দলীয় সভায় এরশাদের সামনেই ‘অপমাণিত’ হলেন রওশন এরশাদ!

৩:৫২ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ৯, ২০১৭ Uncategorized

সময়ের কণ্ঠস্বর – জাতীয় পার্টির যৌথ সভায় সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ‘হই হই হই’ উচ্চশব্দ করে দলীয় সভায় আবারও অপমাণিত হলেন রওশন এরশাদ।

রাজধানী ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে বৃহস্পতিবার দুপুরে কেন্দ্রীয় কমিটি, জেলা কমিটি ও উপজেলা কমিটির যৌথ সভায় এই ঘটনা ঘটে।

সকাল সাড়ে ১০ টায় শুরু হওয়া যৌথ সভায় দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বক্তব্য রাখেন। সে সময় রওশন এরশাদ সভা কক্ষে উপস্থিত ছিলেন না। এরপর দুপুর ১টার দিকে রওশন এরশাদ সভায় যোগ দেন এবং এরশাদের পাশের চেয়ারে বসেন।

পরবর্তীতে রওশন এরশাদ মঞ্চে বক্তব্য দেওয়া শুরু করেন। এক পর্যায়ে রওশন এরশাদ তার বক্তব্যে রংপুরের নির্বাচন নিয়ে আলোচনা করেন এবং বলেন, কেন প্রার্থীকে বসিয়ে দেওয়া হলো। তিনি বলেন, সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর অটল থাকতে হবে। তা না হলে পার্টিতে দ্বন্দ্ব দেখা দেবে।

এরপর তিনি বলেন, ‘আমাদের অনেক সমস্যা আছে কেউ তা শুনতে চায় না’। এমন কথা উচ্চারণ করার সাথে সাথে হল রুমের মধ্যে উচ্চস্বরে হই হই হই করে ওঠেন ছাত্র সমাজ ও যুব সংহতির নেতাকর্মীরা।

rouson ershad

অল্প সময় নিজের বক্তব্য বন্ধ রাখেন রওশন এরশাদ। এ সময় মঞ্চ থেকে অনেকেই হাত দিয়ে ইশারা করে সবাইকে শান্ত হতে বলেন।

এর কিছু সময় পরেই রওশন এরশাদ বলেন, ‘যুব সংহতি ও ছাত্র সমাজের কি সমস্যা। আপনাদের কোনো সমস্যা থাকলে আমাকে বলেন। আমার বাসায় আসেন, সংসদে আমার সাথে দেখা করেন। এভাবে আচরণ করলে দলের ক্ষতি হবে। আপনারা আগামী দিনে এই পার্টির নেতৃত্ব দিবেন, আমাদের সময় শেষ। এভাবে করবেন না। শান্ত হন আপনারা। যে ধরনের সমস্যা আছে আমাকে জানান। আমি সবার কথা শুনব।’

এ সময় দলের নেতাকর্মীদের শান্ত করার জন্য রওশন এরশাদ কাজী নজরুল ইসলাম ও রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের দুটি কবিতা আবৃত্তি করেন কর্মীদের উদ্দেশ্যে।

রওশন এরশাদ কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘৪টি জাতীয় নির্বাচনের ৩টি আমি একা দায়িত্ব নিয়ে করেছি। তোমাদের স্যার সে সময় জেলে ছিলেন। অনেক হামলা, ককটেলের সম্মুখীন আমি হয়েছি। এসব ইতিহাস তোমাদের জানতে হবে। উত্তেজিত হবে না। আমার সাথে কথা বলো। তোমাদের সমস্যার সমাধান করব।’

এর আগে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সভাপতির বক্তব্যে বলেন, আমাদের কোন বন্ধু নেই। আমরাই আমাদের বন্ধু। নিজেদের শক্তিশালী করুন। দুর্বলের কাছে কেউ আসে না।

তিনি বলেন, আমার চাওয়া পাওয়ার কিছু নেই। শুধু দেখতে চাই জাতীয় পার্টি প্রতিষ্ঠিত।

এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন দলটির কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের, মহাসচিব রুহুল আমীন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য সাইদুর রহমান টোপা, অ্যাডভোকেট শেখ সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ।