সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পীরগঞ্জে বিদ্যালয় মাঠে সরঞ্জামাদী! শিক্ষার্থীদের পড়ালেখা ব্যাহত

৬:৫৬ অপরাহ্ন | রবিবার, নভেম্বর ২৬, ২০১৭ দেশের খবর

আব্দুল করিম সরকার পীরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধিঃ রংপুরের পীরগঞ্জে গায়ের জোরে স্থানীয় এক ঠিকাদার সায়েস্তাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে রাস্তা পাকা করণের সরঞ্জামাদী অবৈধ ভাবে রেখে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পড়ালেখা ব্যাহত ঘটায় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

জানা গেছে, রংপুর সড়ক বিভাগের পীরগঞ্জ প্রকৌশলী (এলজিইডি)’র অধীনে উপজেলার সয়েকপুর হইতে সায়েস্তাপুর পর্যন্ত প্রায় ১ কিলোমিটার সড়কটির টেন্ডার আহ্বান করেন কর্তৃপক্ষ এতে বরাদ্দ হয় ৭৫ লক্ষ টাকা। টেন্ডারের পর লটারীর মাধ্যমে মের্সাস মশকুর রহমান, কলেজ রোড, রংপুর ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজটি পায়। এদিকে রংপুরের ঠিকাদারকে জিম্মি করে স্থানীয় প্রভাবশালী ঠিকাদার রাশেদুল ইসলাম কাজটি কিনে নেন।

গতকাল রবিবার সরেজমিনে সড়কটির অনিয়মের সত্যতা ও বিদ্যালয়টি বন্ধ পাওয়া যায়। এদিকে বিদ্যালয়টি বন্ধ থাকায় কোমলমতি শিশুরা বিদ্যালয়ে আসতে না পারায় অভিভাবকের ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন প্রধান শিক্ষক মজিবুর রহমান ঠিকাদারের নিকট মোটা অংকের উৎকোচের বিনিময়ে বিদ্যালয়ের মাঠটি ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছেন বলে এলাকাবাসী জানায়। অপর দিকে ওইদিন সকাল থেকে শুরু করে সন্ধ্যা পর্যন্ত ঠিকাদার রাশেদুল ইসলাম ইঞ্জিনিয়ার অফিসের উপসহকারী প্রকৌশলী সাহিদার রহমান ও কার্যসহকারী না থাকায় নামে মাত্র বিটুমিন দিয়ে সড়কটি কাজ সম্পন্ন করেছেন।

এব্যাপারে ইঞ্জিনিয়ার অফিসের উপসহকারী প্রকৌশলী জানান কাজটি সঠিক ভাবেই হচ্ছে। প্রধান শিক্ষক মজিবুর রহমান জানান ঠিকাদারকে আমি বাধা দিয়েছি। তবে তারা জোর করে আমার অনুমতি ছাড়াই মালামাল রেখেছেন। বিষয়টি আমি শিক্ষা অফিসারকে অবগত করেছি। এবিষয়ে শিক্ষা অফিসার জোবায়েদা রওশন জাহান জানান ঠিকাদার মালামাল কোথায় রাখবে সেটা তাদের বিষয়। তবে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের শিক্ষার পরিবেশ ব্যাহত হলে অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা নিব।

 

ঠিকাদার রাশেদুল ইসলাম জানান লিখিত অনুমতির প্রয়োজন নেই মৌখিক ভাবে বিদ্যালয় মাঠে মালামাল রেখেছি। ইঞ্জিনিয়ার মজিবর রহমানের মুঠোফোন- ০১৭১৪৫২৩৮৬৭ নম্বরে একাধিকবার কথা বলার চেষ্টা করলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।