ভারত থেকে নেমে আসা ঢলের পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে গোমস্তাপুরের বোরো ধান ক্ষেত


❏ বুধবার, এপ্রিল ২৬, ২০১৭ Breaking News, অর্থনীতি, দেশের খবর, রাজশাহী, স্পট লাইট

জাকির হোসেন পিংকু, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:

চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলায় ভারত থেকে নেমে আসা ঢলের পানিতে পূণর্ভবা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে সীমান্তবর্তী রাধানগর ইউনিয়নের পানিশালা, চন্দের বিল, বিল কুজাইন ইত্যাদি বিলগুলিতে ঢুকে পড়ায় শত শত বিঘা জমির উঠতি বোরো ধান পানিতে তলিয়ে যেতে শুরু করেছে। ফলে ইসলামপুরগঞ্জ, রোকনপুর, কচন্না, ঘোলাদিঘীসহ আশে পাশের ২০টি গ্রামের মানুষের ফসল ক্ষতিগ্রস্থ হবার আশংকা সৃষ্টি হয়েছে।

উপজেলা সদর থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত কুজাইন বিলে সোমবার বিকেল থেকে হঠাৎ পানি ঢুকতে শুরু করে। বিলে পানি ঢোকা বন্ধ করতে কৃষকরা ওই দিনই একটি কালভার্টের সামনে বাঁধ দিয়ে ব্যর্থ হয়। বুধবার পর্যন্ত ওই বিলে ঢলের পানি ঢোকা অব্যহত ছিল।

মঙ্গলবার দুপুরে গোমস্তাপুর উপজেলা নির্বার্হী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফিরোজ মাহমুদ, গোমস্তাপুর সার্কেল সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মাইনুল ইসলাম, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাসুদ হোসেন, উপজেলা আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশিদ সহ অনান্যরা বিল এলাকা পরিদর্শনে যান।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাসুদ হোসেন জানান, বিলের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া পূণর্ভবা নদীর পানি হঠাৎ বৃদ্ধি পাওয়ায় বিল ও সংলগ্ন নীচু এলাকা ডুবে গেছে। বিশাল এই বিলে এবার ৬৩৫ হেক্টর (পাঁচ হাজার বিঘা) জমিতে বোরো আবাদ হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত ৪০০ বিঘা জমির ধান কিছুটা ডুবে গেছে। ডুবে যাওয়া জমির পরিমান বাড়ছে। কিছু কৃষক আতংকিত হয়ে আধাপাকা ধান কেটে ফেলতে শুরু করেছে। আশংকার বিষয়, আগামী ২/৩ দিন পানি বৃদ্ধি এভাবে অব্যাহত থাকলে বিল ও সংলগ্ন জমির সমস্ত ধান ডুবে যাবার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে দ্রুত পানি হ্রাস পেলে ধান রক্ষা পাবে। বিষয়টি তিনি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছেন। সংশ্লিষ্ট উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তারা ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের তালিকা তৈরি করা শুরু করেছেন।

এদিকে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা অভিযোগ করেছেন পাশের নওগাঁ জেলার সাপাহার উপজেলার ওপারে উজানে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর দিনাজপুরে ঢলের পানি থেকে বাঁচতে একটি স্লুইস গেট খুলে দেয়ায় সীমান্ত নদী পূণর্ভবা দিয়ে বিলে পানি প্রবেশ শুরু করে। এতে নওগাঁর পোড়শা উপজেলার একটি বিলের কয়েকশ’ বিঘা জমির ধানও জলমগ্ন হয়েছে।

বিল পরিদর্শনে যাওয়া ইউএনও ফিরোজ মাহমুদ জানান, বিষয়টি জেলা প্রশাসককে অবহিত করা হয়েছে। হঠাৎ করে পানি বেড়ে যাওয়ায় পুনর্ভবা নদীর আশপাশের নিচু এলাকার বোরো ধান পানির নিচে তলিয়ে যাচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের পুনর্বাসনের জন্য তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। তাদের জন্য সরকার ত্রাণের ব্যবস্থা নিচ্ছে। মঙ্গলবার বিকেলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আ’লীগের শীর্ষ নেতা জিয়াউর রহমান ডুবে যাওয়া বিল কুজাইন এলাকা পরিদর্শন করেছেন। এ সময় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা ওই বিলে ভবিষ্যতে বন্যা রোধে স্থায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানান।