সংবাদ শিরোনাম

পণ্যবাহী ট্রাক-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১খালেদার জিয়ার শারীরিক অবস্থার উন্নতি নেই, হয়নি বিদেশ যাওয়ার সিদ্ধান্তওপ্রধানমন্ত্রী কোরআন-সুন্নাহর বাইরে কিছু করেন না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীমির্জাপুরে গণহত্যা দিবস উপলক্ষে মোমবাতি প্রজ্জ্বলনশনিবার থেকে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনাস্পুটনিক-৫ টিকা একে-৪৭’র মতো নির্ভরযোগ্য: পুতিনডোপটেস্টো রিপোর্ট: স্পিডবোটের চালক শাহ আলম মাদকাসক্তচাঁদপুরে ঐতিহাসিক বড় মসজিদে লক্ষাধিক মুসল্লির সালাতে ‘জুমাতুল বিদা’ রাঙামাটিতে ডিবির অভিযানে ইয়াবাসহ দুই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী আটক! আনসার ব্যাটালিয়ান সদস্যদের সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষ : নারীসহ ৯জন আহত

  • আজ ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদকের নীল দল থেকে পদত্যাগ

১:০৬ অপরাহ্ন | রবিবার, ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০১৭ শিক্ষাঙ্গন

বেরোবি প্রতিনিধি: রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানী তার নীল দলের সভাপতি ও সদস্যের পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন। শনিবার রাতে এক মুঠোফোনে পদত্যাগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তিনি। তবে পদত্যাগপত্র জমার বিষয়ে দলটির সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আহমেদ চৌধুরীকে ফোন করলে তার মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

brbi

পদত্যাগের কারণ জানতে চাইলে গোলাম রব্বানী বলেন, আমার বিভাগে দুইজন প্রভাষকের সহকারি অধ্যাপকে আপগ্রেডেশনের জন্য বাছাই বোর্ড হওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু আইনানুযায়ী বিভাগীয় প্রধান হিসেবে সেখানে আমার থাকার বিষয়টি মেনে না নিয়ে উপাচার্য বোর্ডটি স্থগিত করেছেন।

উপাচার্য এবং নীল দলের সদস্য হিসেবে শিক্ষক সমিতির সভাপতি তুহিন ওয়াদুদ রহস্য ও ধোঁয়াশার সৃষ্টি করে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন যে, আমার কারণেই নাকি বোর্ড অনুষ্ঠিত হওয়া সম্ভব হচ্ছে না। যেহেতু আমার দলের সদস্য এ রকম অভিযোগ করেছেন তাই ব্যর্থতার গ্লানি না নিয়ে দলটির সভাপতি ও সাধারণ সদস্যের পদ থেকে পদত্যাগ করেছি। তিনি আরো বলেন, আমি কারো বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ করছি না। তবে আমার মনে হচ্ছে এখানে শিক্ষকদের স্বার্থ রক্ষা হচ্ছে না। তাই দল থেকে পদত্যাগ করেছি।

আমি অন্যায়ের বিরুদ্ধে মাথা তুলে দাঁড়াবো। ন্যায় কথা বলতে দ্বিধাবোধ করবো না। আইন অনুযায়ী বিভাগীয় প্রধান প্রভাষক ও সহকারি অধ্যাপক পদে আপগ্রেডেশনের জন্য বাছাই বোর্ডে থাকবেন কিন্তু না রাখা হলে আমি আইনের দ্বারস্থ হবো বলে তিনি স্পষ্ট জানিয়েছেন। তবে বাছাই বোর্ড অনুষ্ঠিতের জন্য বার বার উপাচার্যকে আহ্বান করেছেন বলে জানান তিনি। বিষয়টি নিয়ে শিক্ষক সমিতির সভাপতি ডঃ তুহিন ওয়াদুদকে কয়েকবার ফোন দিলে তিনি রিসিভ করেননি। এ ব্যাপারে রাত সাড়ে আটটার দিকে উপাচার্য ডঃ একে এম নূর-উন-নবীকে ফোন করলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।