‘ভাইয়ের হত্যার প্রতিশোধ নিতেই দুলাভাইকে খুন করি’


❏ মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৫, ২০১৭ Breaking News, আলোচিত, দেশের খবর, বরিশাল, স্পট লাইট

এস.এম. আকাশ, মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি:

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় চাঞ্চল্যকর সাবেক সেনা সদস্য শাহীন হত্যা মামলার প্রধান আসামী দুলাভাই নাজমুল হককে শ্বশুর বাড়িতে এনে কুপিয়ে খুনের ঘটনায় শ্যালক তুহিন সরদার (২২)কে আটক করেছে থানা পুলিশ। গতকাল সোমবার গভীর রাতে উপজেলার বেতমোর রাজপাড়া ইউনিয়নের ঘোপখালী গ্রামের তার নিকট আত্মীয় জাফর ফরাজীর বাড়ি থেকে তুহিনকে আটক করা হয়।

ব্যবসায়ী নাজমুল খুনের ঘটনায় তার আপন সেঝ ভাই মিজানুর রহমান নিজাম বাদী হয়ে নাজমুলের শ্যালক তুহিন সরদারকে আসামী করে আজ মঙ্গলবার বিকেলে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। আটককৃত তুহিন উপজেলার বড়মাছুয়ার ঠুটাখালী গ্রামের আঃ রহমান সর্দার ওরফে কাঞ্চণ এর পুত্র।

মঠবাড়িয়া সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার কাজী শাহ নেওয়াজ জানান, আটককৃত তুহিন প্রাথমিক ভাবে জিজ্ঞাসাবাদে খুনের ঘটনা স্বীকার করেছে। স্বীকারোক্তিতে তুহিন বলেন, দুলাভাই নাজমুলের দ্বিতীয় বিয়ের কারনেই তিনটি সংসার তছনছ হয়ে গেছে। দ্বিতীয় স্ত্রী লাইজুকে মেনে না নেওয়ায় তার বোন হোসনেয়ারাকে (প্রথম স্ত্রী) নাজমুল দীর্ঘদিন ধরে শারীরীক ও মানষিক নির্যাতন করে আসছিল। বোনের ওপর নির্যাতনের প্রতিবাদ করায় ২০০৮ সালের ২৬ মার্চ রাতে ভাড়া কারা ডাকাত আঃ ওয়াহেদকে দিয়ে নাজমুল প্রথম স্ত্রী’র বড় ভাই সাবেক সেনা সদস্য শাহীন সর্দার খোকনকে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে। এ ঘটনায় শ্যালক শাহীনের স্ত্রী কাজল বেগম নাজমুলকে প্রধান আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করে। ওই মামলাটি বিচারাধীন থাকা অবস্থায় নাজমুল হত্যা মামলা তুলে নিতে বাদী কাজল বেগমকে চাপ প্রয়োগ করে। গতকাল সোমবার ওই মামলাটি আপোষ মিমাংসা সমঝোতা বৈঠকে নাজমুল ও নিহত শাহীনের স্ত্রী কাজলের সাথে শ্বশুর বাড়িতে বসে বাক-বিতান্ডার একপর্যায় নাজমুল পরিবারের সবাইকে পুণরায় খুনের হুমকি দেয়। এসময় পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী তুহিন ধারালো চাইনিজ কুঁঠার দিয়ে নাজমুলকে এলোপাথারি কুপিয়ে হত্যা করে।

tuhin-murder-mothbariya

তুহিন পুলিশের কাছে আরও স্বীকার করেন, ‘ভাইয়ের হত্যার প্রতিশোধ নিতে দুলাভাই নাজমুলকে দুনিয়া থেকে সরিয়ে দেই। গত কয়েক বছর ধরেই দুলাভাইকে খুন করার জন্য খুঁজে বেড়াই এবং খুনে ব্যবহৃত ওই ধারালো চাইনিজ কুঁঠারটি গত দেড় মাস আগে খুলনা থেকে ক্রয় করে আনি।’

আজ মঙ্গলবার বিকেলে নিহত নাজমুলের ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। আসর নামাজ বাদ জানাজা শেষে শাপলেজা ভাইজোড়া গ্রামের পারিবারিক কবর স্থানে তার লাশ দাফন করা হয়।

