সংবাদ শিরোনাম

বাংলাদেশকে তিস্তার পানি না দেয়ার সাফ ঘোষণা মমতারশ্বশুরবাড়ি যাওয়ার আগে কাঁদতে কাঁদতেই মারাই গেলেন কনে!এবার ‘টোকাই’ হয়ে আসছেন হিরো আলমহাসপাতালের ওষুধ পাচারের ছবি তোলায় ১০ সংবাদকর্মী তালাবদ্ধবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ স্বাধীনতার প্রকৃত ঘোষণা: প্রধানমন্ত্রীনির্মাণকাজ শেষের আগেই ‘মডেল মসজিদের’ বিভিন্ন স্থানে ফাটলআহসানউল্লাহ মাস্টারসহ ১০ ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠান পাচ্ছেন স্বাধীনতা পুরস্কারঐতিহাসিক ৭ মার্চের সুবর্ণ জয়ন্তী: টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে মানুষের ঢলচট্টগ্রাম কারাগারে হাজতি নিখোঁজ, জেলার-ডেপুটি জেলার প্রত্যাহারদেবীগঞ্জে ট্রাক্টরের চাপায় মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু

  • আজ ২৩শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ইয়াঙ্গুনে পৌঁছে ফের বৌদ্ধদের বিক্ষোভের মুখে পড়েছে রোহিঙ্গাদের জন্য পাঠানো মালয়েশিয়ার ত্রানবাহী জাহাজ

১১:১১ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ৯, ২০১৭ Breaking News, আন্তর্জাতিক, স্পট লাইট

আন্তর্জাতিক আপডেট ডেস্ক –

অসহায় ও নির্যাতিত  কয়েক হাজার রোহিঙ্গা মুসলিমকে সহায়তা দিতে মালয়েশিয়ার একটি ত্রাণবাহী জাহাজ মিয়ানমারের ইয়াঙ্গুনে পৌঁছেছে আজ বৃহস্পতিবার । মালয়েশিয়ার ত্রাণবাহী ঐ জাহাজটি  রাখাইনের রাজধানী সিট্টওয়ে’তে প্রাথমিকভাবে নোঙ্গর করতে চাইলে তাতে বাঁধা দেয়  সেখানকার স্থানীয়  প্রশাসন ও বৌদ্ধরা । পরে সেটি ইয়াঙ্গুনে পৌঁছেছে।  ত্রানবাহী এই জাহাজটি ইয়াঙ্গুনে  পৌছাবার পর  একইভাবে মিয়ানমারের বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের প্রতিবাদের মুখে পড়েছে।

মিয়ানমারের বাণিজ্যিক রাজধানী থিলাওয়া বন্দরে পৌঁছানো মালয়েশিয়ার ওই জাহাজে রোহিঙ্গা মুসলমানদের জন্য প্রয়োজনীয় খাবার, ওষুধ ও পোষাক রয়েছে। এদিকে জাহাজটি পৌছাবার পর দেশটির সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নেতৃত্বাধীন একটি প্রতিনিধিদল জাহাজে মালোয়শিয়ান কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন।

এ সময় জাহাজ নোঙ্গর এলাকায় জাতীয় পতাকা হাতে বৌদ্ধ সন্ন্যাসী ও বিক্ষোভকারীরা বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দেন। অনেকের হাতে রোহিঙ্গাবি রোধী পোস্টারও দেখা যায়।

মিয়ানমারের ভিক্ষু ইউনিয়নের নেতা থুসেইট্টা বার্তাসংস্থা এএফপিকে বলেন, আমরা তাদেরকে বলতে চাই যে, আমাদের এখানে কোনো রোহিঙ্গা নেই।

গত বছরের অক্টোবরে মিয়ানমার সীমান্তে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর চেকপোস্টে সন্ত্রাসী হামলায় ৯ পুলিশ সদস্যের মৃত্যুর পর রোহিঙ্গাবিরোধী অভিযান শুরু করে সেনাবাহিনী। জাতিসংঘ রাখাইনে সেনাবাহিনীর অভিযানকে ‘রোহিঙ্গা নিধন’র চেষ্টা বলে সতর্ক করে দিয়েছে।

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর কঠোর অভিযানের মুখে ৬০ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়েছে। রোহিঙ্গারা বলছেন, রাখাইনে সেনাবাহিনীর বর্বর নির্যাতন, ধর্ষণ ও গণহত্যার শিকার হচ্ছেন তারা।

রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মিয়ানমারের অভিযানের তীব্র প্রতিবাদ দেখা গেছে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার আঞ্চলিক জোট এশিয়ানভূক্ত দেশগুলোর মধ্যে। মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক মিয়ানমার সেনাবাহিনীর অভিযানের কেঠোর সমালোচনা করছেন।

উল্লেখ্য, কয়েক প্রজন্ম ধরে বসবাস করে এলেও লাখ লাখ রোহিঙ্গা মুসলিমকে নাগরিকত্ব দেয়নি মিয়ানমার। দেশটির কট্টরপন্থী বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা মনে করেন, রোহিঙ্গা বাংলাদেশ থেকে পালিয়ে আসা অবৈধ অভিবাসী।