🕓 সংবাদ শিরোনাম

উত্তরবঙ্গ থেকে ঢাকাগামী ৫১টি বাস আটকে দিল পুলিশ‘করোনার ভারতীয় ধরন শনাক্ত বিপদজনক ভবিষ্যতের পূর্ভাবাস’কুতুপালং শিবিরে রোহিঙ্গা নেতার বাসা থেকে অস্ত্র-গুলি উদ্ধারহাজারো যাত্রী নিয়ে বাংলাবাজার ঘাটে ফেরি শাহপরাণ, ঘাট ম্যানেজারের অস্বীকার‘একটা ঈদ বাড়িতে না করলে কী হয়?’কক্সবাজারে অস্ত্র-গুলিসহ ৩ সন্ত্রাসী গ্রেফতারঝালকাঠির কলেজ ছাত্রী সুমাইয়া হত্যার বিচার দেখে মরতে চায় বাবা!সৌদিতে বাংলাদেশিসহ সকল প্রবাসীদের করোনা ভেকসিন বাধ্যতামূলক করা হয়েছেকরোনায় বেসামাল ভারত, একদিনে আরও ৪০৯২ জনের মৃত্যুচীনা রকেটের সেই ধ্বংসাবশেষ আছড়ে পড়লো মালদ্বীপের কাছে

  • আজ রবিবার,২৬ বৈশাখ, ১৪২৮ ৷ ৯ মে, ২০২১, বিকাল ৪:২৯

কাউকে প্রতিশ্রুতি দেওয়ার জন্যই কি ‘প্রমিস ডে’?

❏ শনিবার, ফেব্রুয়ারী ১১, ২০১৭ লাইফস্টাইল, স্পট লাইট

সম্পাদনা, রবিউল ইসলাম (রবি), নিউজ রুম এডিটর, লাইফস্টাইল ফিচার ডেস্ক–

ভালেন্টাইন’স ডে পঞ্জিকার সব থেকে সুন্দর দিন বোধ হয় আজ শনিবার। এদিন হল প্রমিস ডে। প্রতি বছর ১১ ফেব্রুয়ারি পালন করা হয় এই প্রমিস ডে। প্রেমের সপ্তাহের পঞ্চম দিন উদ্‌যাপন করা হয় এই দিনটি। সম্পর্কে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল প্রতিশ্রুতি। প্রেমের শুরু থেকে শেষ দিন পর্যন্ত অনেক কিছু বদলালেও প্রতিশ্রুতিগুলো কিন্তু থেকেই যায়।

আজ প্রেমিক, প্রেমিকারা একে অপরকে প্রতিশ্রুতি দেবে। বলবে, ‘আমি কোনও দিনও তোমায় ছেড়ে যাব না।’ এ বার যে বলবে, সে গত বারের ভ্যালেন্টাইন্স ডে-তে একই কথা অন্য কাউকে বলেছিল কিনা কে জানে! যাকে কথা দিয়েও কথা রাখা হয়নি সে কি সত্যিই এ বারের প্রমিস ডের দিনে কারও ‘প্রমিস’ বিশ্বাস করবে?

relationship-commitment-1415473সে যাই হোক, এটাই একমাত্র শুভ দিন যখন দামি দামি উপহার দিয়ে দেওয়া যায় এক পয়সাও খরচ না করে। কথাতেই তো রয়েছে— ‘মুখের কথায় পয়সা লাগে না।’ এক গোছা গোলাপ দিলে শুকিয়ে যাবে, ডায়মন্ড রিং চুরির ভয় রয়েছে। কিন্তু প্রতিশ্রুতি দিন বিনা পয়সায়। শুকিয়ে যাতে না যায় তার যত্ন নিতে পারবেন আপনিই। প্রতিশ্রুতিদাতা ছাড়া আর কেউ তো চুরিও করতে পারে না এই মহাধন।

ভালবাসা আদায় করার জন্য প্রমিস করার সময়ে একদম কার্পণ্য করতে নেই। এক দমে দিয়ে দিন এক গোছা প্রতিশ্রুতি—বিপদের মুখে তোমায় ফেলে চলে যাব না। সুখে-দুখে থাকব তোমার পাশে। যে কোনও মূল্যে তোমায় রাখব সুখে, আনন্দে। সব সময় আমি তোমার প্রতি সত্ এবং বিশ্বস্ত থাকব। আমাদের সম্পর্কের মাঝে কোনও মিথ্যে, ছলচাতুরিকে রাখব না। তোমায় কখনও কষ্ট দেব না। দেব না কোন মানসিক আঘাত ইত্যাদি, ইত্যাদি।

একটা সময় ভ্যালেন্টাইন্স ডে ছিল না। কিস ডে ছিল না। চকলেট ডে ছিল না। ছিল না প্রোপোজ ডেও। কিন্তু প্রেম ছিল। দুনিয়াকে উলট পালট করা প্রেম ছিল। হুম…খাটি প্রেম ছিল। গভীর ভালোবাসা ছিল। বিশুদ্ধ বিশ্বাস ছিল। একে অপরের প্রতি প্রচণ্ড আস্থা ছিল। নির্ভরতা ছিল। প্রকাশ ছিল কম অথচ অনুভব ছিল সুগভীর।

যুগ পাল্টে গেছে। পাল্টে গেছে মানুষগুলোও। সাথে চিন্তা ধারাও। আধুনিকতার ছোঁয়া লেগেছে আমাদের জীবনে। আর তাই তো এখন ভালোবাসাকে ঘিরে আয়োজন অনেক, যা প্রয়োজনের থেকেও বেশি ।

সপ্তাহের সাত বা বছরের প্রতিটি দিন; নির্দিষ্ট কোনো দিন-তারিখ হিসাব করে নয়। বছরের প্রতিটি দিন ভালোবাসার দিন। প্রতিটি সময় ভালোবাসার। ঠিক তেমনি ভালোবাসার দিন ১৪ ফেব্রুয়ারি ধরেও সারাবছর আমরা ভালোবাসায নিমজ্জিত থাকি। তেমনি ১১ ফেব্রুয়ারি ভালোবাসার সপ্তাহের মধ্যে প্রমিজ ডে। এই প্রমিজ বা ওয়াদা শুধু এই সপ্তাহের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকা নয়। কমিটমেন্ট বছর জুড়েই থাক। একে-অপরের প্রতি।

আসলে প্রিয়জনকে আমরা অনেক কথাই দিয়ে থাকি, কিন্তু তার সবই রাখা হয়ে উঠে না, অনেক সময় মনেই থাকে না। তাহলে একবার ভাবুন তো, আপনার কাছের মানুষটির কাছে আপনার মূল্য দিন দিন কমে যাচ্ছে না তো? সম্পর্কের এই দিকটির বিবেচনা করেই প্রমিস ডে।

কিন্তু ‘প্রমিস ডে’ কি আদৌ কাউকে প্রতিশ্রুতি দেওয়ার জন্য? নাকি নিজের কাছেই নিজেকে প্রমিস করার দিন?