পিরোজপুরে সন্ত্রাসী হামলায় যুবকের মৃত্যু

পিরোজপুর শহরের নতুন বাসষ্টান্ড এলাকায় সন্ত্রাসী হামলায় আহত রাসেল সেখ সোমবার রাতে খুলনা আড়াইশ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। নিহত রাসেলের মামাতো ভাই আলী শেখ বিষয়টি নিশ্চিত করেন । নিহত রাসেল সেখ (৩৮) ইন্দুরকানী উপজেলা পাড়েরহাট ইউনিয়নের লাহুরী এলাকার সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুর রাজ্জাক শেখের ছেলে।

ফুপাতো ভাই আলী শেখ জানান, রাসেল সোমবার বিকেল ৫ টার দিকে পিরোজপুর শহরতলীর দক্ষিন মাছিমপুর এলাকা থেকে শহরে আসার পথে নতুন বাসষ্টান্ড এলাকায় ওৎ পেতে থাকা সন্ত্রাসীরা তার উপর হামলা চালায়। এ সময় সন্ত্রাসীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে রাসেলের মাথায়, শরীর ও হাতে-পায়ে কুপিয়ে রাস্তায় ফেলে রেখে যায়। গুরুতর আহত রাসেলকে প্রথমে পিরোজপুর সদর হাসাপাতালে নিয়ে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পেওরণ করেন। রাত ১ টার দিকে রাসেল চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। আলী জানান, খুলনায় ময়নাতদন্ত শেষে রাসেলের লাশ লাহুরীর গ্রামের বাড়ীতে এনে দাফন করা হবে।

death mothbariya

পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাসুমুর রহমান বিশ্বাস জানান, এ ঘটনায় আবু সাঈদ নামে একজনকে রাতে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মঠবাড়িয়ায় দুস্থ ও দরিদ্রদের মাঝে অর্থ ও কাপড় বিতরণ

“দুস্থ ও হতদরিদ্রদের পাশে আমরা” এই স্লোগানকে সামনে রেখে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় সোমবার দুস্থ ও হতদরিদ্র নারী-পুরুষের মাঝে নগদ অর্থ ও কাপড় বিতরণ করা হয়।

উপজেলা উত্তর মিঠাখালী গ্রামে সিয়াম মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মঠবাড়িয়া পৌরসভার কাউন্সিলর ও ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা মোঃ শফিকুর রহমান।

mothbariya poorফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সাংবাদকি মিজানুর রহমান মিজুর সভাপতিত্বে বিতরণ অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ক্রিড়া সংগঠক শহিদুল ইসলাম, উন্নয়ন কর্মী ইসরাত জাহান মমতাজ, সাংবাদিক ইসমাইল হোসেন হাওলাদার, ছাত্রলীগ নেতা মাহাবুবুর রহমান আকাশ, সোহেল মাহমুদ, আল রাব্বি সোহাগ। অনুষ্ঠানে এলাকার ২০জন দরিদ্রদের মাঝে নগদ অর্থ ও কাপড় বিতরণ করা হয়।

মঠবাড়িয়ায় ঋণের বোঝা সইতে না পেরে দর্জির আত্মহত্যা

ঋণের বোঝা বইতে না পেরে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া পৌর শহরে সোমবার নিতাই কর্মকার (৫৫) নামের এক দর্জি চালের পোকা নিধনের ঔষধ পান করে আত্মহত্যা করেছে। নিতাই কর্মকার মঠবাড়িয়া পৌর শহরের ৫নং ওয়ার্ডের টিএন্ডটি রোডের কর্মকার পাড়া এলাকার বাসিন্দা মৃত নারায়ন কর্মকারের ছেলে।

পারিবারিক সূত্রে জানাগেছে, দুই সন্তানের জনক নিতাই কর্মকার এক সময় স্বর্ণালংকার তৈরির কাজ করতো। পরে দেনার দায়ে স্বর্ণের কাজ ছেড়ে দিয়ে দর্জির কাজ শুরু করেন। দর্জির কাজ করেও বিভিন্ন এনজিও থেকে নেয়া লোন বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে ধার নেয়া টাকা পরিশোধ করতে তিনি ব্যর্থ হন। এনিয়ে তিনি হতাশায় ভুগছিলেন। ধারনা করা হচ্ছে ঋণের বোঝা বইতে না পেরে তিনি দক্ষিণ বন্দর হাসপাতাল ব্রিজের ওপারে ভাড়া বাসায় চালের পোকা নিধনের ঔষধ পান করে আত্মহত্যা করেন।

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ কেএম তারিকুল ইসলাম জানান, নিতাই কর্মকারের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এঘটনায় থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।