‘ভূমি অফিসে দূর্নীতির বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস’সাবেরা আকতার


মীর মো. আমান মিয়া লুমান, ছাতক (সুনামগঞ্জ) সংবাদদাতা,
সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সাবেরা আকতার ভূমি অফিসে দূর্নীতি-অনিয়মের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়ে বলেছেন, ভূমি ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে বড় ধরণের অনিয়ম ও দূর্নীতির ঘটনা ঘটছে।

এসব দূর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে তিনি সম্মিলিতভাবে প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহবান জানান। তিনি আরো বলেন, ৪৫দিনে ভূমি নামজারি না হয়ে একদিন পার হলে, কোন কর্মকর্তা-কর্মচারি নামজারিসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে ভূমি মালিকদের কাছে ৫শ’ থেকে ৬শ’ টাকা দাবি, ৪টি তহশীল অফিসের সামনের দর্শনীয় স্থানে বোর ও আমন ভূমির খাজনার ধার্য্য তালিকা টানানো, কোন কর্মকর্তা-কর্মচারি ভূমি মালিকদের সাথে দূর্ব্যবহার, সরকারের নির্ধারিত তালিকার অধিক খাজনা আদায়, খাজনার রশিদে দেয় টাকার সমরিমাণ উল্লেখ না করা, ঘুষ গ্রহণ, ফাইল আটকিয়ে অবৈধ সুবিধা আদায়সহ যাবতিয় হয়রানির ক্ষেত্রে তাকে জানানো হলে সাথে সাথেই তিনি জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন বলে আশ্বাস দেন। সোমবার সকাল ১০টা থেকে ছাতকে ভূমি জটিলতা, নামজারি, খাজনা আদায়, ভূমি মালিকদের আবেদন-নিবেদন, ও অভিযোগসহ জনভোগান্তি লাঘবের উদ্দেশ্যে আয়োজিত গণশুনানী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ নাছির উল্লাহ খান, এসিল্যান্ড সোনিয়া সুলতানান, সমাজসেবি আবরু মিয়া তালুকদারসহ নেতৃবৃন্দ। গণশুনাণীকালে অভিযোগ আপত্তি তুলে ধরেন, নোয়ারাই গ্রামের মেহেদী চৌধুরি, মানসীনগর গ্রামের গোলাম কুদ্দুছ, বাঁশখালা গ্রামের রূপা মিয়া, ঝামক গ্রামের তাহিদুল ইসলাম, খারাই গ্রামের আকরম আলী, বাতিরকান্দি গ্রামের ছায়া বেগম, জাউয়া গ্রামের আলী ইমরান কদর, জালালিচর গ্রামের রুহুল আমিন, প্রথমারচর গ্রামের রফিকুজ্জামান, শহরের রহমতবাগ এলাকার হোসনা বেগম, মুক্তিযোদ্ধা তোতা মিয়াও সালাম প্রমূখ।

ছাতকে সিএনজিসহ একজন গ্রেফতার

ছাতকে গাড়ি চোর সিন্ডিকেট চক্রের অন্যতম সদস্য আংগুর মিয়া (২২)কে একটি চোরাই সিএনজি অটো-রিকশাসহ পুলিশ গ্রেফতার করেছে। সে আন্ধারীগাঁও গ্রামের ওয়াছির আলীর পুত্র। শনিবার রাতে এসআই নিজাম উদ্দিন শহরের বেবি ষ্ঠ্যান্ড থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। সম্প্রতি এখানে মোটর সাইকেল ও সিএনজি চুরিসহ ছিনতাইয়েরঘটনা ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। একটি সংঘবদ্ধ গাড়ি চোর সিন্ডিকেট এসব ঘটনার সাথে জড়িত রয়েছে বলে পুলিশের ধারণা। গাড়ি চুরির মামলায় চলতি নভেম্বর মাসে আরো ৫জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এরা হচ্ছে, আন্ধারীগাঁও গ্রামের মৃত সুন্দর আলীর পুত্র জালাল উদ্দিন ও একই গ্রামের মৃত সাইফুর রহমানের পুত্র আব্দুল ওজুদ। এদিকে আটক জালাল উদ্দিন ও তাজির আলীকে রিমান্ডে এনে তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ি আংগুর মিয়াকে গ্রেফতার ও তার জিম্মায় থাকা চোরাই সিএনজি উদ্ধার করা হয়। এসআই সফিকুল ইসলাম জানান, চোর সিন্ডিকেটের কাছ থেকে দু’টি সিএনজি ও একটি মোটর সাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে। তবে গাড়ি চোর সিন্ডিকেটের সদস্যদের গ্রেফতারে অত্যন্ত আন্তরিক বলেও জানান তিনি।

ছাতকে অস্ত্রসহ দু’যুবককে আটক করেছে র‌্যাব

ছাতকের এক অস্ত্র ব্যবসায়িসহ দু’যুবককে সিলেটের বিশ্বনাথ এলাকা থেকে অস্ত্রসহ আটক করেছে র‌্যাব। শনিবার রাত ৮টায় র‌্যাব-৯ এর এএসপি মাঈন উদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্বে বিশ্বনাথের দেওকলস ইউপির বাগিচা বাজার সোমা মেডিকেল হতে ডাকাত সন্দেহে দু’ অস্ত্রধারিকে আটক করা হয়।

তারা হলো, সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার শক্তিয়ারগাঁও (বড় মসজিদ সংলগ্ন) গ্রামের ফয়জুর রহমানের পুত্র মোসাদ্দেক হোসেন (২৩) ও ওয়াসিদ উল্লাহর পুত্র সায়েক মিয়া (২৯)। র‌্যাব সুত্রে জানা যায়, তারা দীর্ঘদিন যাবত বিশ্বনাথও আশপাশের থানায় বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ডে লিপ্ত ছিল। তারা বিভিন্ন সময়ে ভারতিয় সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে চোরাচালানের মাধ্যমে দেশে অস্ত্র নিয়ে আসে।

এছাড়াও কিছু কিছু সময়ে এই অস্ত্র ভাড়া দিয়ে থাকে বলে জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে। উদ্ধারকৃত অস্ত্রসহ আসামিদের বিশ্বনাথ থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

◷ ৮:৫৭ অপরাহ্ন ৷ সোমবার, নভেম্বর ২৭, ২০১৭ দেশের খবর