষক-কৃষাণীরা বিকাল করে এই স্কুলে এসে কৃষি বিষয়ে শিক্ষা গ্রহণ করছে।

তারা বসত বাড়িতে সবজি চাষ, ফল গাছের পরিচর্যা, আধুনিক পদ্ধতিতে ধান চাষ, গবাদি পশু পালন, মাছ চাষসহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করছেন। বিভিন্ন আবাদ ও গবাদিপশুর রোগবালাই সম্পর্কে করণীয় বিষয় সমূহ এই স্কুলের মাধ্যমে শিখতে পারছে। এই স্কুলের শিক্ষার্থীদের পাঠ দানের জন্য কৃষি বিভাগ থেকে প্রদান করা হয়েছে বই, খাতা ও কলম। প্রতিটি স্কুলে কৃষি বিষয়ে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত বেকার যুবক ও মেয়েরা শিক্ষার্থীদের মাঝে পাঠদান করে আসছে।

কৃষ্ণপুর গ্রামের কৃষক মাঠ স্কুলের শিক্ষার্থী মোছা: ছখিনা বিবি জানান, আমরা বই ও খাতা নিয়ে আনন্দের সঙ্গে এই স্কুলে পাঠ গ্রহণের জন্য আসি। আমরা এখান থেকে কৃষি বিষয়ে অনেক কিছু জানতে পেরেছি যা পূর্বে আমাদের অজানা ছিল।

কুজাইল গ্রামের কৃষক মাঠ স্কুলের শিক্ষার্থী মো: আবুল হোসেন জানান, আমরা এই স্কুলে এসে অনেক উপকৃত হচ্ছি। এই রকম স্কুল যেন বন্ধ না হয়। আমরা আধুনিক কৃষি প্রযুক্তি সম্পর্কে আরো অনেক কিছু জানতে চাই।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ এসএম গোলাম সারওয়ার জানান, আধুনিক কৃষি পদ্ধতি ও প্রযুক্তি গ্রামের কৃষকদের কাছে পৌছে দেওয়ার জন্যই বর্তমান সরকার এই প্রকল্পটি হাতে নিয়েছেন। এই স্কুলের মাধ্যমে কৃষক পরিবার আধুনিক কৃষি প্রযুক্তি ও পদ্ধতি সম্পর্কে হাতে-কলমে বাস্তব শিক্ষা গ্রহণ করতে পারছেন।