ফুলবাড়ীতে বসতবাড়ীতে আগুন,লুটপাট: আহত ৪

৮:২৬ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, নভেম্বর ২৮, ২০১৭ অপরাধ, দেশের খবর

অনিল চন্দ্র রায়,ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ
কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে গত সোমবার শেষ বিকালে জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে তিনটি বসতঘরে আগুন ও চারটি বসতঘরের মধ্যে ব্যাপক ভাংচুর চালিয়ে লুঠপাটের ঘটনা ঘটেছে । ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের অনন্তপুর গ্রামে। এ সময় ১শিশুসহ ৪ জন ব্যক্তি আহত হয়েছে। খবর পেয়ে ফুলবাড়ী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে একজনকে আটক করেছে এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনলেও নতুন করে সংঘর্ষের আশংকায় পুলিশের টহল এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত অব্যাহত আছে।

ফুলবাড়ী থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে,উপজেলার অনন্তপুুর গ্রামের মৃত মহর উদ্দিনের ছেলে নুর জামাল বাংটু মিয়া পৈত্রিক সুত্রে ৩৭ শতক জমি দাবি করে প্রায় একমাস পূর্বে ওই গ্রামের মানুষের উপস্থিতিতে ঘরবাড়ী তৈরী করে বসবাস করে আসছিলেন।

এরই মধ্যে বিরোধকৃত জমিকে কেন্দ্র করে কয়েক দফা বৈঠক শালিস হলেও কোন মিমাংসা না হলে সোমবার শেষ বিকালে একই গ্রামের কুদরত আলীর নের্তৃত্বে তারই ভাই হবিবর,আমুদ্দিনসহ তার বাহিনী প্রকাশ্যেই তাদের হাতে থাকা দেশীয় অস্ত্রসহ ও লাঠি হাতে নিয়ে নুর জামাল বাংটু মিয়ার বাড়ী ভাংচুর করে পুড়িয়ে দেয়। এ সময় বাড়ীতে থাকা লোকজনের আর্ত্মচিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলেও প্রতিপক্ষদের মারমুখী অবস্থানের কারণে কেউয়ে বাড়ীটির শেষ রক্ষা করতে পারেনি।

এ সময় তারা রফিকুলের বাড়ীতে ব্যাপক ভাংচুর ও লুঠপাট করে খরের ডিপিতে আগুন দিয়ে মফিজুল ও নুরজামালের বাড়ীতে হামলা চালায়। মমিনুল নামের এক কিশোরকে খাপর দিয়ে কপালে আঘাত ও কেয়া জান্নাতুন নামের শিশুকে প্রচন্ড মারপিট করে।

বিষয়টি তাৎক্ষনিক ভাবে এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে নুর জামাল বাংটু মিয়ার লোকজন জড়ো হয়ে আমিরের বিল্ডিং বাড়ীতে হামলা ও ব্যাপক ভাংচুর করে আগুন ধরিয়ে পুড়িয়ে দেয়। বাড়ীতে থাকা ৪ টি বড়বড় গরু ও টাকাসহ স্বর্ণালংকার লুঠপাট করা হয়। এ সময় গফুর আছিরন ও গাফফারের বাড়ীতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করা হয়। মারাত্বক আহত হন ফয়েজ উদ্দিন ও তার মা ফাতেমা।

দ্রুত ফায়ার বিগ্রেড ঘটনাস্থলে পৌছিলেও কেউ সহযোগিতা করে নাই বলে অভিযোগ করেছেন ফায়ার বিগ্রেড এর লিডার একাব্বর হোসেন । এলাকাবাসী রফিকুলের স্ত্রী আনজুমা বেগম জানান,কোন কারণ ছাড়াই কুদরত আলী তার লোকজন দিয়ে আমাদের বাড়ী গুলোতে হামলা চালিয়ে লুঠপাট ও আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়। আমরা গরীব মানুষ তাই আমাদের বিচার নেই। মৃত বাচ্চা মিয়ার ছেলে আলেপ উদ্দিন বলেন আমাদের জমিতে তারা বাড়ী করেছে আমরা ভেঙ্গে দিয়েছি।

এ বিষয়ে কুদরত আলীর সঙ্গে কথা হলে আগুনে পুড়িয়ে দেয়া ও হামলা লুঠপাটের কথা তিনি অস্বিকার করেন । আমাদের ক্রয়কৃত জমিতে আমরা আবাদ করেছি। তারা অবৈধ ভাবে সেই জমিতে বাড়ীঘর তৈরী করেছে আমরা ভেঙ্গে দিয়েছি। এখানে দোষের কি আছে ? এ কাশিপুর ইউনিয়নের ইউপি সদস্য আলেপ উদ্দিন জানান, বিষয়টি খুবেই জটিল। আমার নির্বাচনী এলাকা হওয়ায় আমার বলার কিছু নেই।
এ ব্যাপারে কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গোলজার হোসেন মন্ডল বলেন,বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। উভয় পক্ষের সঙ্গে বসার চেষ্টা করা হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে ফুলবাড়ী থানার ওসি খন্দকার ফুয়াদ রুহানী জানান.,মামলা হয়েছে। একজন আটক করা হয়েছে। আমরা খোঁজ খবর রাখছি,যেন আর কোন নতুন করে ঘটনা না ঘটে সে জন্য পুলিশের টহল অব্যাহত থাকবে।
অনিল চন্দ্র রায়