• আজ ২১শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

গোপালগঞ্জে নৈশ প্রহরীর স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা

৫:০৩ অপরাহ্ন | সোমবার, নভেম্বর ২৭, ২০১৭ ঢাকা, দেশের খবর

এইচ এম মেহেদী হাসানাত, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি: গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে নৈশ প্রহরীর স্ত্রী রিক্তা আক্তারকে (২৮) গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। রোববার রাতে মুকসুদপুর উপজেলা পরিষদের কর্মচারী কোয়ার্টারে এ ঘটনা ঘটেছে।

নিহত রিক্তার স্বামী মোর্তুজা মোল্লা মুকসুদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) বাসা ও অফিসের নৈশ প্রহরী পদে কর্মরত। রিক্তা স্বামীর সঙ্গে মুকসুদপুর উপজেলা পরিষদের কোয়ার্টারে থাকতেন।

রোববার দিনগত রাত ২টার দিকে রিক্তার ওপর দুর্বৃত্তরা হামলার করে। পরে রাত সাড়ে ৩টার দিকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর তিনি মারা যান।

মুকসুদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু নাঈম মো. মারুফ খান ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আজিজুর রহমান জানান, রাত ২টার দিকে নৈশ প্রহরী মোর্তুজার বাসায় কেউ ঢুকে তার স্ত্রী রিক্তার গলায় ধারালো অস্ত্র চালায়। এ অবস্থায় রিক্তা তার ৩ বছর বয়সের শিশু কন্যা মিথিলা আক্তার লিমাকে নিয়ে কোনো মতে রুম থেকে বের হয়ে আসেন। খবর পেয়ে ইউএনও তার গাড়িতে করে তাকে প্রথমে মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। গুরুতর অবস্থায় পরে রিক্তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওসি জানান জানান, বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। ঘটনাস্থলের মেঝতে রক্ত পড়ে রয়েছে। এছাড়া ওই কোয়ার্টারের জানালা ভাঙ্গা পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় রিক্তার স্বামীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশের জিম্মায় নেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

নিহতের চাচা আলামিন মোল্লা জানান, ৫ বছর আগে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার পাইককান্দি গ্রামের ইমামউদ্দিন ওরফে বাসু মোল্লার ছেলে গোলাম মোর্তুজা মোল্লার সঙ্গে একই উপজেলার বোড়াশী ইউনিয়নের ভেন্নাবাড়ী গ্রামের নুর আলম মোল্লার মেয়ে রিক্তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই টাকা-পয়সাসহ পারিবারিক বিরোধ নিয়ে মোর্তুজার সঙ্গে শ্বশুর বাড়ির লোকজনের বিরোধ চলছিল। সম্প্রতি বিরোধ চরম আকার ধারণ করায় মোর্তুজা তার স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা করেছেন বলে তিনি অভিযোগ করেন।

সময়ের কণ্ঠস্বর/রবি