🕓 সংবাদ শিরোনাম

মুক্তি পেলেন আসামির পরিবর্তে সাজা খাটা সেই মিনুটাঙ্গাইলে নির্বাচন কর্মকর্তাসহ করোনায় আক্রান্ত ৯৫ জনবিধি-নিষেধ বাড়লো আরও এক মাস‘ত্রাণ চাই না, বাঁধ চাই’, প্ল্যাকার্ড গলায় ঝুলিয়ে সংসদে এমপি শাহজাদাকরোনায় একদিনে ৬০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত প্রায় ৪ হাজারখালেদার অসুস্থতার খবর চাপা দিতে পরীমনিকে সামনে আনা: মির্জা ফখরুলঅটোপাস পেলেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩ লাখ ১৬ হাজার শিক্ষার্থী‘আবু ত্ব-হাকে ফিরিয়ে দিন, নয়তো তার কাছে আমাকে নিয়ে যান’২০ কোটি টাকার সম্পদ আত্মসাৎ : মামুনুলসহ ৪৩ জনের বিরুদ্ধে মামলাআবু ত্ব-হার নিখোঁজের বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখছি : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

  • আজ বুধবার, ২ আষাঢ়, ১৪২৮ ৷ ১৬ জুন, ২০২১ ৷

পশ্চিমবঙ্গকে দিয়ে যদি বাকি থাকে তাহলে বাংলাদেশকে পানি: মমতা


❏ মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৫, ২০১৭ আন্তর্জাতিক, স্পট লাইট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক– ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, ‘আগে তো আমাদের বাংলার (পশ্চিমবঙ্গ) মানুষের কথা ভাবব। তারপর যদি আমাদের বাংলার মানুষ পানি পেয়ে বাকি থাকে, তবে নিশ্চয়ই বাংলাদেশকে পানি দেওয়া হবে।’

মমতাউত্তরবঙ্গ সফরকালে গতকাল সোমবার কোচবিহারে প্রশাসনিক বৈঠক শেষে সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে এই কথা পুনর্ব্যক্ত করেন মমতা।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা সবাইকে ভালোবাসি। আমরা বাংলাদেশকেও ভালোবাসি। বাংলাদেশকে তো আমরা এর আগে ফারাক্কার পানি দিয়েছি। এবার পানি দেবো না বলিনি। বলেছি, তিস্তার বদলে অন্য নদীগুলো নিয়ে আলোচনা হোক।

তিনি বলেন, আগে তো আমার বাংলার মানুষের কথা ভাবতে হবে। আমার এখানকার মানুষ পানি পেয়ে যদি বাকি থাকে, তাহলে নিশ্চয়ই বাংলাদেশকে পানি দিতে আমাদের আপত্তি থাকবে না। কিন্তু আমাদের রাজ্যের কথা, আমাদের রাজ্যের মানুষের কথা মাথায় রাখতে হবে সবার আগে।’

মমতা আরো বলেন, ‘তিস্তায় এমনিতেই পানি নেই। তাই আমাদের রাজ্যের স্বার্থ পূরণ হয়ে পানি বাঁচলে সেই পানি নিশ্চয়ই বাংলাদেশকে দেওয়া হবে।’

চলতি মাসের শুরুর দিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নয়াদিল্লি সফরের সময় তাঁকে তিস্তার বদলে বিকল্প প্রস্তাব দেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। ওই সময় শেখ হাসিনাকে মমতা বলেন, ‘তিস্তা নিয়ে আমাদেরই অনেক সমস্যা রয়েছে। আপনারা বরং তোর্সা, ধানসিঁড়ি, মানসিঁড়ির মতো উত্তরবঙ্গের অন্য নদীগুলোর পানি নিন।’

তিস্তা নিয়ে মমতার এই বিকল্প প্রস্তাব দুই দেশের শীর্ষ নেতৃত্ব আমলে নেয়নি; বরং তা উভয় দেশের শীর্ষ পর্যায়ে অস্বস্তি সৃষ্টি করে।